ঢাকা : ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, শুক্রবার, ২:০৬ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

গ্যাসের মূল্য বাড়লে বন্ধ হতে পারে কল-কারখানা

tex


এক বছরের মাথায় ফের গ্যাসের দাম বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়ায় ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তাদের মধ্যে নতুন করে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে। মাত্রারিতিক্ত মূল্য বৃদ্ধির এ উদ্যোগে বস্ত্র ও তৈরি পোশাক খাতসহ দেশের রপ্তানিমূখী শিল্প প্রতিযোগিতা সক্ষমতা হারাতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচেছ। বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিল্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিটিএমএ) নেতারা ইস্যুটি নিয়ে ইতিমধ্যে বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জ্জা আজমের সঙ্গে স্বাক্ষাত করে তাদের বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরে উদ্বেগের কথা জানিয়েছেন। এ সময় সংগঠনের পক্ষ থেকে সামপ্রতি গুলশান ও শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার ঘটনা তুলে ধরে বলা হয়, এ ঘটনায় বস্ত্র ও পোশাক খাত ঝুঁকির মুখে পড়েছে। এ অবস্থায় নতুন করে গ্যাসের দাম বাড়ানো হলে অনেক মিল বন্ধ হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কার কথা জানিয়ে এসব শিল্প রক্ষায় মন্ত্রীকে উদ্যোগ নেয়ার অনুরোধ জানানো হয়।

অন্যদিকে মেট্রোপলিটন চেম্বার (এমসিসিআই) মনে করছে, গ্যাসের দাম বাড়লে বিদ্যুত্ ও সারসহ সব ধরণের উত্পাদন খরচ বেড়ে যাবে। ফলে কৃষি পণ্যসহ সব ধরণের নিত্যপণ্যের দাম বেড়ে যাবে। এর ফলে ২০২১ সালে সরকার নির্ধারিত মধ্যম আয়ের দেশের লক্ষ্যমাত্রার বাস্তবায়নও বাধাগ্রস্ত হতে পারে। সংগঠনটি মনে করছে, কেবল মূল্যবৃদ্ধির মাধ্যমে গ্যাস খাতের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা সম্ভব নয়। মিটারে গরমিল, গ্যাসের অসাধু ব্যবহার বা অবৈধ সংযোগ, অবৈধ উপায়ে বিল কমিয়ে দেয়ার মত বিষয়গুলো রোধ করার মাধ্যমে নতুন করে দাম না বাড়িয়েও এ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা সম্ভব। গতকাল গণমাধ্যমে পাঠানো এমসিসিআইয়ের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়।

এমসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, গত বছরের সেপ্টেম্বরে গড়ে ২৬ শতাংশেরও বেশি গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছিল। এক বছরের মধ্যে আবারো গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। এ বৃদ্ধির প্রস্তাব বিইআরসি’র (বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন) আইনের সঙ্গে সামঞ্জস্যহীন।

বিটিএমএ’র প্রতিনিধিরা বস্ত্র  প্রতিমন্ত্রীকে বলেন, বিইআরসি ক্যাপটিভ খাতসহ শিল্প খাতে গ্যাসের মূল্য যথাক্রমে ১৩০ শতাংশ ও ৬২ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে। এটি কার্যকর হলে টেক্সটাইল ও গার্মেন্টস খাতে মারাত্নক নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হবে। তারা বলেন, গত বছর গ্যাসের দাম শতভাগ বাড়ানো হয়েছিল। এর প্রভাবে টেক্সটাইল খাত অসম প্রতিযোগিতার মুখে পড়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ফের এক বছরের কম সময়ের ব্যবধানে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম ৮ টাকা ৩৬ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ১৯ টাকা ২৬ পয়সা বাড়ানোর প্রস্তাব করা হচ্ছে। এর ফলে সর্বসাকুল্যে বৃদ্ধির হার ৪৬০ শতাংশ। এটি বাস্তবায়ন হলে টেক্সটাইল খাত মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়বে। অনেক মিল বন্ধ হয়ে যেতে পারে। একই সময়ে প্রতিবেশী দেশ ভারত তাদের টেক্সটাইল খাতকে রক্ষা করতে নেয়া পদক্ষেপ তুলে ধরে প্রতিনিধিরা বলেন, এর ফলে বাংলাদেশ আরো চ্যালেঞ্জে পড়বে।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

আকর্ষণীয় পদে নিয়োগ দিচ্ছে ব্র্যাক ব্যাংক

নতুনদের ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ দিয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড। ‘কাস্টমার রিলেশন্স অফিসার—স্মল …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *