Mountain View

টুপি নামাজের সুন্নত

প্রকাশিতঃ জুলাই ২৯, ২০১৬ at ১১:৩০ পূর্বাহ্ণ

top


টুপি ইসলামের ঐতিহ্যের অংশ, মুসলিম পরিচয়ের অংশ। নামাজে ও নামাজের বাইরে টুপি ব্যবহার করার নিরবচ্ছিন্ন ধারাবাহিকতা চলে আসছে মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ও তার সাহাবাদের যুগ থেকে। কিন্তু অত্যন্ত আক্ষেপ ও পরিতাপের বিষয় হলো, আধুনিককালের অতি গবেষক প্রকৃতির কিছু মানুষ সহিহ হাদিসে খুঁজে বেড়ান, কোথাও নামাজে টুপি পরার কথা বলা হয়েছে কি-না। সহিহ হাদিসের উক্তিতে নামাজে টুপি পরার কথা না পেয়ে তারা সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন- টুপি নামাজের অংশ নয়। অথচ সবকিছুর সমাধান সহিহ হাদিসের উক্তিতে হয় না।
মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ও তার সাহাবিদের যুগের সবাই টুপিকে সামাজিক স্ট্যান্ডার্ড পোশাকের অংশ মনে করতেন। তাই কারও ঘরে টুপি থাকলে তিনি খালি মাথায় বাইরেই বের হতেন না। খালি মাথায় বের হতে তারা লজ্জা অনুভব করতেন। এই যখন সামাজিক পরিস্থিতি, মহানবীর দেখাদেখি সবাই গুরুত্বের সঙ্গে টুপি মাথায় দেন। তাহলে সেই পরিস্থিতিতে রাসূল কেন বলতে যাবেন- টুপি পরে নামাজ পড়? অথবা কেন বলতে যাবেন- টুপি ছাড়া নামাজ দোষণীয়? অনেকেই আরও হাস্যকর যুক্তি দাঁড় করান। তারা বলেন, আরবের ঐতিহ্য হলো টুপি। তাই রাসূল ও সাহাবিরা টুপি পরতেন। এটা ইসলামের অংশ নয়। এটা আঞ্চলিকতার অংশ। এ উদ্ভট যুক্তি মেনে নিলে ইসলামের অনেক কিছুই ইসলাম থেকে বের হয়ে যাবে। মক্কা-মদিনাও ইসলামের কোনো অংশ থাকবে না। কেননা, এটা আরবের এলাকামাত্র। মহানবী ও সাহাবাদের পৈতৃক ভূমি। তাদের পৈতৃক ভূমি কেন ইসলাম হবে? আরবি ভাষাও ইসলামের কোনো অংশ থাকবে না। কেননা, এটাও তো আরবের স্থানীয় ভাষা। মহানবী ও সাহাবাদের আঞ্চলিক ভাষা ইসলামের অংশ হবে কেন? সাহাবিরা অন্য ভাষা বুঝতেন না; তাই কোরআন আরবিতে নাজিল হয়েছে- এর বেশি কিছু নয়। কিন্তু আমাদের বুঝতে হবে, এ ধরনের যুক্তি বিভ্রান্তির চোরাপথ খুলে দেয়। কেননা, আরবের যেসব প্রচলন ইসলামের বিপরীত, কোরআন-হাদিসে সেগুলোকে সুস্পষ্ট ভাষায় খণ্ডন করা হয়েছে; প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। এর অনেক উদাহরণ কোরআন-হাদিসে আছে। আর আরবের যেসব প্রচলন কোরআন-হাদিসে প্রত্যাখ্যান করা হয়নি, বরং রাসূল ও সাহবারা অনুসরণ করেছেন, সেগুলো দুনিয়াবি কাজ হলেও তা ইসলামের অংশ। মহানবীর আবির্ভাবের পর থেকে তা আর আমাদের কাছে নিছক আরবের প্রথা নয়। সেসব আরব প্রথাই এখন আমাদের জন্য ইসলাম।
মহান আল্লাহ আদেশ করেছেন- ‘হে আদম সন্তান! প্রত্যেক নামাজের সময় সাজসজ্জা গ্রহণ কর।’ -সূরা আরাফ :৩১
টুপি পূর্ণাঙ্গ সাজসজ্জার অংশ। তাই অনেক মুফাসসির এ আয়াতের আলোকে মন্তব্য করেছেন, টুপি মাথায় নামাজ পড়া মোস্তাহাব। খালি মাথায় নামাজ পড়া মাকরূহ। ইমাম বোখারি তার সহিহ বোখারিতে বিখ্যাত তাবেয়ি হজরত হাসান বসরির (রহ.) উক্তি উল্লেখ করেছেন, ‘সাহাবারা গরমের দিনে টুপি বা পাগড়ির ওপর সেজদা করতেন।’ এ থেকে পরিষ্কার বুঝে আসে, সাহাবারা নামাজে মাথায় টুপি ব্যবহার করতেন।

এ সম্পর্কিত আরও