সেনা অভ্যুত্থান রুখে দিল জনগণ

প্রকাশিতঃ জুলাই ১৬, ২০১৬ at ৭:২১ পূর্বাহ্ণ

Turkey

রাইহান রাহী, সিনিয়র রিপোর্টার, বিডি টুয়েন্টিফোর টাইমস: স্থানীয় সময় রাত ৮ টার পর আমেরিকা নির্বাসিত গুলেন মুভমেন্টের প্রধান মি: গুলেনের সমর্থিত সেনা সদস্যরা তুরুস্কে সেনা বিদ্রোহ শুরু করে। তারা আঙ্কারার প্রধান দুটি সেতু বন্ধ করে দেয়। শত শত ট্যাংক রাস্তায় নামিয়ে দেয়। বেশ কিছু জেট বিমান আকাশে চক্কর দেয়।

এদিকে নিরাপত্তার জন্য তরুস্ক প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানকে তার স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স মামারিস শহরে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যায়। আঙ্কারায় বেশ কয়েক ঘন্টা যাবৎ বিদ্রোহী সেনারা গুলি বর্ষন ও হামলা চালাতে থাকে। এদিকে সে হামলায় ১৭ জন পুলিশ নিহত হয়।

বিদ্রোহী সেনারা কয়েক টি টিভি চ্যানেল দখল করে নেয়। পুলিশ হেড কোয়ার্টার দখল করে। প্রেসিডেন্ট ভবনে হামলা চালায়। আঙ্কারা এয়ারপোর্ট দখল করে।

সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এখন ৩০ লক্ষ জনগণ প্রেসিডেন্ট এরদোগানের পক্ষ নিয়ে সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করে। ট্যাংক গুলো দখল করে নেয় জনগণ ও পুলিশ বাহিনী। শত শত সেনা সদস্য গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে নেভি ও সেনা কমান্ড প্রধান এই বিদ্রোহ কে অযুক্তিক ও দেশ দ্রোহী ঘোষণা করেছে। এবং সকল বিদ্রোহী সেনাদের গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছে।

এখন পর্যন্ত নিয়ন্ত্রণ সরকারের পক্ষে। প্রেসিডেন্টের পক্ষে লক্ষ লক্ষ জনগণ রাজ পথে নেমে অবস্থান নিচ্ছে। প্রায় সকল বিদ্রোহী সেনাদের গ্রেফতার করা হয়েছে।


এ সম্পর্কিত আরও