বেড়েছে মাছ ও সবজির দাম

প্রকাশিতঃ জুলাই ২৩, ২০১৬ at ৯:৩০ পূর্বাহ্ণ

images_48576


ব্রয়লার মুরগির দামে নিম্নমুখী প্রবণতা অব্যাহত রয়েছে। শুক্রবার প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছে ১৩৫ থেকে ১৪০ টাকায়। আগের সপ্তাহে এটি ১৫০ টাকা দরে বিক্রি হয়। দুই সপ্তাহ আগে ব্রয়লার মুরগির দাম ছিল কেজিতে ১৭০ টাকা পর্যন্ত। সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে চিনির দাম। প্রতি কেজি চিনি শুক্রবার বিক্রি হয়েছে ৭০ থেকে ৭৫ টাকায়। সব জাতের মাছ ও সবজির দাম গেল সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে কেজিতে ৫ থেকে বেড়েছে মাছ

১০ টাকা। রাজধানীর কাঁঠালবাগান, হাতিরপুল, কারওয়ানবাজারসহ বেশ কয়েকটি কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে, ক্রেতা কম থাকলেও নিত্যপণ্য বিক্রি হচ্ছে বাড়তি দামে। প্রতি কেজি কাকরোল ৫০ টাকা, বেগুন ৫০ থেকে ৬০, কাঁচা কলা ১ হালি ৩০, পটোল ৪০ টাকা এবং কাঁচামরিচ প্রতি কেজি ৮০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে শুক্রবার। দেশি পেঁয়াজ ৪৫ থেকে ৪৮ টাকা দরে বিক্রি করছেন খুচরা দোকানিরা। মাছের বাজারে পর্যাপ্ত সরবরাহ দেখা গেলেও দাম ছিল বেশি। মাঝারি আকারের ইলিশের কেজি ৮০০ থেকে ১ হাজার টাকা পর্যন্ত। রুই ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে। নলা ১৮০ থেকে ২৫০, শিং ৫০০ থেকে ৮০০, চাষের কৈ ২০০ থেকে ২৫০ এবং ছোট মাছ ২০০ থেকে ৩০০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। বাজারে বেশির ভাগ মুদি পণ্যের দামে তেমন কোনো পরিবর্তন দেখা যায়নি। মুদি পণ্যের মধ্যে দেশি মসুর ডাল প্রতি কেজি ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা, আমদানি করা মোটা মসুর ডাল ১১০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। ভোজ্য তেলের মধ্যে খোলা সয়াবিন তেল প্রতি লিটার ৮৫ টাকা, সুপার ৭৫ টাকা, বোতলজাত সয়াবিন তেল প্রতি ৫ লিটারের বোতল পাওয়া যাচ্ছে ৪৪০ টাকা থেকে ৪৫০ টাকার মধ্যে। এছাড়া মানভেদে প্রতি কেজি খোলা সরিষার তেল ১২০ টাকা থেকে ১৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বাজারে আগের মতোই বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে গরু ও খাসির মাংস। গেল সপ্তাহে ১০ টাকা বেড়ে গরুর মাংস বিক্রি হয়েছে ৪৫০ টাকা। আর খাসির মাংস বিক্রি হয়েছে ৬৫০ টাকা কেজি দরে।

এ সম্পর্কিত আরও