ঢাকা : ১৮ অক্টোবর, ২০১৭, বুধবার, ১০:৪৮ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
প্রচ্ছদ / ধর্ম ও জীবন / যাকাত না দেয়া সম্পদ অজগর হয়ে পেঁচিয়ে ধরবে

যাকাত না দেয়া সম্পদ অজগর হয়ে পেঁচিয়ে ধরবে

প্রকাশিত :

file

যাকাত প্রতিটি সমার্থবান ব্যক্তির জন্য ফরজ করা হয়েছে। তাই এই যাকাত পরিশোধ না করলে তার জন্য কেয়ামতে ভয়াবহ শাস্তি অপেক্ষা করছে। কুরআনে এসেছে-
وَاَلَّذِينَ يَكْنِزُونَ الذَّهَبَ وَالْفِضَّةَ وَلَا يُنْفِقُونَهَا فِي سَبِيلِ اللَّهِ فَبَشِّرْهُمْ بِعَذَابٍ أَلِيمٍ يَوْمَ يُحْمَى عَلَيْهَا فِي نَارِ جَهَنَّمَ فَتُكْوَى بِهَا جِبَاهُهُمْ وَجُنُوبُهُمْ وَظُهُورُهُمْ هَذَا مَا كَنَزْتُمْ لِأَنْفُسِكُمْ فَذُوقُوا مَا كُنْتُمْ تَكْنِزُونَ

অর্থ : আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘আর যারা স্বর্ণ ও রৌপ্য পূঞ্জীভূত করে এবং উহা আল্লাহর পথে ব্যয় করে না, তাদেরকে মর্মন্তুদ শাস্তির সংবাদ দাও। যেদিন স্বর্ণ ও রৌপ্য জাহান্নামের অগ্নিতে উহা উত্তপ্ত করা হবে এবং উহা দ্বারা তাদের ললাট, পার্শ্বদেশ ও পৃষ্ঠদেশে দাগ দেয়া হবে। সেদিন বলা হবে, ইহাই উহা যাহা তোমরা নিজেদের জন্য পূঞ্জীভূত করতে। সূতরাং তোমরা যাহা পূঞ্জীভূত করেছিলে তাহা আস্বাদন কর।’ (সুরা তওবা-৩৪-৩৫)

আবদুল্লাহ বিন মাসউদ (রা.) থেকে বর্ণিত হয়েছে যে, আল্লাহর রাসুল (সা.) বলেন- কোনো ব্যক্তি যদি তার ধনসম্পদের যাকাত না দেয় তবে ওই সম্পদ কিয়ামতের দিন অজগর সাপের আকার ধারণ করে তার গলদেশ বেষ্টন করবে।

রাসল (সা.) তারপর তিলাওয়াত করলেন-
وَلَا يَحْسَبَنَّ الَّذِينَ يَبْخَلُونَ بِمَا آتَاهُمُ اللَّهُ مِن فَضْلِهِ هُوَ خَيْرًا لَّهُم ۖ بَلْ هُوَ شَرٌّ لَّهُمْ ۖ سَيُطَوَّقُونَ مَا بَخِلُوا بِهِ يَوْمَ الْقِيَامَةِ ۗ وَلِلَّهِ مِيرَاثُ السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضِ ۗ وَاللَّهُ بِمَا تَعْمَلُونَ خَبِيرٌ

অর্থ : আর আল্লাহ যাদেরকে তাঁর অনুগ্রহ থেকে যা দান করেছেন তা নিয়ে যারা কৃপণতা করে তারা যেন ধারণা না করে যে, তা তাদের জন্য কল্যাণকর। বরং তা তাদের জন্য অকল্যাণকর। যা নিয়ে তারা কৃপণতা করেছিল, কিয়ামত দিবসে তা দিয়ে তাদের বেড়ি পরানো হবে। আর আসমানসমূহ ও জমিনের উত্তরাধিকার আল্লাহরই জন্য। আর তোমরা যা আমল কর সে ব্যাপারে আল্লাহ সম্যক জ্ঞাত।

হজরত আলী (রা.) থেকে বর্ণিত হয়েছে যে, আল্লাহ রাসূল (সা.) বলেন- সুদখোর, সুদদাতা, উহার সাক্ষী ও লেখক, উল্কি অংকনকারিণী এবং যে নারী উল্কি অংকন করায়, অভিশপ্ত ওই ব্যক্তি যে যাকাত দিতে অস্বীকার করে, হিল্লাকারী ও যার জন্য হিল্লা করানো হয়, এদের সকলের উপর আল্লাহর অভিশাপ বা লা’নত। (আহমাদ ও নাসায়ী)

হাদিসে বর্ণিত আছে, একদা দু’জন মহিলা রাসুলুল্লাহ (সা.) এর নিকট আসল। তাদের দু’জনের হাতে স্বর্ণের কংকন ছিল। তখন নবী করীম (সা.) তাদেরকে জিজ্ঞেস করলেন- তোমরা তোমাদের অলংকারের যাকাত দাও কি? তারা বললো, না। তখন নবী (সা.) বললেন- তোমরা কি পছন্দ করবে যে, আল্লাহ তায়ালা তোমাদেরকে আগুনের দু’টি বালা পরিয়ে দিবেন? তারা দু’জন বলল, না। তখন নবী (সা.) বললেন, তাহলে তোমরা এ স্বর্ণের যাকাত প্রদান কর। (তিরমিযি)

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

৩ বছরে সোনা ও রুপা দিয়ে নিজ হাতে কুরআন লিখলেন এক নারী

প্রায় ৩ বছর সময় নিয়ে ১৬৪ ফুটের স্বচ্ছ কালো সিল্কের ওপর সোনা ও রুপা দিয়ে …

Leave a Reply