উত্তরায় লিফট ছিঁড়ে আগুনের ঘটনায় মায়েশার মৃত্যু

প্রকাশিতঃ জুলাই ৮, ২০১৬ at ১২:৩৪ অপরাহ্ণ

full_1967999298_1467955874

রাজধানীর উত্তরা বহুতল বিপণিবিতানের লিফট ছিঁড়ে আগুন লাগার ঘটনায় শিশু মায়েশা (১০) মারা গেছে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ শুক্রবার সকাল সোয়া আটটার তার মৃত্যু হয়।

বার্ন ইউনিটের আবাসিক সার্জন পার্থশঙ্কর পাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মায়েশার শরীরের ৫৫ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল বলে চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন।

গত ২৪ জুন সন্ধ্যায় উত্তরার আলাউদ্দীন টাওয়ার শপিং কমপ্লেক্সে লিফট ছিঁড়ে আগুন লাগলে হতাহতের ঘটনা ঘটে। লিফট ছিঁড়ে ও আগুনে ছয়জনের মৃত্যুর খবর জানায় পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস।

এ ঘটনায় অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়। আগুনে দগ্ধ হওয়া চারজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়। এর মধ্যে একই পরিবারের তিনজন ছিল। বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন চারজনের মধ্যে মাহমুদুল ২৫ জুন ভোরে মারা যান। তিনি আবাসন প্রতিষ্ঠান ট্রপিক্যাল হোমসের উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) ছিলেন। মাহমুদুলের মেয়ে মায়েশা। তার ছেলে মুনতাকিনও (৮ মাস) বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন।

আলাউদ্দীন টাওয়ারের বেসমেন্ট ট্রপিক্যাল হোমসের একটি শাখা কার্যালয় রয়েছে। সেখানে আয়োজিত ইফতারে অংশ নিতে দুই সন্তানসহ এসেছিলেন মাহমুদুল। তারা কার্যালয়ের ভেতরে ছিলেন। ইফতারের আগে ওই ভবনে বিদ্যুৎ ছিল না। জেনারেটরে বিদ্যুতের ব্যবস্থা করা হয়। এ সময় লিফট ছিঁড়ে নিচে পড়ে যায় এবং বিকট শব্দ হয়। বেসমেন্ট এলাকায় আগুন ধরে গেলে দুই সন্তানসহ মাহমুদুল দগ্ধ হন।
ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশের রাজলক্ষ্মী কমপ্লেক্সের পেছনেই আলাউদ্দীন টাওয়ার শপিং কমপ্লেক্সের অবস্থান।

১৪ তলা ভবনটির ছয়তলা পর্যন্ত পোশাক, অলংকার, ইলেকট্রনিকস ও প্রসাধনীর দোকানপাট। ওপরের তলাগুলোতে বিভিন্ন অফিস। শপিং কমপ্লেক্সে প্রবেশমুখের দুই পাশে দুটো লিফট। এর মধ্যে বাঁ পাশের লিফটটি ছিঁড়ে নিচে পড়ে যায়।

এ সম্পর্কিত আরও