বজ্রপাতে চার জেলায় ১০ জনের মৃত্যু

প্রকাশিতঃ জুলাই ২৯, ২০১৬ at ৮:৪১ অপরাহ্ণ

bojro


চার জেলায় বৃষ্টির সময়ে বজ্রপাতে দুই শিশুসহ ১০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে রংপুরে ছয়, শেরপুরে দুই, গাইবান্ধা ও লক্ষ্মীপুরে একজন করে রয়েছে।

বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার পৃথক সময়ে বজ্রপাতের এ ঘটনা ঘটে

রংপুর: জেলার পীরগাছা ও কাউনিয়ায় বজ্রপাতে দুই শিশুসহ চার জনের মৃত্যু হয়েছে।
শুক্রবার কল্যাণি ও কুর্শা ইউনিয়নে বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।

পীরগাছা থানার ওসি আমিনুল ইসলাম জানান, দুপুরে কল্যাণি ইউনিয়নের বিহারি গ্রামের বাদল চন্দ্র বর্মণের ছেলে বিজয় চন্দ্র্র বর্মণ (৮) ও তার চাচাত ভাই দীলিপ চন্দ্র বর্মণের ছেলে পরিতোষ চন্দ্র বর্মণ (১২) বজ্রপাতে আহত হয়। তাদের মাহিগঞ্জ বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

পরিতোষ বিহারি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ শ্রেণি ও বিজয় একই বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী।
কাউনিয়া থানার ওসি আবদুল কাদের জিলানী জানান, কাউনিয়ার কুর্শা ইউনিয়নের গোপাল গ্রামে কৃষক মনিরুজ্জামান মিয়া (৬০) ও একই এলাকার সবুর মিয়ার ছেলে শাকিল মিয়া(১৬) বজ্রপাতে আহত হন। তাদের কাউনিয়া স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে পীরগঞ্জে বজ্রপাতে আবদুর রাজ্জাক ও সুমন মিয়া নামে দুজন মারা যান।

শেরপুর: জেলায় পৃথক বজ্রপাতে দুই কৃষক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার পৃথক সময়ে বজ্রপাতের এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা জানায়, দুপুরে নালিতাবাড়ী উপজেলার উত্তর কালিনগর গ্রামে জমি চাষ করার সময় বজ্রপাতে মিয়া হোসেন (৪৫) নামে এক কৃষক ঘটনাস্থলেই নিহত হন। তিনি ওই গ্রামের মৃত হামিদ আলীর ছেলে।
এদিকে একই সময় শেরপুর সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর দড়িপাড়া গ্রামে জোসনা (৫০) বজ্রপাতে নিহত হন।

শেরপুরের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার খন্দকার লাবনী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গাইবান্ধা: জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার তালুককানুপুর ইউনিয়নের নুনদহ সমসপাড়া গ্রামে বজ্রপাতে শরিফুল ইসলাম (৩০) নামে এক কৃষক বজ্রপাতে মারা গেছেন।শুক্রবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা জানায়, দুপুরে শরিফুল জমিতে কাজ করছিল। এ সময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলে তিনি মারা যান।

তালুককানুপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আতিকুর রহমান আতিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

লক্ষ্মীপুর: সদর উপজেলার চররুহিতা ইউনিয়নের চরমণ্ডল এলাকায় বজ্রপাতে সজিব হোসেন নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। ইছমাইল হোসেন নামে একজন আহত হয়েছেন।শুক্রবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, সকালে ইছমাইল হোসেন ও তার ভাগিনা সজিব হোসেন জমিতে কাজ করছিল। এ সময় বজ্রপাতে তারা দুই জন আহত হন। তাদের লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে আনার পথে সজিব হোসেন মারা যান।
সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আনোয়ার হোসেন জানান, আহত ইছমাইলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সদর থানার ওসি মো. আবদুল্লাহ আল মামুন ভূইয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ সম্পর্কিত আরও