Mountain View

বাংলাদেশে আমি খুব ভালো আছি

প্রকাশিতঃ জুলাই ২৭, ২০১৬ at ৩:৫৫ অপরাহ্ণ

bangladesh cricket team couch

গুলশানের হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলার পর থেকেই সাধারণ মানুষের সাথে সাথে ক্রিকেট জগতেও চলছে উৎকণ্ঠা। এর আগেও নিরাপত্তার অজুহাতে বাংলাদেশে আসতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দল, বিশ্বকাপে অংশ নেয়নি অস্ট্রেলিয়ার অনূর্ধ্ব-১৯ দলও। দক্ষিণ আফ্রিকার নারী দলও বাংলাদেশে আসতে অস্বীকৃতি জানায়। ইংল্যান্ড দলের আসন্ন সফর নিয়েও উঁকি দিচ্ছে একই শঙ্কা। জাতীয় দলের কোচ, ফিজিওরাও আসছেন না নির্ধারিত সময়ে। তবে এত উৎকণ্ঠার মাঝেও ব্যাতিক্রম দেখা যাচ্ছে শুধু একজনকে। তিনি কোরি বকিং।

নামে হয়তো তাকে একবারেই চেনা যাবে না। তবে তার কাজ দিয়ে তিনি তার জগতে মোটামুটি খ্যাতিমান। বাংলাদেশের হাইপারফরমেন্স দলের (এইচপি) ট্রেনার হিসেবে আছেন। এইচপির চুক্তিভিত্তিক ট্রেনারের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি বর্তমানে সিডনির পারফরম্যান্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের মহাব্যবস্থাপকের দায়িত্বেও আছেন এই অস্ট্রেলিয়ান। চারদিকের এই উৎকণ্ঠার মধ্যে এই  শ্বেতাঙ্গের মুখে যখন শোনা যায়, আমি ভালো আছি, তখন বাংলাদেশ ক্রিকেট স্বস্তি পেতেই পারে।

কখনো মূল স্টেডিয়ামে খেলোয়াড়দের ফুটবল খেলার সঙ্গী, কখনো বা তাকে ব্যস্ত দেখা যায় ফিটনেস ট্রেনিং করানোয়। ১৬ জুলাই ক্যাম্প শুরু হওয়ার পর গুলশানে ভাড়া নেওয়া ফ্ল্যাট থেকে প্রায় প্রতিদিনই মিরপুর স্টেডিয়ামে আসা-যাওয়া করছেন কোনো সমস্যা ছাড়াই। সোমবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বকিংয়ের বলেন, ‘আমার একদমই কোনো অস্বস্তি লাগছে না। বাংলাদেশে আমি খুব ভালো আছি। চিন্তিত হওয়ার মতো কিছু দেখছি না।’

তবে তার এই নিরাপদে ও স্বস্তিতে থাকার জন্য তিনি বাংলাদেশ ক্রিকে্ট বোর্ডকে ধন্যবাদ জানাতে ভুললেন না। তিনি বলেন, ‘যাদের হয়ে কাজ করছি, সেই বিসিবি খুবই ভালোভাবে আমার দেখাশোনা করছে। হয়তো সে জন্যই আমি এতটা স্বস্তিতে এবং নিরাপদে আছি। তারা যেভাবে বলছে, আমিও সেভাবেই চলছি।’

কথায় কথায় তিনি জানান, বাংলাদেশে এখন যে পরিস্থিতি, তার চেয়েও বাজে পরিস্থিতি দেখেছেন ভারতে। ২০০৮ সালে মুম্বাই হামলার সময় আহমেদাবাদে ছিলেন। সেই স্মৃতি মনে করে বকিং বলেন, ‘খুবই অস্বস্তি হচ্ছিল ওই সময়। ওরকম একটা আক্রমণের পর পরিস্থিতিটা খুব নাজুক হয়ে পড়েছিল। সবার মনে ছিল ভয়। দুর্ভাগ্যজনকভাবে এখানেও অনেকটা সে রকম ঘটনাই ঘটেছে।’

এ সম্পর্কিত আরও