ঢাকা : ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, বৃহস্পতিবার, ৩:৪৭ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

আজ গণমানুষের ‘ইত্যাদি’

itadi

প্রতি বছরের মতো এবারও ঈদ আনন্দের সাথে দর্শকদের জন্য বাড়তি আনন্দ নিয়ে আসছে হানিফ সংকেতের ‘ইত্যাদি’। প্রতি ঈদেই থাকে ‘ইত্যাদি’র জমকালো আয়োজন এবং চমকানো সব বিষয়। দর্শকরাও অধীর আগ্রহে ঈদের সময় অপেক্ষা করেন ‘ইত্যাদি’ দেখার জন্য। কারণ কোনো নির্দিষ্ট বয়স বা শ্রেণীর জন্য নয়- সব বয়সী, সব শ্রেণী-পেশার মানুষের জন্যই ‘ইত্যাদি’। তাই তো বলা হয় শেকড়সন্ধানী ইত্যাদি। গণমানুষের ইত্যাদি।

স্টুডিওর চার দেয়ালের মধ্য থেকে অনুষ্ঠানকে বাইরে নিয়ে এসে আমাদের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সভ্যতা, সংস্কৃতি ও বিভিন্ন প্রত্নতাত্ত্বিক গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে গিয়ে ‘ইত্যাদি’ তার মূল অনুষ্ঠান ধারণ শুরু করেছে গত দুই যুগ ধরে। তবে নিয়মিত ‘ইত্যাদি’ ঢাকার বাইরে হলেও ঈদের ‘ইত্যাদি’ করা হয় ঢাকায়। কারণ এ সময়টা বর্ষাকাল, ফলে উন্মুক্ত স্থানে রাতে দর্শক নিয়ে অনুষ্ঠান করা ঝুঁকিপূর্ণ। তাই এবারো ঈদের ‘ইত্যাদি’ ধারণ করা হয়েছে মিরপুর শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে।

বরাবরের মতো এবারও একটি বিশাল সেটে কয়েক হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে ধারণ করা হয় ঈদের ‘ইত্যাদি’। ইনডোর স্টেডিয়ামের প্রায় তিন ভাগের এক ভাগ স্থানজুড়ে নির্মাণ করা হয়েছিল নান্দনিক সেট। বর্ণাঢ্য এই আয়োজনে পুরো অনুষ্ঠানটিতে এক উৎসবের আমেজ তৈরি হয়েছিল।

বরাবরের মতো এবারো ‘ইত্যাদি’ শুরু করা হয়েছে-‘ও মন রমজানের ঐ রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ’ এই গানটি দিয়ে। গান এক হলেও প্রতিবারের মতো এবারও রয়েছে শিল্পী নির্বাচন এবং চিত্রায়নে বৈচিত্র্য। গানটিতে অংশ নিয়েছেন ইত্যাদিতে প্রদর্শিত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী হেলাল মিয়ার শিল্পী পরিবার এবং তাদের নেতৃত্বে আরো শতাধিক দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিল্পী।

এবারের ঈদ ‘ইত্যাদি’তে একটি দেশাত্মবোধক গান গেয়েছেন শিল্পী অ্যান্ড্রু কিশোর। এবারের গানটি তৈরি করা হয়েছে নারী নির্যাতন, তরুণদের মূল্যবোধ ও শিশু অধিকার নিয়ে। আগামী প্রজন্মের জন্য এমন একটি দেশ আমরা রেখে যেতে চাই যার পরিবেশ হবে দূষণমুক্ত, নির্যাতনমুক্ত ও মাদকমুক্ত। এই ভাবধারায় লেখা গানটির প্রথম দুই লাইন হচ্ছে- ‘আমাদের ভালোবাসা, আমাদের দেশ-আমাদের ভালোবাসা, সুখী পরিবেশ…’। গানটি লিখেছেন খ্যাতিমান গীতিকার মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান এবং সুর করেছেন আলী আকবর রূপু। গানটির চিত্রায়নে অ্যান্ড্রু কিশোরের সাথে কোরিওগ্রাফি করেছেন ঢাকা ক্যান্ট গার্লস পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থী।

এবারের ঈদের একটি বিশেষ পর্ব হচ্ছে ৪ মিনিটের নাটক। যেখানে দেখা যাবে ভিনগ্রহের তিন মানবের এই পৃথিবী নামক গ্রহে আগমন ও ভিন্ন অভিজ্ঞতা নিয়ে ফিরে যাওয়া। ব্যতিক্রমী এই নাট্যাংশে অংশ নিয়েছেন অভিনেতা ও পরিচালক শহীদুজ্জামান সেলিম, মীর সাব্বির এবং মডেল-অভিনেতা ঈমন এবং একটি বিশেষ চরিত্রে অভিনয় করেছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়ক আলমগীর।

প্রতি ঈদের ইত্যাদির মতো এবারের ‘ইত্যাদি’তেও একটি ভিন্ন আঙ্গিকের নাচের আয়োজন রয়েছে। আর এতে অংশগ্রহণ করেছেন বিনোদন অঙ্গনের চার তারকাশিল্পী চিত্রনায়ক ফেরদৌস, চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা, মডেল অভিনেতা নোবেল ও অভিনেত্রী অপি করিম। তাদের সাথে রয়েছেন প্রায় অর্ধশত নৃত্যশিল্পী। নৃত্য পরিচালনা করেছেন ওয়াসেক।
ঈদ ‘ইত্যাদি’র নানা চমকের একটি হচ্ছে বিশেষ মিউজিক্যাল ড্রামা। ঈদের ছুটিতে বাড়িতে যাওয়ার বিড়ম্বনা এবং টেলিভিশনের মতো আমাদের দৈনন্দিন জীবনে রিমোটের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে দু’টি ভিন্ন মিউজিক্যাল ড্রামা করা হয়। একটিতে অভিনয় করেছেন জনপ্রিয় অভিনয় তারকা চঞ্চল চৌধুরী আর একটিতে অভিনেতা সাইদ বাবু। সাথে আরো অভিনয় করেছেন আব্দুল আজিজ, কাজী আসাদ, সুব্রত, রতন খান, রকিবুল আলম ও মুকুল সিরাজসহ আরো অনেকে।

শুধু ধারণস্থানের পরিবর্তনেই নয়- প্রায় দুই যুগ ধরে ‘ইত্যাদি’তে বিদেশী নাগরিকদের দিয়েও আমাদের লোকজ সংস্কৃতি, বিভিন্ন গ্রামীণ খেলাধুলা, ইতিহাস-ঐতিহ্যকে নিয়মিতভাবে তুলে ধরা হচ্ছে। গ্রামের সহজ-সরল মানুষের চরিত্রে অভিনয় করিয়ে তুলে ধরা হচ্ছে গ্রামীণ বিভিন্ন আচার-অনুষ্ঠান ও সমস্যা। বিদেশীদের নিয়ে এবারো রয়েছে তেমনি একটি ব্যতিক্রমী আয়োজন। এই পর্বটিতে সারা বিশ্বের নানা দেশের অর্ধ শতাধিক বিদেশী নাগরিক অংশগ্রহণ করেছেন। আর এবারের বিষয়বস্তু বাল্যবিবাহ। প্রতি ঈদের মতো এবারও রয়েছে ব্যাপক আয়োজনে বিষয়ভিত্তিক দলীয় সঙ্গীত। সাম্প্রতিক সময়ে আলোচিত কিছু বিষয় নিয়ে তৈরি এবারের দলীয় সঙ্গীতে অংশ নিয়েছেন ‘ইত্যাদি’র নিয়মিত নৃত্যশিল্পীরা। এই পর্বের নৃত্য পরিচালনা করেছেন মামুন।

প্রতিবারই ‘ইত্যাদি’র দর্শক নির্বাচনপ্রক্রিয়া থাকে ভিন্ন রকম। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। প্রতিটি দর্শকের হাতে একটি করে বর্ণাঢ্য উপকরণ দিয়ে সেখান থেকে বাছাই করা হয়েছে অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বের জন্য চারজন দর্শক। নির্বাচিত দর্শকদের সাথে পরবর্তী পর্বে অংশ নেন ফোকসম্রাজ্ঞী মমতাজ। তবে এবার ইত্যাদির দর্শকরা তাকে দেখবেন ভিন্নরূপে। গান নয়- অভিনয়ে। রয়েছে চার দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী বোনের ঈদ উদযাপন নিয়ে একটি বিশেষ প্রতিবেদন।মামার মানা সত্ত্বেও এবার ঈদেও মওসুমি ব্যবসায়ী ভাগ্নে নতুন ব্যবসার পরিকল্পনা করেছে। কী সেই ব্যবসা? আর ওদিকে নানী-নাতিকে এবার দেখা যাবে স্টুডিওতে দর্শকদের সামনে। নাতির টেলিভিশনে মোবাইল কোর্ট চাওয়া ও আরো অন্যান্য বিষয় তর্কবিতর্ক। ভাগ্নের ব্যবসা এবং নাতির তর্কবিতর্কের বিষয় সম্পর্কে জানতে হলে ঈদ পর্যন্ত অপেক্ষা করতেই হবে।

এ ছাড়া ঈদকে ঘিরে ডজনখানেক বিদ্রুপাত্মক রসালো নাট্যাংশ রয়েছে। সেলফি ভাইরাস ও সাবধানতা, ফেসবুকের লোড, ঈদের অনুষ্ঠান ও বাহারি পরিকল্পনা, দোরগোড়ায় ঈদের রান্না, মূল্যহ্রাস না মূল্যফাঁস? গানে গানে রোগীর চিকিৎসাসহ বিভিন্ন বিষয়ে আরো কয়েকটি নাট্যাংশ রয়েছে। ঈদ ‘ইত্যাদি’র উল্লেখযোগ্য শিল্পীরা হলেন- শাহরিয়ার নাজিম জয়, দিপা খন্দকার, এস এম মহসীন, সোলায়মান খোকা, জিয়াউল হাসান কিসলু, আব্দুল কাদের, আফজাল শরীফ, কামাল বায়েজিদ, জিল্লুর রহমান, শেলী আহসান, সুভাশিষ ভৌমিক, আমিন আজাদ, মামুনুল হক টুটু, নিসা, তারিক স্বপন, শামীম, জামিল, সজল, এমিলা, বিলু বড়ুয়া, আনোয়ার শাহী, অশোক বড়–য়া, তোহা, বিনয় ভদ্র, সাজ্জাদ সাজু, নজরুল ইসলাম ও আরো অনেকে। ‘ইত্যাদি’র শিল্পনির্দেশনা করেছেন যথারীতি মুকিমূল আনোয়ার মুকিম। পরিচালকের সহকারী হিসেবে ছিলেন রানা সরকার ও এম জি এ মামুন।

প্রতিবারের মতো এবারও ছোট পর্দার বড় আকর্ষণ থাকবে ‘ইত্যাদি’। ইত্যাদি রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত। নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন, স্পন্সর করেছে কেয়া কসমেটিকস লিমিটেড। ঈদের পরদিন রাত ১০টা ১০ মিনিটে। ‘ইত্যাদি’ একযোগে প্রচারিত হবে বিটিভি ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে-এ।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

টিভিতে আজকের চলচ্চিত্র : ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

কমান্ডার : অভিনয়ে সোহেল রানা, সুবর্ণা মুস্তাফা, ইলিয়াস কাঞ্চন। পরিচালক শহীদুল ইসলাম খোকন। সকাল ১০টা …

Mountain View