ঢাকা : ২১ জুলাই, ২০১৭, শুক্রবার, ৪:৩৬ পূর্বাহ্ণ
সর্বশেষ
আদিলুর রহমান খানকে দেশে ফেরত পাঠিয়েছে মালয়েশিয়া ০৯৬১১০০০৯৯৯ নম্বরে ফোন করলেই বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা শাহবাগে শিক্ষার্থীদের কর্মসূচিতে পুলিশের টিয়ারশেল-লাঠিচার্জ এবার চূড়ান্ত হল ঢাবির অধিভুক্ত ৭ কলেজের পরীক্ষা অদম্য মেধাবী হাফিজুরের লেখাপড়ার দায়িত্ব নিলো ছাত্রলীগ রাজধানীতে গলায় ফাঁস দিয়ে ঢাবি শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা স্বাস্থ্য সেবায় শীর্ষে বগুড়ার জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল শাহবাগে সাত সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ বিরল রোগে আক্রান্ত মুক্তামনির শারীরিক অবস্থার হঠাৎ অবনতি বাংলাদেশ মাছ উৎপাদনে বিশ্বের ৪র্থ স্থান অর্জন করেছে||ডাঃ আ ফ ম রুহুল হক এমপি
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

আইপিএল-বিপিএলের প্রতিদ্বন্দ্বী আনছে ইংল্যান্ড

ipl

ক্রিকেটে দিন বদলের গল্পটা অনেকদিনের। আর টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট দিয়ে বড় একটা পরিবর্তন এনেছিল খেলাটির জন্মদাতা দেশ ইংল্যান্ড। তবে, এতদিন ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক বানিজ্য নির্ভর টি-টোয়েন্ট টুর্নামেন্টের কোনো জায়গা ছিল না ইংল্যান্ডের ক্রিকেট কাঠামোয়।

তবে, এবার ক্রিকেটের আধুনিকায়ন, বিশ্বায়ন ও বানিজ্যিক দিক মাথায় রেখে সেই অচলায়তন ভাঙতে চলেছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। অস্ট্রেলিয়ার বিগব্যাশ, ভারতের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) কিংবা বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল), ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (সিপিএল), পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) মত ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট এবার দেখা যাবে ইংল্যান্ডেও।

ইংলিশ কাউন্টি ক্রিকেট তার আগের সৌন্দর্য্য ও তুমুল দর্শকপ্রিয়তা হারিয়েছে অনেকদিন হল। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের আলাদা চললেও সেটা আইপিএল-বিপিএল কিংবা বিগ ব্যাশের মত জনপ্রিয় নয়। সেদিক থেকে ইসিবির হাত ধরে শিগগিরই এই টুর্নামেন্টগুলোর প্রতিদ্বন্দ্বীর আবির্ভাব ঘটতে যাচ্ছে।

মূল পরিকল্পনা হল – ইংল্যান্ডে শহরভিত্তিক নতুন টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আয়োজন। টুর্নামেন্টের কোন নির্দিষ্ট নাম ঠিক না হলেও ২০১৮ সাল নাগাদ টুর্নামেন্টটি মাঠে গড়ানোর পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে ইসিবি। এছাড়া এই টুর্নামেন্ট দিয়ে কাউন্টি ক্রিকেটে আমূল পরিবর্তন আনতে চাচ্ছে ইংলিশরা। ইংল্যান্ডে প্রচলিত টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টগুলোর সাথে এর বড় পার্থক্য হল এখানে কাউন্টি দলগুলোর মালিকানার পরিমান কমে যাচ্ছে।

মূলত মালিকানা থাকবে সম্প্রচারকারী প্রতিষ্ঠানের হাতে। খেলোয়াড়দের বেচাকেনা হবে নিলামের মধ্য দিয়ে। গত মাসখানেক ধরে ইসিবির একদল চৌকস কর্মকর্তা এই টুর্নামেন্টটি নিয়ে কাজ করছেন। আর এই মুহূর্তে তারা টাইটেল স্পন্সরশিপের জন্য কোনো প্রতিষ্ঠান খুঁজতে ব্যস্ত।

দেশটির বোর্ড কর্মকর্তাদের একটি দল মাসখানেক ধরে টুর্নামেন্ট আয়োজনের লক্ষে কাজ করে যাচ্ছেন। তারা নতুন টুর্নামেন্টের একটি কাঠামো গঠন করে দলগুলোর সাথে ইতোমধ্যেই যোগাযোগ শুরু করেছেন। যেখানে মূলত নতুন পরিচয়ে এবং নতুন দল হিসেবে তারা ওই টুর্নামেন্টে আত্মপ্রকাশ করবে। বোর্ডের এই প্রস্তাবে দলগুলো রাজি হলে টুর্নামেন্টের সম্প্রচার স্বত্ত্ব বিক্রি নিয়ে কাজ শুরু করবে।

এদিকে কাউন্টির পাশাপাশি গ্রীষ্ম মৌসুমে নতুন টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে ইসিবি। চার সপ্তাহের মধ্যে সম্পূর্ণ টুর্নামেন্ট সম্পন্ন করার কথাও জানানো হয়েছে বোর্ডের পক্ষ থেকে। এছাড়া নির্ধারিত সময়ের মধ্যে টুর্নামেন্ট শেষ করতে প্রয়োজনে ভেন্যু বাড়ানোর কথা ভাবছে আয়োজকরা। এজন্য দরকার হলে নতুন ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচ।

অন্যদিকে টুর্নামেন্টকে জনপ্রিয় করতে ও ম্যাচে দর্শক সমাগম বাড়াতে ম্যাচের টিকেট আরও সহজলভ্য ও সুলভমূল্য করার সুপারিশ করা হয়েছে আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে। আর এই প্রস্তাব বিবেচনায় রেখেই কাজ করছে ইসিবি।

এ সম্পর্কিত আরও

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Comment moderation is enabled. Your comment may take some time to appear.