Mountain View

ক্রিকেটের মজার কিছু তথ্য

প্রকাশিতঃ জুলাই ৩১, ২০১৬ at ৫:৫১ অপরাহ্ণ

bangladesh-cricket-odis

১।সর্বাধিক ওয়ানডে ম্যাচ খেলার পর টেস্ট অভিষেক হয় যাদের:

ভারতের রোহিত শর্মা- ১০০ ম্যাচ
সুরেশ রায়না- ৯৮ ম্যাচ
জিম্বাবুয়ের চামু চিভাবা- ৯৬ ম্যাচ

২। টেস্ট ক্রিকেটে ১ম স্পেলের ১ম ওভারে সবচেয়ে বেশিবার উইকেট পেয়েছেন
** অস্ট্রেলিয়ার গ্লেন ম্যাকগ্রাথ-২৭ বার
** দঃ আফ্রিকার জ্যাক ক্যালিস- ২৩ বার

৩। শ্রীলংকার সাবেক ব্যাটসম্যান মাহেলা জয়াবর্ধনের ওয়ানডেতে ১৬ শতকের মধ্যে ১বারই দল হেরেছে।আর সেটা ২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারতের সাথে

৪। ২০১৩ সালে দঃ আফ্রিকার ফাস্ট বোলার পাক ব্যাটসম্যান মোঃ হাফিজের “প্রিয়ঘাতক”হিসেবে আবির্ভূত হন।হাফিজকে স্টেইনগান ১০ বার শীকার করেন।যার ৪ বার করে ওয়ানডে ও টেস্ট এবং ২ বার টি ২০ আন্তর্জাতিকে।
হাফিজের গড় স্টেইনের সাথে ৪.০।শেষ বার বছরে কোন স্বীকৃত অথবা অস্বীকৃত(বোলার) ব্যাটসম্যানের নির্দিস্ট কোন বোলারের বলে এত পরিমান আউট হতে হয় নাই

৫। ২০০৩ সালে ঘরের মাঠে ব্যর্থ বিশ্বকাপ মিশন শেষে দঃ আফ্রিকার নতুন অধিনায়ক গ্রেম স্মিথকে করা হয়
তবে অবাকের বিষয় ২০০৩ বিশ্বকাপে স্মিথ ১৫ সদস্যের স্কোয়াডে ছিলেন না

৬। ইনিংসের শেষ বলে ৬ মেরে দলকে জিতান যারা….
নাথান ম্যাককালাম
জাভেদ মিঁয়াদাদ
ল্যান্স ক্লুজনার
ব্রান্ডেন টেইলর
শিবনারায়ন চন্দরপাল
এডওয়ার্ড রেইন্সফোর্ড
রায়ান ম্যাকলারেন

৭।শ্রীলংকান সাবেক গ্রেট পেসার চামিন্দা ভাস দঃ আফ্রিকার হার্শেল গিবস ও ও ইন্ডিজের ক্রিস গেইল ২ জনকে ৭বারর করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ০ রানে শিকার করেছেন।কোন বোলারের কোন ব্যাটসম্যানকে এতবার ০ রানে আউট করতে পারেনি।

৮।২০১৩ সালের ৩ সেপ্টেম্বর,পেসার বয়েড রেনকিন ইংল্যান্ডের হয়ে খেলে আয়ারল্যান্ডের এড জয়েসকে আউট করেন।২০০৭ বিশ্বকাপে রেনকিন যখন আয়ারল্যান্ডের হয়ে খেলতেন তখন জয়েসকে আউট করেছিলেন।জয়েস তখন আবার ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যান ছিলেন তবে মজার ব্যাপার হল এই দুইজন আবার একই দলের সতীর্থও ছিলেন।আয়ারল্যান্ডের হয়ে খেলেছেন একই সাথে

এ সম্পর্কিত আরও