Mountain View

রেহাই পাননি মাশরাফিও

প্রকাশিতঃ জুলাই ১৪, ২০১৬ at ৩:৪৭ অপরাহ্ণ

রাজধানীর গুলশান ও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার মতো ঘটনা এড়াতে মিরপুরের শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। কেবল মূল ফটক দিয়েই গাড়ি প্রবেশ করতে পারবে এখন থেকে। অন্যদের জন্য রাখা হয়েছে পকেট গেট। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের(বিসিবি) কর্মকর্তা, সাংবাদিক এমনকি ক্রিকেটারদের গাড়িও চেকিংয়ের পর ঢোকানো হচ্ছে স্টেডিয়ামে।নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত আনসার বাহিনীর কর্মীদের চেকিং থেকে আজ বাদ যায়নি বাংলাদেশ ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা, বিসিবি’র গেম ডেভলপম্যান্ট কমিটির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদের গাড়িও। বিসিবি’র চিফ সিকিউরিটি কো-অর্ডিনেটর মোহাম্মদ আলি বলেন,
স্টেডিয়াম এলাকায় কোনো প্রকার অপ্রীতিকর
ঘটনা এড়াতেই জোরদার করা হয়েছে। এ ব্যবস্থা আগেও ছিল। কিন্তু মাঝে এটি অনুসরণ করা হয়নি।আজ (বুধবার) থেকে নিরাপত্তার ব্যপারে আমরা কঠোর হচ্ছি। এখন থেকে এভাবেই নিরাপত্তার ব্যাপারটি দেখা হবে। ক্রিকেটার-বিসিবি কমকর্তা-সাংবাদিক সবার নিরাপত্তার কথা ভেবেই এ ব্যবস্থা।
আগামী অক্টোবরে ঘরের মাঠে বাংলাদেশ-
ইংল্যান্ড সিরিজ। যে কোনো মূল্যেই সিরিজটি
আয়োজন করতে চাচ্ছে বিসিবি। তারই অংশ
হিসেবে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডকে
নিরাপত্তার ব্যাপারে আশ্বস্থ করতেই বিসিবি’র
এ ব্যবস্থা। সিরিজটির আগে বাংলাদেশের
নিরাপত্তা পরিস্থিতি দেখতে ইংল্যান্ডের
নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দলের বাংলাদেশ সফরের
কথা রয়েছে। ছয় বছর পর সিরিজটি খেলতে
বাংলাদেশ সফর করবে ইংলিশরা।
সূচিও চূড়ান্ত হয়ে গেছে। সিরিজ শুরু হতে এখনও বাকি প্রায় তিন মাস। তারপরও দেশের ক্রিকেটে সবচেয়ে আলোচিত বিষয় এই সিরিজ।
বাংলাদেশের সাম্প্রতিক অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সবার কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে।
গুলশানে সন্ত্রাসী হামলা সার্বিকভাবে বাংলাদেশের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তা বাড়াচ্ছে বিদেশীদের মাঝে।বাংলাদেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ইংলিশ অধিনায়ক ইয়োইন মরগান। তাই বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড আসন্ন সিরিজ নিয়ে ইতিবাচক-নেতিবাচক অনেক আলোচনাই হচ্ছে। তবে ইংল্যান্ড দলকে পূর্ণ নিরাপত্তা প্রদান ও সিরিজ আয়োজনের ব্যপারে আশাবাদী বিসিবি।

এ সম্পর্কিত আরও