Mountain View

পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডে শতভাগ পে-স্কেল কেন দেয়া হবে না জানতে চেয়ে রুল জারি

প্রকাশিতঃ জুলাই ২৬, ২০১৬ at ৯:৩৬ অপরাহ্ণ

এম জয় ই জসীম,সিনিয়র রিপোটার,বিডিটুয়েন্টিফোর টাইমস: বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের অধীন ৩য় ও ৪র্থ শ্রেনীর কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের সরকার ঘোষিত ১০০%  পে-স্কেল (বেতন কাঠামো) বাস্তবায়নের নির্দেশ কেন দেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এ মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত পে স্কেল আদায়ে মানববন্ধনের পক্ষে ছিলেন বা উপস্থিত ছিলেন তাদের বিরুদ্ধে হয়রানী, বদলী, সাময়ীক বরখাস্ত, বরখাস্ত সহ কোনরুপ শাস্তিমুলক ব্যাবস্থা নেওয়া যাবেনা এই মর্মে আদেশ জারী করেছেন হাইকোর্ট এবং কর্মচারী কর্মকর্তাদেরকে বেআইনিভাবে হয়রানি না করার নির্দেশও দিয়েছে আদালত।

এ বিষয়ে দায়ের করা এক রিট আবেদনের শুনানি করে বিচারপতি কামরুল ইসলাম সিদ্দিকী ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন।

আজ মঙ্গলবার আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার। সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট মতিলাল বেপারী।

বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের অধীনে সকল কর্মকর্তা কর্মচারীদের জন্য শতভাগ পে-স্কেল ঘোষণা করে সরকার। সরকার ঘোষিত পে-স্কেলের শতভাগ বন্টনের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন না করে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের গঠিত কমিটি বৈষম্যমূলকভাবে এটি বন্টন করে। এতে কোনো কোনো কর্মকর্তাকে ৮৬ ভাগ, কাউকে ৬৯ ভাগ আবার কাউকে দেয়া হয় ৬৮ ভাগ পে-স্কেল। এদের মধ্যে ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারীদেরকে ৫২ ভাগ ও ৪৬ ভাগ দেয়া হয়। যেটি বৈষম্যমূলক।

এই কর্মচারীরা হলেন সুইপার, মালি, অফিস পিয়ন, বাবুর্চি ও কেয়ারটেকার, শিক্ষানবীশ লাইনম্যান, গাড়ির ড্রাইভার, বিলিং সহকারী, সহকারী ক্যাশিয়ার, সহকারী স্টোর কিপার, ওয়ারিং পরিদর্শক, মিটার টেস্টার, লাইনম্যান গ্রেড-১ ও ২।

গত ২৮ জুন বাংলাদেশ পল্লীবিদ্যুতায়ন বোর্ডের সচিব মো: মাহবুবুল বাশার তাদের কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বিষয়ে পে-স্কেল ঘোষণা করেন।

এটি দেখে পরবর্তিতে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের কর্মচারীদের পক্ষ থেকে পল্লী বিদ্যুত সমিতির লাইনম্যান তারিকুল ইসলাম ও সোহেল রানা গত ২১ জুলাই হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করেন। সে রিটের শুনানি করে আজ আদালত এ আদেশ দেন।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View