Mountain View

নিহত জঙ্গি আব্দুল্লাহ’র মুখ দেখতে চান না তার মা

প্রকাশিতঃ জুলাই ২৮, ২০১৬ at ৭:২৫ অপরাহ্ণ

die

মোঃ আরিফ জাওয়াদ, দিনাজপুর: রাজধানীর কল্যাণপুরে ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযানে ৯ জন ‘জঙ্গি’র মধ্যে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার দাউদপুর ইউপি’র বল্লভপুর গ্রামের বাসিন্দা আবদুল্লাহ’র (২৮) লাশ গ্রহণ করতে চান না তার পরিবার। নিহত ‘জঙ্গি’ ওই এলাকার রাজমিস্ত্রী সোহরাব আলীর (৬৫) পাঁচ ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে আব্দুল্লাহ চতুর্থ।

জানা যায়, আব্দুল্লাহ ঐ গ্রুপের ছিলেন ধর্মীয় গৃহশিক্ষক ; অন্যান্যদের মগজ ধোলাই করা ছিল তার কাজ। সংবাদ শুনে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন তার মা  নিহত ‘জঙ্গি’র মা মোসলেমা খাতুন জানায়, ২৭ই জুলাই (বুধবার) সকালে র্যাব এর একটি বিশেষ দল বাড়িতে আসার পর আব্দুল্লাহ নিহত হওয়ার খবর পাই।

তার জানা ছিল না তার সন্তান বিপথে পা বাড়াচ্ছিল এমন সন্তানের মুখ দেখতে চান না তিনি। এ দিকে তার ভাই আবুল কালাম জানায়, জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার বল্লভপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫ম শ্রেনী পর্যন্ত লেখাপড়া শেষে জেলার হাকিমপুর উপজেলার (হিলি) আজিজিয়া আনওয়ারুল উলুম মাদ্রাসায় ভর্তি হয়।

সেখানে এক বছর পড়ার পর নওগাঁর সাপাহারের একটি মাদ্রাসায় পড়তে যায় আবদুল্লাহ। সেখানে বছর দু-এক দাওরা পড়ার পর নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ উপজেলার কাজিরবাগ মাদ্রাসা থেকে ২০১০ সালে জিপিএ-৫ নিয়ে দাখিল এবং ২০১২ সালে আলিম কৃতিত্বের সাথে পাশ করে আলিম। এর পর এক বছর আর বাসায় আসেনি। তবে আগামী ঈদুল-আযহা’য় বাড়ি আসার কথা ছিল তার।

বড় ভাই নূরুল ইসলামের বরাত দিয়ে কালাম আরো জানান, মাঝে মাঝে বিভিন্ন নম্বর থেকে মোবাইল ফোন করে জানায়, রূপগঞ্জে দেবই কাজিরবাদ আলিম মাদ্রাসাতেই সে ফাজিল পড়ছে। গেল এক সপ্তাহ আগেই আব্দুল্লাহ’র সাথে কথা হয়। জানা যায়, কাজিরবাদ ওই মাদ্রাসায় ফাজিলে পড়ার কোন সুযোগ নেই। আলিম পর্যন্তই পড়া-লেখা হয় সেখানে। পরিবারের চোখে ফাঁকি দিয়েই এভাবে জঙ্গিতে পরিণত হয় আবদুল্লাহ।

সনদ অনুযায়ী আব্দুল্লাহ’র জন্ম ১৯৯৩ সালের ১৫ই জানুয়ারি। আব্দুল্লাহ’র শিক্ষক ও বল্লভপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নৈয়ম উদ্দিন জানান, “ছোট থেকেই তার আদব-কায়দা ভাল ছিল তার, তবে মাদ্রাসায় ভর্তির পর থেকেই ধীরে ধীরে তার আচরণ কিছুটা পরিবর্তন হতে থাকে।

ইসলামকে নিয়ে তার উগ্র আচরণ করত স্থানীয়দের সাথে।” এ দিকে আবদুল্লাহ সহ বেশ কয়েকজন তরুণ একত্রে জামাআত করে নামায পড়তেন। তাছাড়া মধ্যপ্রাচ্যের দেশের সাথে মিল রেখে ঈদ ও রোযা করত, বলে জানান স্থানীয়রা। তারা ধারণা করছেন মাদ্রাসার শিক্ষায় তাকে জঙ্গিবাদে পরিণত করেছে।

এ দিকে আব্দুল্লাহ’র বাবা সোহবার আলী ও বড় ভাই নূরুল ইসলামকে ডিএনএ মিলানোর জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে, বলে জানিয়েছে নবাবগঞ্জ থানা পুলিশ। উল্লেখ্য এই যে, ২৬ই জুলাই (মঙ্গলবার) ভোরে রাজধানীর কল্যাণপুর বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন ৫ নম্বর সড়কে জাহাজ বিল্ডিং নামের ওই ভবনে থাকা ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযানে ৯ জন ‘জঙ্গি’ নিহত হয় ; সেই সঙ্গে একজনকে আহত অবস্থায় আটক করা হয় এবং অন্যজন পালিয়ে যায়।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View