Mountain View

খুনিদের সঙ্গে কোন ঐক্য নয়, ঐক্য হবে জনগণের সঙ্গে

প্রকাশিতঃ জুলাই ২৪, ২০১৬ at ৮:৪৭ অপরাহ্ণ

‘যারা পুলিশ, মসজিদের ইমাম, বিদেশি ও পুরোহিতদের খুন করতে পারে তাদের সঙ্গে কোন ঐক্য হতে পারে না, ঐক্য হবে জনগণের সঙ্গে।’ বলে জানিয়ে দিয়েছে ১৪ দলের মুখপাত্র, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। রোববার বিকেলে বগুড়ার ধুনটে ১৪দলের আয়োজনে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে এক প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।
মোহাম্মদ নাসিম গুলশান ও শোলাকিয়ায় ঈদগাহ্ মাঠে জঙ্গি হামলার সঙ্গে বিএনপি-জামায়াত জড়িত রয়েছে বলে অভিযোগ এনে বলেন, ‘বিগত দিনে আন্দোলনের নামে জ্বালাও পোড়াও করে মানুষ পুড়িয়ে নির্বাচন ঠেকাতে না পেরে তারা যে কোনভাবে শেখ হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে হটাতে চায়। এসব কিছুতে তারা ব্যর্থ হয়ে এখন বিদেশি হত্যা শুরু করেছে। যেসব বিদেশি আমাদের দেশে সাহায্য করতে চায় তাদের হত্যা করছে। মসজিদের ইমাম, পুলিশ এবং পুরোহিতসহ কাউকেই তারা রেহায় দিচ্ছে না। তারা সন্ত্রাসের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করতে চায়।’ তিনি বলেন, এভাবে মানুষ হত্যা করে বর্তমান সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরানো যাবে না। ২০১৯ সালের একদিন আগেও নির্বাচন হবে না।’ বিএনপিকে ২০১৯ সালের নির্বাচনে অংশগ্রহণের পরামর্শ দিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘বিএনপি এখন কোথাও নেই। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কারণে নেতা-কর্মীরা পালিয়ে বেড়াচ্ছে। খালেদা জিয়ার উদ্দ্যেশ্যে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, এখনও সময় আছে ২০১৯ সালের নির্বাচনের জন্য দল গোছান। যদি সেই নির্বাচনেও যদি অংশ না নেন তাহলে বিএনপি নামের কোন দলের অস্তিত্ব থাকবে না।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় ১৪ দলের নেতৃত্বে জঙ্গি ও সন্ত্রাস বিরোধী কমিটি গঠনের আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘ছাত্র-শিক্ষক, মসজিদের ইমাম, পুলিশসহ সব শ্রেণি পেশার মানুষকে নিয়ে কমিটি গঠন করতে হবে। তবে কমিটি যেন শুধু আওয়ামী লীগের কমিটি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এই কমিটি কাজ করবে আগামী ২০১৯ সালের সংসদ নির্বাচন পর্যন্ত। সবাইকে নিয়ে গঠিত কমিটির লোকজন পাড়া-মহল্লায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে কারা নিখোঁজ আছে তাদের ব্যাপারে খোঁজ খবর নিবে। সন্দেহভাজন কাউকে দেখলে তাকে পুলিশের হাতে সোপর্দ করবে।’
ধুনট এনইউ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক টিআইএম নূরুন্নবী তারিকের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাম্যবাদী দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সাবেক শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া, জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যকরি সভাপতি মইনুদ্দিন খান বাদল এমপি, বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান মজনু, বগুড়া-৫ আসনের এমপি হাবিবর রহমান, বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির আহবায়ক রেজাউর রশিদ খান, হিন্দু-বৈদ্ধ ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতা নিম চন্দ্র ভৌমিক, ন্যাপ কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য লুৎফর রহমান খান, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল খায়ের সিদ্দিক, গণআজাদি লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক আতাউল্লাহ্ খান, জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি আব্দুল হাই, ওয়ার্কাস পার্টির কেন্দ্রীয় নেত্রী সালেহা সুলতানা, গণতন্ত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য খায়রুল আলম, জেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক টি জামান নিকেতা, ধুনট উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাই খোকন, কাজিপুর উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান সিরাজি প্রমুখ।

এ সম্পর্কিত আরও