ঢাকা : ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, শুক্রবার, ৭:৫৭ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

পাক ক্রিকেট ফুরিয়ে যায়নি : ইনজামাম

inziman

ইংল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট সিরিজে পাকিস্তানের ব্যাটিং ধস দেখে ক্রিকেটবিশ্ব অবাক। ৩৩০ রানের বড় পরাজয়ের পর প্রশ্ন উঠছে যে এবার কি তবে পতনের মুখে পাকিস্তান ক্রিকেট? পাক ক্রিকেট বোর্ড থেকে শুরু করে সমর্থকরা যখন ক্রিকেটারদের উপর চড়াও হয়েছেন তখন বিধ্বস্ত ক্রিকেটারদের পাশে দাঁড়ালেন পাক গ্রেট ইনজামাম। তিনি বললেন “এই ব্যাটিং দেখে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।”

এই বাজে পারফর্মেন্সের পর যখন সবাই পাকিস্তানের ক্রিকেটের পতন দেখে ফেলেছেন তখন এই সাবেক পাক লিজেন্ড সুরঙ্গের শেষ প্রান্তে দেখতে পাচ্ছেন আলোর রেখা। তার মতে, পাকিস্তান এখনও একটি শক্তিশালী টিম।

ইনজামামের ভাষায়, “আমরা হয়তো এই টেস্টে খুব বাজে ব্যাটিং করেছি। তবে আমি মনে করি এই পারফর্মর্মেন্স থেকে ব্যাটসম্যানরা শিক্ষা নিয়েছে যা তাদের ভবিষ্যতে কাজে লাগবে। গত ম্যাচে যা হবার হয়ে গেছে। এটা নিয়ে আতঙ্কিত হবার কিছু নেই। এই দলটিতে এমন অনেক তরুণ ক্রিকেটার আছেন যারা ইংল্যান্ডের কন্ডিশনে এর আগে খেলেনি। গত ম্যাচ থেকে তারা অভিজ্ঞতা নিয়েছে।”

“নিজেদের মাঠে কিংবা আরব আমিরাতের কোন মাঠে আমরা প্রতিটি বল খেলার চেষ্ঠা করি। কিন্তু ইংলিশ কন্ডিশনে শট খেলার জন্য আপনাকে সঠিক বলটি নির্বাচন করতে হবে। ইংলিশরা উপমহাদেশের স্পিন আক্রমণের বিরুদ্ধে যখন খেলতে পারে না তখন তারা এই কৌশলই গ্রহণ করে। আমাদের ক্রিকেটীয় বাজে সংস্কৃতি হলো একটু খারাপ খেললেই ক্রিকেটারদের উপর চড়াও হওয়া। কিন্তু এখন এই সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে এসে প্রয়োজন তরুণদের টেকনিক্যাল সমস্যাগুলো সমাধান করা।”

পাঁচশর বেশী আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা পাকিস্তানের এই সাবেক ব্যাটিং স্তম্ভ ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের প্রশংসা করতে ভুলেননি। পাক সমর্থকদের হতাশায় ডুবিয়ে অসাধারণ একটি বিজয় অর্জন করার জন্য অভিনন্দন জানিয়েছেন ইনজামাম। তিনি জো রুটের অসাধারণ ২৫৪ রান এবং দারুণ বোলিংয়ের উচছসিত প্রশংসা করেন।

দ্য বিগ ম্যান বলেন, “রুটের ব্যাটিং আমাকে অভিভূত করেছে। আমি তাকে খুব কাছ থেকে দেখেছি। সে একজন অসাধারণ ক্রিকেটার এবং প্রতিনিয়ত নিজেকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে। এভাবে যদি সে ব্যাট চালিয়ে যেতে পারে তবে ওর ভবিষ্যত নি:সন্দেহে উজ্জল।”

নিজের উত্তরাসূরী মিসবাহ-উল হকেরও যথাযোগ্য প্রশংসা করেছেন সাবেক পাক অধিনায়ক। তিনি বলেছেন “মিসবাহ বাকী ব্যাটসম্যানদের জন্য পথপ্রদর্শক। ও টিমের সবচেয়ে অভিজ্ঞ খেলোয়াড়। এই দলে আর অভিজ্ঞ বলতে আছেন ইউনিস খান। এই দুজনের পার্ফর্মেন্সই পাকিস্তানের সাফল্যের চাবিকাঠি।”

তবে পাক ক্রিকেটারদের যোগ্যতা প্রমাণ করতে লর্ডস টেস্ট জয়ের বিকল্প নেই বলে মনে করেন ইনজামাম। তার মতে, ইংল্যান্ডের মত একটি শক্তিশালী টিমের বিরুদ্ধে তাদের মাটিতে জিততে পারলেই সব সমালোচনার জবাব দেওয়া যাবে। উল্লেখ্য, আগস্টের ৩ তারিখ থেকে চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজের তৃতীয় ম্যাচটি শুরু হবে।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

স্মিথদের বাংলাদেশ সফরে আসা নিয়ে যা লিখলো টেলিগ্রাফ

স্পোর্টস ডেস্ক: জমছে নাকি বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট লড়াই। এর নানা খবর অস্ট্রেলিয়ার প্রভাবশালী দৈনিক …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *