ঢাকা : ২৮ জুলাই, ২০১৭, শুক্রবার, ১০:৩১ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
Home / রাজনীতি / অর্থমন্ত্রীর পদত্যাগ চাইলেন জাপা এমপি বাবলু

অর্থমন্ত্রীর পদত্যাগ চাইলেন জাপা এমপি বাবলু

bablu

আর্থিক খাতে অনিয়ম এবং তা সংসদে স্বীকারোক্তির জন্য অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের পদত্যাগ চাইলে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু।তিনি বলেছেন, এ সংসদেই অর্থমন্ত্রী বলেছেন ‘আর্থিক খাতে সাগর চুরির হয়েছে’ এরপর তাকে নৈতিকভাবেই দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করা উচিত।

আজ (বৃহস্পতিবার) ২৩ জুন জাতীয় সংসদে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে এ দাবি করেন তিনি। এসময় অর্থমন্ত্রী সংসদেই উপস্থিত ছিলেন। জিয়াউদ্দিন বাবলু বলেন, বাজেটে দেখেছি এক লাখ কোটি টাকার খেলাপি ঋণ। তাহলে এ টাকা কার কাছে গেছে? এরা কারা?

এরা নিশ্চয়ই কোনো সাধারণ মানুষ নয়। এদেরকে আইনের আওতায় আনতে হবে। কিন্তু আইনের আওতায় আনাতো দূরের কথা, এখন দুই হাজার কোটি টাকার অবলোপন (ছাড়) করা হচ্ছে। এ টাকাতো পাবলিক (জনগণের টাকা) মানি। এ টাকা দিয়ে তো দ্বিতীয় পদ্মা সেতু করা যেতো।

এছাড়াও সোনালী ব্যাংক, বেসিক ব্যাংক, জনতা ব্যাংকসহ  সমস্ত ব্যাংকে চলছে লুটপাট আর লুটপাট। এটা আপনি (অর্থমন্ত্রী) নিজেই বলেছেন, ব্যাংক এখন ক্যান্সারের ইনস্টিটিউশন। এজন্য রাষ্ট্রয়াত্ত্ব ব্যাংক সরকারি খাত থেকে বেসরকারি সেক্টরে ছেড়ে দিলে আপনাকে আর দায়-দায়িত্ব নিতে হবে না।

অর্থমন্ত্রীর সমালোচনা করে তিনি আরো বলেন, আপনি বলছেন সাগর চুরি হয়েছে। এটি আবার স্বীকারও করছেন অকপটে। সাগর চুরি যদি হয়ে থাকে বিনয়ের সঙ্গে আমার প্রশ্ন, বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ৮শ কোটি টাকা সাইবার ডাকাতি হয়েছে, লুটপাট হয়ে গেছে।

তার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের  গভর্নরকে পদত্যাগ (রিজাইন) করতে হয়েছে। উনি নৈতিক কারণে পদত্যাগ করেছেন। আপনি অর্থমন্ত্রী হিসেবে অর্থমন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে রয়েছেন, আপনার কি কোনো নৈতিক দায়িত্ববোধ নেই?

আপনি যখন এ সংসদে বলেন, সাগর চুরি হয়েছে। তার পর মুহূর্ত থেকে আপনি কি আর সংসদে অর্থমন্ত্রী হিসেবে থাকতে পারেন? সাগর চুরি বলার পরে ইউ ক্যান স্টে হেয়ার ফাইন্যান্স মিনিস্টার অফ কান্ট্রি।

ব্যাংকিং খাতে ভর্তুকির সমালোচনা করে বলেন, ৪ হাজার ১ কোটি টাকার সরকারি ব্যাংকিং সেক্টরে ঘাটতি পূরণের লক্ষ্যে দুই হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিয়েছেন। কার টাকা দিচ্ছেন। এ টাকা তো গরীব মানুষের টাকা। তাহলে আবার কি লুটপাট বাড়ানোর জন্য টাকা দিচ্ছেন?

এ সম্পর্কিত আরও

আপনার-মন্তব্য