Mountain View

কাশ্মীরে বন্ধ করা হলো সকল সংবাদপত্র

প্রকাশিতঃ জুলাই ১৭, ২০১৬ at ১০:৪২ পূর্বাহ্ণ

2016_07_17_10_07_51_xPoyaVGHG5DdYYEOgn0xvj9WEfjWqJ_original

কাশ্মীরে এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে চলা অচলাবস্থায় এবার বন্ধ করা হলো একাধিক সংবাদপত্র। শনিবার মধ্যরাতে কাশ্মীরের বিভিন্ন এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে একাধিক উর্দু ও ইংরেজি সংবাদপত্র জব্ধ করে পুলিশ।

এরপরই দেশটিতে সবধরণের সংবাদপত্রের প্রকাশনা বন্ধ করে দেয় জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, শ্রীনগরের র‌্যানগ্রেথ ইন্ডাস্ট্রিয়াল এস্টেটে প্রথমে অভিযান চালায় পুলিশ ও সেনাবাহিনী। এরপর কাশ্মীরের স্থানীয় পত্রিকা ‘গ্রেটার কাশ্মীর’ এর প্রকাশনা বন্ধ করে দেওয়া হয়। তবে পত্রিকাটির অনলাইন ভার্সন এখনও খোলা রয়েছে। সেখানে জানানো হয় যে, তাদের প্রকাশনা বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ।

এছাড়া বাজেয়াপ্ত করা হয় ‘গ্রেটার কাশ্মীর’ সংবাদপত্রের কয়েকটি প্লেট ও ‘কাশ্মীর উজমা’ নামক পত্রিকার পঞ্চাশ হাজার কপি। এ সময় পুলিশ প্রকাশনা কর্মীদের গালাগালি এবং মারধরও করে বলে উল্লেখ করা হয়।

ছাপাখানা কে টি প্রেস-এর মালিক রাজা মহিউদ্দিন বলেন, তার ছাপাখানায় কাশ্মীরের ‘কাশ্মীর রিডার’, ‘কাশ্মীর টাইমস’, ‘কাশ্মীর অবজার্ভার’, ‘দ্য কাশ্মীর মনিটর’ নামক একাধিক সংবাদপত্র ছাপা হয়। তবে হঠাৎ করেই তাদের ছাপাখান বন্ধ করে দেয় পুলিশ এমনকি তাদের তিন জন কর্মীকেও গ্রেফতার করে।

জম্মু-কাশ্মীরের দশটি জেলায় এখনও জারি রয়েছে কারফিউ। আট দিনেও কাটেনি অচলাবস্থা। নিহত নেতা বুরহানের জন্মস্থান ত্রাল এখনও উত্তাল। প্রতিদিনই সেখানে বিক্ষোভ প্রদর্শন করছে জনগণ।

এছাড়াও কাশ্মীরের বিভিন্ন অঞ্চলে কারফিউ ভেঙে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে দেখা যায় স্থানীয় জনতাদের। এমন অবস্থায় দূর-দূরান্তের গ্রামেও কারফিউ জারি করা হয়েছে। বিচ্ছিন্ন রয়েছে টেলি যোগাযোগ।

এদিকে শনিবার কুপওয়ারা এলাকায় পুলিশ চেকপোস্টের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে প্রতিবাদী জনতা। সেখানে সেনা জওয়ানদের গুলিতে নিহত হন একজন। কুপওয়ারা ছাড়াও আরও কিছু এলাকা থেকে সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। চলমান সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪১ জনে।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View