Mountain View

আর্জেন্টিনার কোচ হিসাবে ঠিক মানুষটাকেই বেছে নিয়েছেঃ ম্যারাডোনা

প্রকাশিতঃ আগস্ট ৫, ২০১৬ at ৮:২৫ অপরাহ্ণ

buza

তিনি নিজেও হতে চেয়েছিলেন আর্জেন্টিনার কোচ। আর্জেন্টিনাকে আবারও সাফল্যের দেখা পাইয়ে দিতে এতটাই ব্যাকুল ছিলেন ডিয়েগো ম্যারাডোনা, বিনা বেতনেও কাজ করতে রাজি ছিলেন।

আর্জেন্টাইন কিংবদন্তির আশা পূরণ হয়নি, আর্জেন্টিনার নতুন কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন এদগার্দো ‘পাতন’ বাউজা। তবে এ নিয়ে বিন্দুমাত্রও খেদ নেই ম্যারাডোনার।

বরং নতুন আর্জেন্টাইন কোচকে দুহাত বাড়িয়ে উষ্ণ অভ্যর্থনাই জানালেন। বাউজারও যে দেশের জন্য নিজের স্বার্থত্যাগের ইতিহাস বেশ পুরোনো। এ দিকটিই ভালো লেগেছে ম্যারাডোনার, বাউজার হাতে আর্জেন্টিনা সাফল্যের পথে এগিয়ে যাবে বলেও বিশ্বাস ৫৫ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন কিংবদন্তির।

কোচিং ক্যারিয়ারে বেশ সাফল্য পেলেও খেলোয়াড় হিসেবে কখনোই খুব বেশি উদ্‌যাপনের উপলক্ষ পাননি বাউজা। তবে এর মধ্যেই খেলোয়াড়ি জীবনে বলার মতো

একটা গল্প আছে তাঁর, ১৯৯০ বিশ্বকাপে ছিলেন ম্যারাডোনার পাশে একই দলে। একটি ম্যাচেও খেলার সুযোগ পাননি, দলও ফাইনালে গিয়ে হেরে গেছে জার্মানির কাছে। তবে টুর্নামেন্টজুড়ে ঠিকই আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়দের আন্তরিক সমর্থন জুগিয়ে গেছেন বাউজা।

নিজে সুযোগ পাননি বলে এতটুকু অসন্তোষ না দেখিয়ে দলকে পুরো সমর্থন দিয়ে গেছেন।এ দিকটিই বাউজাকে ‘নায়ক’ করে তুলেছে ম্যারাডোনার চোখে।

নিজের ফেসবুকে ছিয়াশি বিশ্বকাপের মহানায়ক লিখেছেন, ‘আর্জেন্টিনার নতুন কোচ পাতন বাউজাকে অভিবাদন জানাই। ১৯৯০ বিশ্বকাপে ওর অবদান আমি কখনোই ভুলব না। আমাদের পুরো প্রজন্মই জাতীয় দলের জন্য সবটুকু ঢেলে দিয়েছে। আর ও বেঞ্চেই বসে ছিল পুরো টুর্নামেন্টে, কিন্তু আমাদের কী সমর্থনই না দিয়ে গেল!’

এই আত্মত্যাগের মনোভাব, ব্যক্তির চেয়ে দেশের স্বার্থকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয় দিয়েই বাউজা জাতীয় দলে সাফল্যের হাসি ফেরাবেন, এটাই হয়তো আশা সমর্থকদের ম্যারাডোনারও।

অবশ্য সেই উদ্দেশে এরই মধ্যে কাজে নেমেও পড়েছেন ৫৮ বছর বয়সী আর্জেন্টিনা কোচ। প্রথম ‘অ্যাসাইনমেন্ট’—গত জুনে জাতীয় দলকে হঠাৎই বিদায় বলে দেওয়া লিওনেল মেসিকে আকাশি-সাদায় ফেরানো।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View