ঢাকা : ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, বৃহস্পতিবার, ৩:৫৩ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

দিনাজপুরে ভুল অপারেশনে নারীর কিডনি কেটে ফেলার অভিযোগ

received_533678310166331

মোঃ আরিফ জাওয়াদ, দিনাজপুর:- দিনাজপুরের কোতয়ালি থানার কালিতলা মোড় সংলগ্ন এইচ.কে মাদার কেয়ার হসপিটালে পাথর অপারেশন করতে গিয়ে এক নারীর ভুল করে কিডনি কেটে ফেলার অভিযোগ উঠেছে হাসাপাতালের চেয়ারম্যান ডাঃ হযরত আলীর বিরুদ্ধে।

রোগীর আত্মীয়-স্বজনরা জানিয়েছে, জেলারর বিরল উপজেলার পাকুড়া গ্রামের আঃ কুদ্দুসের স্ত্রী আনোয়ারার বাম পাশের কিডনির উপরে একটি পাথর হয়। এক্স-রে করে আরো নিশ্চিত হয় তার কিডনিতে কোনো সমস্যা নাই। গত ২৯শে জুন (বুধবার) রোগী আনোয়ারা ডাঃ হযরত আলীর এইচকে মাদার কেয়ার হসপিটালে ভর্তি হয়।

পরের দিন ৩০শে জুন (বৃহস্পতিবার) ডাঃ হযরত আলী নিজেই এই পাথর অপারেশন করেন। পাথর অপারেশন করতে গিয়ে ভুলবশত কিডনিটি কেটে ফেলে। পাথর ও কিডনি দুটোই কেটে ফেললেও ডাঃ হযরত আলী কিডনি কেটে ফেলার বিষয়টি রোগীর লোকজনকে জানাননি। পরের দিন অপারেশন থিয়েটারে কিডনি কেটে ফেলার বিষয়টি ফাঁস হয়ে যায়।

এ ব্যাপারে ডাঃ হযরত আলী বলেন, রোগীর আগে থেকেই একটি কিডনি নষ্ট ছিল। অপারেশন করে তা ফেলে দেয়া হয়েছে। রোগীর আত্মীয়-স্বজনেরা বিষয়টি ভুল বুঝে অভিযোগ দিয়েছে। বিষয়টি তাদেরকে বোঝানোর পর এখন তারা শান্ত আছে বলে জানান তিনি।

৫ তলায় ৬১৭ নং বেডে ভর্তি থাকা রোগী আনোয়ারার সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, আমি ভর্তি হয়েছি পাথর অপারেশন করার জন্য। অথচ এখন শুনছি যে আমার একটি কিডনি কেটে ফেলেছে। আমাকে এখন একটি কিডনি নিয়ে চলতে হবে।

এদিকে মায়ের পাশে অবস্থানকারী ছেলে আইনুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, ডাঃ আলীর হসপিটালে ভর্তি হওয়ার আগে এক্স-রে করা হয়েছে। তখন পাথরটি দেখা গেছে কিডনির অনেক উপড়ে। ফলে পাথর অপারেশনের জন্য ভর্তি হয়। এক্স-রেতে কিডনির কোনো সমস্যা ধরা পড়েনি। কিন্তু পাথর অপারেশন করতে গিয়ে তিনি কিডনিটি কেটে ফেলে।

এক বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, কিডনি কেটে ফেলার বিষয়টি জানাজানি হলে রাতেই রোগীর আত্মীয়-স্বজনকে ডেকে নিয়ে এক লাখ টাকার বিনিময়ে রফাদফা করেন ডাঃ হযরত আলী। পাশাপাশি বিভিন্ন স্থানে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চলছে।

ভূক্তভোগীর আত্মীয়-স্বজনরা ভুল অপরাশনে কিডনি কেটে ফেলার ঘটনার বিচার দাবি করেন।

বিভিন্ন গণমাধ্যমের রির্পোট থেকে জানা যায়, ডাঃ হযরত আলী একটি অবৈধ গর্ভপাত মামলায় ৯ বছরের সাজা হয় এবং এক বছর জেল খেটে উচ্চ আদালত থেকে মুক্ত হয়।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরেই ৪০ বলে ৪৮ রান করলেন শাহজাদ

স্পোর্টস ডেস্ক: বরিশাল বুলসকে ২৯ রানে হারিয়ে শেষ চারে উঠার লড়াইয়ে টিকে থাকলো রংপুর রাইডার্স। …

Mountain View