হাজার হাজার ব্যাচেলর কোথায় থাকবেন?

প্রকাশিতঃ জুলাই ২৯, ২০১৬ at ৯:৫৪ অপরাহ্ণ

bach


রাজধানীতে অনেক বাড়িতেই ব্যাচেলরদের বাড়ি ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছেন মালিকরা। অনেক এলাকায় বাড়ি মালিক সমিতির পক্ষ থেকে কোনও বাড়িতেই ব্যাচেলরদের ভাড়া দেওয়া হবে না বলেও ঘোষণা দিয়েছে। ফলে নতুন করে আবাসন সংকটে পড়েছেন ব্যাচেলররা। রাজধানীতে পড়তে আসা, চাকরিরসহ নানা কারণে আসা হাজার হাজার ব্যাচেলর কোথায় থাকবেন? এমন প্রশ্ন এখন রাজধানীতে বসবাসকারী বেশিরভাগ ব্যাচেলরের।

সর্বশেষ মঙ্গলবার রাজধানীর কল্যাণপুরের পাঁচ নম্বর সড়কের ৫৩ নম্বর বাড়ির মেসে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানে নয় ‘জঙ্গি’ নিহত হয়। গুলশান ও শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার অপরাধীরাও বিভিন্ন সময়ে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ব্যাচেলর বাসায় থাকত। এছাড়া, আগেও বিভিন্ন অভিযানে ধরা পড়া অনেক অপরাধী মেস বাসায় থাকত বলে জানিয়েছে পুলিশ। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে মিথ্যা তথ্য দিয়ে ব্যাচেলর বাসা ভাড়া নিতো অপরাধীরা। জঙ্গি আস্তানা হিসেবেও ব্যবহার হচ্ছে ব্যাচেলরদের মেস বাসা।

জানা গেছে, রাজধানীর কল্যাণপুরে আর ব্যাচেলরদের বাসা ভাড়া দেবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে কল্যাণপুরের বাড়ি মালিক সমিতি। দ্রত ব্যাচেলর ভাড়াটিয়াদের নোটিশ করতেও বলা হয়েছে বাড়ির মালিকদের। রাজধানীর পল্লবীতে স্থানীয় সংসদ সদস্য ব্যাচেলরদের বাসা ভাড়া দিতে নিষেধ করেছেন । বিভিন্ন এলাকার অনেক ব্যাচেলর জানিয়েছেন, বাড়ির মালিক বাসা ছেড়ে দিতে বলেছেন।
কল্যাণপুরে বাড়ি মালিকদের সমাজ কল্যাণ সমিতির সভাপতি মাহবুবুর রহমান রতন বলেন, এলাকার বাড়ির মালিকদের সঙ্গে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, কল্যাণপুর এলাকায় আর কোনও ব্যাচেলরকে বাসা ভাড়া দেওয়া হবে না। যারা আছেন তাদের দ্রুত বাসা ছেড়ে দিতেও বলা হয়েছে।
একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েন মুজাহিদুল ইসলাম। সাত সহপাঠী মিলে কল্যাণপুরের একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন তারা। মুজাহিদ জানান, বাড়ির মালিক এক মাসের মধ্যে বাসা ছেড়ে দিতে বলেছেন। শুনেছি, এই এলাকার কোনও বাড়িতে আর ব্যাচেলরদের বাড়ি ভাড়া দেওয়া হবে না। চিন্তায় আছি কোথায় বাসা খুঁজবো।
রাজধানীর উত্তরার ১৪ নম্বর সেক্টরে কয়েকদিন ঘুরে খোঁজ করেও ব্যাচেলর বাসা না পাওয়ার কথা জানালেন মিজানুর রহমান। তিনি বলেন, আগের বাসা ছেড়ে দিতে বলেছেন বাড়িওয়ালা। দুদিন ধরে খুঁজছি, কিন্তু নতুন বাসা পাচ্ছি না।

রাজধানীর মিরপুরের একটি বাড়ি ব্যাচেলরদের কাছে ভাড়া দিতেন ওয়াহিদুল আহমেদ। সম্প্রতি ব্যাচেলর ভাড়াটেদের বাসা ছাড়ার নোটিশ দিয়েছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে ওয়াহিদুল আহমেদ বলেন, ব্যাচেলরদের বাসা ভাড়া দেওয়ায় নানা ধরনের ঝামেলা হচ্ছে । এজন্য তাদেরকে বাসা ছেড়ে দেওয়ার নোটিশ দিয়েছি।
দক্ষিণ বনশ্রীর ল- ব্লকের এক বাসিন্দা ফুজায়েল জানান, আমি যে বাড়িতে থাকি তার উপরের একটি ফ্লাটে ব্যাচেলর কিছু ছেলে থাকত। মঙ্গলবার কল্যাণপুরের জঙ্গি আস্তানায় ‍পুলিশি অভিযানের দিনই বাড়ির মালিক তাদের বাসা ছেড়ে দিতে বাধ্য করেন। ছেলেগুলো কাঁদতে কাঁদতে বাসা ছেড়ে গেছে। নতুন বাসা পাওয়া পর্যন্ত সময় চাইলেও বাড়ির মালিক তাদের অনুরোধ রাখেননি।
ঢাকা মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম ) মাসুদুর রহমান বলেন, ভাড়াটিয়াদের তথ্য সঠিকভাবে সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে। এর মাধ্যমে বাড়ির মালিক যেমন নিরাপদে থাকবেন, তেমনি অন্যরাও নিরাপদে থাকবেন। যাকেই বাসা ভাড়া দেওয়া হোক না কেন, ভাড়াটিয়াদের সঠিক ও বিস্তারিত তথ্য থানায় জমা দিলে পুলিশের পক্ষে অপরাধীদের শনাক্ত করতে সহায়ক হয়।

এ সম্পর্কিত আরও