Mountain View

এরদোগানকে হত্যাচেষ্টায় অংশ নেয়া ১১ সেনা আটক

প্রকাশিতঃ আগস্ট ১, ২০১৬ at ৩:৪৯ অপরাহ্ণ

ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের রাতে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেফ তায়িপ এরদোগানকে হত্যাচেষ্টায় অংশ নেয়া সেনা সদস্যদের মধ্যে ১১ জনকে আটক করা হয়েছে।

রোববার রাতে মুগলা প্রদেশের উলা জেলার সিরিনকয় গ্রামে হেলিকপ্টার ও ড্রোনের সাহায্যে অভিযান চালিয়ে ৯ সেনাকে আটক করে দেশটি মিলিটারি পুলিশ।

সোমবার আরও দুজনকে আটক করা হয়েছে। এর আগে গত ২৫ জুলাই তিনজনকে আটক করা হয়। খবর আনাদুল এজেন্সির।

মুগলার প্রদেশের গভর্নর আমির সিসেক বলেন, রোববার রাতে পলাতক সেনাদের কমান্ডার মেজর সুকরু সেইমেনসহ ৯জনকে আটক করা হয়েছে।

এরপর সোমবর ভোরে তুরস্কের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল থেকে এরদোগানকে হত্যা চেষ্টায় অংশ নেয়া আরও দুই সেনা সদস্য মোস্তফা সরদার ওজাই এবং মুয়াম্মের গুজুবায়ুককে আটক করা হয়।

এর আগে গত ২৫ জুলাই মারমারিস-মুগলা সড়ক সংলগ্ন একটি কালভার্টের ভেতর থেকে তিনজন পলাতক সদস্যকে আটক করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ১৫ জুলাই রাতে অভ্যুত্থান চেষ্টাকালে প্রেসিডেন্ট এরদোগান দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় পর্যটন শহর মারমারিসের গ্রান্ড ইয়াজিসি হোটেলে ছিলেন। সেখানে তাকে হত্যা করতে পাঠানো হয়েছিল একদল অভ্যুত্থানচেষ্টাকারী সেনাকে।

ধারণা করা হচ্ছে, এরদোগানকে খুন করতে যাওয়া স্কোয়াডে কমপক্ষে ২০ সেনাসদস্য অংশ নিয়েছিলেন। প্রেসিডেন্ট এরদোগানকে হত্যা বা বন্দি করতে তাদের অভ্যুত্থান চেষ্টাকারী উর্ধ্বতন সেনা কর্মকর্তারা নির্দেশ দিয়েছিল বলে ধারণা করা হয়।

তবে খুনি সেনারা গ্রান্ড ইয়াজিসি হোটেলের ঠিকানা জানতেন না। তারা স্থানীয়দের কাছে হোটেলের ঠিকান খুঁজে বেড়াচ্ছিলেন। ততক্ষণে অবশ্য এরদোগান সেখান থেকে সরে যান।

পরে তিনি সিএনএন তুর্ক টেলিভিশনের মাধ্যমে জনগণকে রাস্তায় নেমে আসার আহ্বান জানিয়ে ইস্তাম্বুলে হাজির হন। এরদোগানের নাটকীয় উপস্থিতির মধ্য দিয়ে দেশটিতে সেনা অভ্যুত্থান বিরোধী গণঅভ্যুত্থান সংঘটিত হয় এবং এরদোগান ক্ষমতায় বহাল রয়েছেন।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View