Mountain View

চিলির পুনরাবৃত্তি নাকি আর্জেন্টিনার প্রতিশোধ!

প্রকাশিতঃ জুন ২৬, ২০১৬ at ৯:৩৫ পূর্বাহ্ণ

copa fina;

মোঃরাজিব রজ্জব,স্পোর্টস ডেস্কঃ চিলি বনাম আর্জেন্টিনা সেই সাথে আবারো কোপার ফাইনাল! একবছরও হলো না আবারো তাদের একে অপরের সাথে ফাইনাল খেলা হবে।আগামী সোমবার ভোর ৬টায় যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সির ইস্ট রাদারফোর্ডে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন চিলির মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা। গত বারের ফাইনালে এই চিলি কাছে হেরেই শিরোপা ছোঁয়া হয়নি মেসির।  আর্জেন্টিনার সর্বশেষ বিশ্বকাপ ১৯৮৬ সালে দিয়েগো ম্যারাডোনার হাত ধরে। মহাদেশীয় টুর্নামেন্ট কোপা আমেরিকার সর্বশেষ শিরোপা আর্জেন্টাইনরা ঘরে তুলতে পেরেছিল ১৯৯৩ সালে। সেটা গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতার হাত ধরে। সেই থেকে ২৩ বছর ধরে শিরোপা খরায় ভুগছে আর্জেন্টিনা ও তাদের সমর্থকরা।অপরদিকে চিলির সামনে রয়েছে টানা ২য় কোপার শিরোপা ঘরে তোলার।

আক্ষেপের শুরুটা ম্যারাডোনা দিয়েই। সর্বশেষ হতাশার নায়ক লিওনেল মেসি। ১৯৯০ বিশ্বকাপের ফাইনালে তৎকালীন পশ্চিম জার্মানির কাছে হেরেছিল ম্যারাডোনা শিবির।

২০১৪ ব্রাজিল বিশ্বকাপে সেই জার্মানি আবারো কাঁদালো মেসি বিগ্রেডকে। দীর্ঘ দুই যুগের বিশ্বকাপ ফাইনালের এই হতাশার মেলবন্ধন, কজনাই বা চেয়েছে।

সবচেয়ে বড় কথা, ১৯৯০ বিশ্বকাপ বাদ দিন। আর্জেন্টিনা বৈশ্বিক কিংবা মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের শিরোপা জিতেছে আজ থেকে ২৩ বছর আগে, ১৯৯৩ সালে বাতিস্তুতার হাত ধরে। এরপর আর্জেন্টাইনদের শোকসটা যেন ধূ ধূ বালুচর। যেখান থেকে উঠছে হতাশার তপ্ত নিঃশ্বাস, শিরোপা বন্ধাত্ম ঘুঁচানোর তীব্র আকুলতা।messi1

২০১৪ ব্রাজিল বিশ্বকাপের ফাইনালে গিয়েও হয়নি। এক বছর পর কোপা আমেরিকার ফাইনালেও ব্যর্থতার সাতকাহন। টাইব্রেকারে স্বাগতিক চিলির কাছে হার। এরপর এক বছর পর শতবর্ষী কোপা টুর্নামেন্টে আবারো ফাইনালে আর্জেন্টিনা। প্রতিপক্ষ গতবারের ফাইনালিস্ট সেই চিলি। যুক্তরাষ্ট্রের মেটলাইট স্টেডিয়ামে শিরোপা নির্ধারণী এই ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সোমবার ভোর ছয়টায়।messi

কিন্তু এইবারের ফাইনালটা অন্যরকম উত্তেজনা এবং সেই সাথে গতবারের কোপার ফাইনালে হারার প্রতিশোধের ম্যাচ বলা চলে আরজেন্টিনার,কিন্তু গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচ সেই চিলিকে হারালেও এখন তাদের কঠিন বাধার মুখে পরতে হবে তার মধ্যে অন্যতম দুইটা কারণ হচ্ছে শেষ সময়ে ইনজুরিতে আক্রান্ত আর্জেন্টিনা এবং সেই সাথে চিলি একের পর এক দুর্দান্ত জয় ।chille

দুরন্ত আর্জেন্টিনার সামনে গতবারের ফাইনালিস্ট চিলি। স্বভাবতই, আর্জেন্টিনার সামনে উঠে আসছে প্রতিশোধ নামক শব্দটি। তবে কোচ জেরার্ডো মার্টিনো কিংবা অধিনায়ক লিওনেল মেসি তেমনটি ভাবতে নারাজ।

তাদের চোখে প্রতিশোধ নয়, কিভাবে শিরোপা জেতা যায়, সেটাই সবার মনে বাজছে পুরোদমে।  এক কাঠি এগিয়ে মেসি। উল্টো চিলি সম্পর্কে সতীর্থদের সাবধান করে দিয়েছেন তিনি, ‘আমরা চিলিকে চিনি, এরা নিখুঁত একটি দল, এ কারণেই আবার ফাইনালে উঠেছে তারা।’

এইতো কোয়ার্টার ফাইনালে শক্তিশালী মেক্সিকোকে সাত শুন্য গোলে হারিয়ে নিজেদের ভালোই প্রমাণ করেছে।সেই সাথে সেমিফাইনালে কলম্বিয়াকে ছেড়ে দেয়নিই দুই শুন্য গোলে হারিয়ে ফাইনালে নাম লিখালো অ্যালেক্সি সানচেজেরা।

এইদিকে মেসি জিতার ব্যপারে দারুন আশাবাদী মেসি। লক্ষ্যের খুব কাছে এসে ফের হতাশায় ডুবতে আপত্তি মেসির, “এখন সবকিছু উজার করে দেওয়ার সময়। কারণ, এখানে যা অর্জন করতে এসেছি তার খুব কাছে আমরা। গত এক বছরে আমরা দল হিসেবে অনেক উন্নতি করেছি। ফাইনালে খেলতে মুখিয়ে আছি আছি। রোমাঞ্চ নিয়ে অপেক্ষায় আছি।”

মেসি আরো যোগ করে “এই টুর্নামেন্টে আর্জেন্টিনা খুব জমাট একটা দল। ব্যর্থ হওয়া চলবে না। টানা তৃতীয় ফাইনাল হারা হবে নিদারুণ হতাশার।” আর্জেন্টিনার অধিনায়ক মেসি বলেছেন, “আমার মনে হয় গত বছরের সাথে এই বছরের বেশ মিল আছে। আমরা একটু দেরিতে খেলি। সেই অর্থে আমাদের ওপর তেমন কোনো চাপ নেই। আশা করছি, এই মুহূর্তটা জয় দিয়ে উদযাপন করতে পারবো আমরা।”

এইদিকে আর্জেন্টিনার উপর নেমে এসেছে ইঞ্জুরির ভর! একের পর এক খেলোয়াড় ইনজুরিতে আক্রান্ত।কোপা আমেরিকার ফাইনালের আগে অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া চোট থেকে সেরে উঠেছেন বলে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের সুখবর দিয়েছিলেন কোচ জেরার্দো মার্টিনো। তবে পরের দিনই এল দুঃসংবাদ! দলের তারকা মিডফিল্ডারের ফাইনালে খেলা নিয়ে শঙ্কার প্রকাশ করেছেন স্বয়ং দেশটির ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (এএফএ)।

এছাড়া হাত ভেঙ্গে কোপা থেকে ছিটকে পরেছে সেমিফাইনালের দিন যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে প্রথম গোল করা লাভেজ্জি।মিডফিল্ডার ফার্নান্দেস ,পাস্তোরে তারা এখন ইঞ্জুরির মধ্যে রয়েছে।ফরোয়ার্ড নিকোলাস গাইতানের সঙ্গে চোটে ভুগছেন ডিফেন্ডার মার্কোস রোহো । মেসির সঙ্গে তাই ভরসা গঞ্জালো হিগুয়েন ও সার্জিও অ্যাগুয়েরো।

অবশ্য ইনজুরি ঝামেলা পাকাতে পারে চিলি শিবিরেও। হাঁটুর চোটে পড়া মিডফিল্ডার পাবলো হার্নান্দেজ ও টুর্নামেন্টের অন্যতম সেরা মিডফিল্ডার মার্সেলো দিয়াসের খেলা নিয়ে রয়েছে শঙ্কা।

তবে অধিনায়ক ক্লদিও ব্রাভোর সঙ্গে গারি মেদেল, আর্তুরো ভিদাল, আলেক্সিস সানচেজ সমৃদ্ধ এই দলটি শিরোপা জিততে সক্ষম বলে মনে করছেন চিলির কোচ জুয়ান অ্যান্টোনিও পিজ্জি। ফাইনাল ম্যাচের আগে তার কণ্ঠে দৃঢ় প্রত্যয়, ‘আমরা খুব ভালো অবস্থায় ফাইনালে এসেছি। আমরাও বেশ শক্তিশালী। তাদের (আর্জেন্টিনা) অবশ্যই প্রতিপক্ষকে সমীহ করতে হবে’।

মেসিদের সব সময় ভালো খেলে ফাইনালে এসে স্নায়ু চাপ ভর করে সেটা ঝেড়ে ফেলতে পারে কিনা এবং চাপ সামলাতে পারলেই উঠবে মেসির হাতে স্বপ্নের শিরোপা।নাকি ফুটবল বিধাতা ব্রাভোর হাতেই তুলে দিবে কোপার শতবর্ষের শিরোপা?এইসকল প্রশ্নের উত্তর মেলাতে চোখ রাখতে হবে  সোমবার ২৭ জুন ভোর ছয়টায়।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View