অভূত্থানে জড়িত গুলেনের জামাতাসহ ৩ সহযোগী আটক

প্রকাশিতঃ জুলাই ২৪, ২০১৬ at ১:৩১ অপরাহ্ণ

2016_07_24_10_50_04_N08SRMgHX2XKTkAB1c5qybDnWoHTcX_original

তুরস্কে ব্যর্থ সামরিক অভূত্থানে জড়িত সন্দেহে নির্বাসিত ধর্মীয় নেতা ফেতুল্লাহ গুলেনের জামাতা ও ভাতিজাসহ সহযোগীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সূত্র বিবিসি, সিএনএন ও  ডেইলি সাবা।

তুর্কি সংবাদ মাধ্যম আনাদোলুর বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, শনিবার গুলানের ঘনিষ্ঠ সহযোগী ও ডান হাত বলে পরিচিত হালিস হ্যান্সিকে আটক করেছে তুর্কি পুলিশ। শুক্রবারের অভ্যুত্থানে জড়িত থাকার অভিযোগে তাকে আটক করা হয়েছে। তুর্কি প্রেসিডেন্টের কার্যালয় থেকে এক সূত্র জানাচ্ছে, অভ্যুত্থানের মাত্র দুদিন আগে তুরস্কে প্রবেশ করেছিলেন ওই নেতা। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাসিত নেতা গুলানের জন্য নিয়মিত অর্থ পাঠাতের বলেও অভিযোগ রয়েছে।

এর আগে শনিবার সকালে গুলেনের ভাতিজা মুহাম্মেত সায়েত গুলেনকে দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় ইরজুরুন শহর থেকে আটক করে পুলিশ।  আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে রাজধানী আঙ্কারায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

অভ্যুত্থানে জড়িত থাকার সন্দেহে গুলানের জামাতা ও বিমান বাহিনী সাবেক প্রধান লেফট্যানেন্ট কর্নেল হাকান কারাকুসকেও আটক করা হয়েছে। তাকে রাজধানী আঙ্কারা থেকে আটক করা হয়েছে বলে তুর্কি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। তবে তাকে কবে আটক করা হয়েছে সে বিষয়ে কিছু জানায়নি তুর্কি সংবাদপত্র ডেইলি সাবা।

প্রেসিডেন্ট রেচেপ তায়েপ এরদোয়ান ব্যর্থ অভ্যুত্থান চেষ্টার ষড়যন্ত্রের জন্য তার একসময়কার কাছের লোক হিসেবে পরিচিত গুলেনকে অভিযুক্ত করে আসছেন। এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন গুলেন। তিনি উল্টো অভ্যুত্থানের জন্য প্রেসিডেন্টকে এরদোয়ানকে দায়ী করেছেন।

এর আগে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান গুলেনকে দেশে ফিরিয়ে দেয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি দাবি জানিয়েছিলেন। তবে নির্দিষ্ট প্রমাণ ছাড়া তাকে ফেরত দেয়া হবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে ওয়াশিংটন।

এ সম্পর্কিত আরও