ঢাকা : ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, বুধবার, ২:০১ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

আশুগঞ্জ বাখরাবাদ গ্যাস লাইন প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ছে

ggg


আশুগঞ্জ থেকে বাখরাবাদ পর্যন্ত গ্যাস সরবরাহ লাইন শক্তিশালী করতে প্রকল্পে ঋণ সহায়তা বাতিল করেছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। ২০০৯ সালে নেয়া প্রকল্পটিতে ৩৩৪ কোটি ৭১ লাখ টাকা দেয়ার প্রতিশ্রুতি ছিল সংস্থাটি। ২০১২ সালে প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল। নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ না হওয়ায় প্রকল্পটির সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে কয়েকবার। বাস্তবায়নে ধীরগতির কারণে প্রতিশ্রুত সহায়তা প্রত্যাহার করে এডিবি।
সরকারের নিজস্ব তহবিলের পাশাপাশি বাস্তবায়নকারী সংস্থা গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি লিমিটেডের (জিটিসিএল) অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। এ লক্ষ্যে গ্যাস ট্রান্সমিশন ক্যাপাসিটি এক্সপানশান আশুগঞ্জ টু বাখরাবাদ প্রকল্পের দ্বিতীয় সংশোধনী পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।
জানা যায়, আরেক দফায় প্রকল্পের মেয়াদ বাড়াতে চায় জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগ। আড়াই বছরে প্রকল্পটির কাজ শেষ করার কথা ছিল। এর মধ্যে প্রায় সাত বছর চলে গেলেও প্রকল্পের কাজ শুরুই করা সম্ভব হয়নি। বেশ কয়েক দফায় দরপত্র আহ্বান, ক্রয় কমিটির অনুমোদন নেয়া হয়েছে। তবে অর্থের অভাবে প্রকল্পের ভৌত অগ্রগতি এখন পর্যন্ত শূন্য শতাংশই রয়ে গেছে।
প্রকল্পটি অনুমোদনের সময় ব্যয় ধরা হয়েছিল ৬৩৮ কোটি ৯০ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে বরাদ্দ ছিল ৩০৪ কোটি ২৮ লাখ টাকা। আর প্রকল্প সহায়তা হিসেবে এডিবির ঋণ ধরা হয়েছিল ৩৩৪ কোটি ৭১ লাখ টাকা। সর্বশেষ সংশোধনীতে প্রকল্পের ব্যয় প্রস্তাব করা হয়েছে ৭৪৩ কোটি ৩৭ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় ধরা হয় ৩৩১ কোটি ২ লাখ টাকা। জিটিসিএল তহবিল থেকে ব্যয় ধরা হয়েছে ৪১২ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। মূল প্রকল্পের তুলনায় সংশোধিত প্রকল্পে ১৬ দশমিক ৮৫ শতাংশ ব্যয় বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে।
জানা যায়, ২০০৯ সালে প্রকল্পটি অনুমোদনের সময় ২০১০ সালের জানুয়ারিতে কাজ শুরু করে ২০১২ সালের জুনে সমাপ্ত ঘোষণার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। এডিবির চুক্তি থাকলেও ঋণের অর্থ না আসায় প্রকল্পের কাজ এ সময়ে শুরু করা সম্ভব হয়নি। এ অবস্থায় ব্যয় না বাড়িয়ে মন্ত্রণালয় প্রকল্পটির মেয়াদ বাড়ায় ২০১৩ সালের জুন মাস পর্যন্ত। আবারও স্থবিরতা থাকায় প্রকল্পটির সময়সীমা বাড়ানো হয় ২০১৫ সালের জুন পর্যন্ত। পরবর্তী সময়ে প্রথম সংশোধনীর মাধ্যমে প্রকল্পের ব্যয় পরিবর্তন করে মেয়াদ বাড়ানো হয় ২০১৬ সালের জুন মাস পর্যন্ত। দ্বিতীয় সংশোধনীতে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে প্রকল্পের কাজ শেষ করার সময়সীমা বেঁধে দেয়া হয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

bd24times

ব্যার্থ সোহান-শুভাগত,সৌম্যরা দল পেলেও নাসির শাহরিয়ার মারুফ উপেক্ষিত!

জাহিদুল ইসলাম, বিডি টোয়েন্টিফোর টাইমস :   বিসিবি দল ঘোষণা করবেন আর তাতে কোন বিতর্ক …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *