Mountain View

যানজটমুক্ত ঢাকা- টাঙ্গাইল মহাসড়ক

প্রকাশিতঃ জুলাই ৪, ২০১৬ at ৩:৫৯ অপরাহ্ণ

  • picture-_118955

হৃদয় হাসান : বিডি টুয়েন্টিফোর টাইমস : মির্জাপুর প্রতিনিধি: এ ঈদে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক যানজট মুক্ত রাখতে অগ্রিম প্রস্তুতি নেয়ায় মহাসড়ক যানজট মুক্ত রয়েছে। দশটি কারণ চিহ্নিত করে সরকারি ও বেসরকারি মিলে কমপক্ষে চারটি সংস্থা মহাসড়ক যানজট মুক্ত রাখতে কাজ করায় এখন পর্যন্ত মহাসড়কে যানজট দেখা যায়নি।সোমবার ভোররাত ও সকালে প্রবল বৃষ্টিতে মহাসড়কে ধীরগতিতে যান চলাচল করলেওবেলা একটায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত মহাসড়কে বাহনের চাপ খুব একটা দেখা যায়নি।মহাসড়ক যানজট মুক্ত রাখতে যেসব পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে সেগুলো হলো- ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক খানাখন্দ সংস্কার, অকেজো পুরাতন গাড়ি মহাসড়কে চলতে না দেয়া, কমিউনিটি ভলান্টিয়ার সার্ভিস নিয়োগ, রাস্তা পারাপারের জন্য রোভার স্কাউটস সার্ভিস, দুর্ঘটনা কবলিত বা বিকল যানবাহন সরিয়ে নিতে রেকার সার্ভিস, ঘুমন্ত চালকদের জাগিয়ে তুলতে পুলিশের বিশেষ টিম, মোটরসাইকেল মোবাইল টিম,ফায়ার সার্ভিস সেবা, মহাসড়কের আশপাশের বিকল্প পথ ব্যবহার এবংমহাসড়কে ট্রাক ও লরি চলাচল ও ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ফোরলেনের কাজ সাময়িক বন্ধ রাখা।মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোহাম্মদ মাইনউদ্দিন জানান, ঈদে ঘরমুখো এবং ঈদ পরবর্তী কর্মজীবী মানুষ কর্মস্থলে যাতে নির্বিঘেœ পৌঁছাতে পারেন সেজন্য দশটি দিক মাথায় রেখে পুলিশসহ বেশ কয়েকটি সংস্থা কাজ করেছে।সেগুলো হলো ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে গোড়াই, পাকুল্যা ও এলেঙ্গাতে ১শ ৩৫জন রোভার স্কাউট সদস্য কাজ করছে। এরা তিন গ্রুুপে বিভক্ত হয়ে মহাসড়কের ওই স্থানে মানুষ পারাপারের জন্য কাজ করছে। এছাড়া পুলিশের ১৩টি মোটরসাইকেল টিম মহাসড়কে অনবরত টহলে দিচ্ছে। যানজটে ঘুমন্ত চালকদের এই টিমের সদস্যরা জাগিয়ে তুলে মহাসড়ক সচল রাখবে।অপরদিকে দুর্ঘটনা কবলিত বা বিকল যানবাহন সরিয়ে নিতে দুইটি রেকার ওদুইটি পেলুড়া মহাসড়কে রাখা হয়েছে।গতকাল থেকে মহাসড়কে ট্রাক ও লড়ি চলাচল এবং দশদিন আগে থেকে ফোরলেনের কাজ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।মহাসড়কের আশপাশে যেমন ধামরাই-নাগরপুর, সাটুরিয়া-লাউহাটি, গোড়াই- সখিপুর ও সাটুরিয়া-পাকুল্যা সড়ক বিকল্প হিসেবে ব্যবহারের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। বিকল্প সড়ক ব্যবহারে তাদের উৎসাহিত করা হচ্ছে।সড়ক ও জনপথ মির্জাপুর অফিসের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. নাজমূল ইসলাম খান বলেন, ঈদে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক সচল রাখতে কমপক্ষে ৪০টি পয়েন্টের খানাখন্দক সংস্কার করা হয়েছে। ‘আমাদের কয়েকটি টিম ঈদে মহাসড়ক যানজট মুক্ত রাখতে প্রতিনিয়ত মনিটরিং করবে’ বলে তিনি জানান।তাছারা ফোরলেন কাজের সম্পৃক্ত ঠিকাদার কোম্পানির লোকজনও তাদের সহযোগিতা করবেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।মির্জাপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ইনচার্জ আতাউর রহমান জানান, ঈদে ঢাকা- টাঙ্গাইল মহাসড়ক যাতে যানকট মুক্ত থাকে এবং কোনো প্রকার অঘটন ঘটলে সেখানে দ্রুত সেবা দিতে ফায়ার ব্রিগেডের সদস্যদের বিশেষভাবে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। মির্জাপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হুমায়ূন কবীর জানান, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক যানজট মুক্ত রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ দায়িত্ব পালন করছে। আমরা কয়েকটি ভাগে বিভক্ত হয়ে গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে কাজ করছি বলে তিনি জানান।

এ সম্পর্কিত আরও