Mountain View

দ্বিগুণ বাড়ল বিচারপতিদের বেতন-ভাতা : সংসদে বিল পাস

প্রকাশিতঃ জুলাই ২৬, ২০১৬ at ১১:৫০ অপরাহ্ণ

বিচারপতিদের বেতন-ভাতা দ্বিগুণ বৃদ্ধি সংক্রান্ত সুপ্রীম কোর্ট জাজেজ (রিমুনারেশন অ্যান্ড প্রিভিলিজেস) বিল-২০১৬ বিল জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে। জাজেজ রিম্যুনারশেন বিলে প্রধান বিচারপতি, আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতিদের বছরে একবার মূল বেতনের শতকরা ২০ ভাগ অর্থ বাংলা নববর্ষ ভাতা নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া আদালতের রায়ে টি বোর্ড অর্ডিন্যান্স বাতিল হয়ে যাওয়ায় চা শিল্পের সামগ্রিক উন্নয়নের জন্য বাংলাদেশ চা বোর্ড কর্তৃপক্ষ গঠন সংক্রান্ত চা আইন বিলটিও পাস করে সংসদ।
ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে সংসদের একাদশ অধিবেশনের মঙ্গলবারের বৈঠকে বিল দুটি পাস হয়। বিচারপতেদের ভাতা বৃদ্ধির বিলটি পাস করার প্রস্তাব করেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক। আর বাংলাদেশ চা বোর্ড কর্তৃপক্ষ গঠন সংক্রান্ত চা আইন বিল-২০১৬ পাস করার প্রস্তাব করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। এরআগে দুটি বিলের ওপর আনীত জনমত যাচাই ও সংশোধনী প্রস্তাবগুলো কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়।
বিলে প্রধান বিচারপতির বেতন ৫৬ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ১ লাখ ১০ হাজার টাকা, ব্যয় নিয়ামক ভাতা ৭ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ১২ হাজার টাকা, ডমেস্টিক এইট ভাতা ১ হাজার ৬২৫ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৫ হাজার টাকা, কার এলাউন্স ১৫ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ২৫ হাজার টাকা, অফিসিয়াল গাড়ি সরবরাহের পূর্ব পর্যন্ত ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার না করলে সেক্ষেত্রে ১ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ২ হাজার টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে।
আপিল বিভাগের বিচারপতিদের বেতন ৫৩ হাজার ১শ’ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ১ লাখ ৫ হাজার টাকা, ব্যয় নিয়ামক ভাতা ৫ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৮ হাজার টাকা, ডমেস্টিক এইট ভাতা ১ হাজার ৪৬৫ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৪ হাজার ৫শ’ টাকা, রেসিডেন্স এলাউন্স ২৬ হাজার ৬শ’ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৫০ হাজার ৬শ’ টাকা, কার এলাউন্স ১৫ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ২৫ হাজার টাকা, অফিসিয়াল গাড়ি সরবরাহের পূর্ব পর্যন্ত ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার না করলে সেক্ষেত্রে ১ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ২ হাজার টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে।
হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতিদের বেতন ৪৯ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৯৫ হাজার টাকা, ব্যয় নিয়ামক ভাতা ৩ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৫ হাজার টাকা, ডমেস্টিক এইট ভাতা ১ হাজার ৩শ’ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৪ হাজার টাকা, রেসিডেন্স এলাউন্স ২৬ হাজার ৬শ’ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৫০ হাজার ৬শ’ টাকা, কার এলাউন্স ১৫ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ২৫ হাজার টাকা, অফিসিয়াল গাড়ি সরবরাহের পূর্ব পর্যন্ত ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার না করলে সেক্ষেত্রে ১ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ২ হাজার টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে।
বিলের উদ্দেশ্য ও কারণ সম্বলিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রধান বিচারপতি, আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারকগণের বেতন ভাতাদি সুপ্রিম কোর্ট জাজেজ (রিম্যুনারেশন এন্ড প্রিবিলেজস) অর্ডিন্যান্স ১৯৭৮ দ্বারা নির্ধারিত হয়ে থাকে। বর্তমানে জীবনযাত্রার ব্যয় বৃদ্ধি, মূল্যস্ফিতি এবং দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থার প্রেক্ষাপটসহ সরকারি কর্মচারিদের জন্য ৮ম জাতীয় বেতন স্কেল ঘোষণা করার কারণে বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি, আপিল বিভাগ এবং হাইকোর্ট বিভাগের বিচারকগণের জন্য সময়োপযোগী বেতন-ভতাদি নির্ধারণ করা প্রয়োজন।
চা আইন বিল ২০১৬
চা আইন বিলে বলা হয়েছে, চা শিল্পের সামগ্রিক উন্নয়নের জন্য এ আইনের অধীনে বাংলাদেশ চা বোর্ড কর্তৃপক্ষ গঠন করা হবে। আইন অনুযায়ী ফৌজদারী কার্যবিধিতে যা কিছুই থাকুক না কেন, বোর্ড বা বোর্ড কর্তৃক ক্ষমতাপ্রাপ্ত কোন ব্যক্তির কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ ছাড়া কোন আদালত এ আইনের অধীনে কোন মামলা বিচারার্থে গ্রহণ করবে না। এছাড়া এ আইনের অধীন অপরাধসমূহ প্রথম শ্রেণির ম্যাজিস্ট্রেট বা ক্ষেত্রমত মেট্রোপলিটান ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বিচারের ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। এ আইনে ভিন্নরূপ যা কিছুই থাকুক না কেন, এ আইনের অধীন অপরাধসমূহ, যেক্ষেত্রে যতটুকু প্রয়োজ্য, মোবাইল কোর্ট আইন, ২০০৯  এর তফসিলভুক্ত হিসেবে বিচার করা যাবে।
বিলের উদ্দেশ্য কারণ সম্বলিত বিবৃতিতে বলা হয়, ১৯৮৬ সালের ১ মার্চ ‘দ্য টি (এমেন্ডমেন্ট) অর্ডিনেন্স, ১৯৮৬’ জারি করা হয়। কিন্তু পরে আদালতের রায়ের ফলে বিলের কার্যকারীতা লোপ পাওয়ায়, আইনের ধারবাহিকতা রক্ষার স্বার্থে জারিকৃত অধ্যাদেশকে আইনে পরিণত করতে চা আইন বিল ২০১৬ প্রণয়ন প্রয়োজন হয়।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View