Mountain View

চুরি যাওয়া রিজার্ভের দেড় কোটি ডলার সেপ্টেম্বরে ফেরত আসার সম্ভাবনা

প্রকাশিতঃ আগস্ট ৭, ২০১৬ at ৮:৪৯ অপরাহ্ণ

cb


বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের ৮ কোটি ১০ লাখ ডলারের মধ্যে দেড় কোটি ডলার আগামী সেপ্টেম্বর মাসেই ফেরত পাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। ফিলিপাইন ঘুরে এসে বাংলা ট্রিবিউনকে এই তথ্য জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক গোয়েন্দা বিভাগের মহাব্যবস্থাপক দেবপ্রসাদ দেবনাথ।

চারদিনের সফর শেষে শনিবার ম্যানিলা থেকে ঢাকায় ফিরে এসেছেন দেবপ্রসাদ দেবনাথসহ বাংলাদেশ ব্যাংকের উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল। এই সফরে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের চুরি যাওয়া অর্থের একাংশ ফেরত পাওয়ার ব্যাপারে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। দেবপ্রসাদ দেবনাথ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন,‘যে দেড় কোটি ডলার ফিলিপাইনের বিচার বিভাগের কাছে রয়েছে, আগস্টের মধ্যেই তার আইনি প্রক্রিয়া শেষ হবে। এর ফলে আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যেই এই দেড় কোটি ডলার বাংলাদেশ ব্যাংক পেয়ে যাবে। তবে ফিলিপাইনের ক্যাসিনোতে যে টাকা ছড়িয়ে গেছে তা ফেরত পেতে আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।’

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ফিলিপাইনের ক্যাসিনো মালিক যে দেড় কোটি ডলার দেশটির সরকারের কাছে ফেরত দিয়েছেন, আইনি প্রক্রিয়া শেষে তা আমরা সেপ্টেম্বরের মধ্যেই পেয়ে যাবো বলে আশা রাখি।’ তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, ‘সব কিছু ঠিক থাকলে এই অর্থ আমরা সেপ্টেম্বরের আগেও পেয়ে যেতে পারি।’

প্রসঙ্গত, রিজার্ভের চুরি যাওয়া অর্থ ফেরত আনতে গত সপ্তাহে বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক গোয়েন্দা বিভাগের মহাব্যবস্থাপক দেবপ্রসাদ দেবনাথের সঙ্গে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তা আব্দুর রব ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্যানেল আইনজীবী আজমালুল হোসাইন কিউসি ম্যানিলায় যান।

উল্লেখ্য, গত ফেব্রুয়ারির শুরুতে সুইফট সিস্টেম ব্যবহার করে ৩৫টি ভুয়া বার্তা পাঠিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউ ইয়র্ক থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রায় এক বিলিয়ন ডলার সরানোর চেষ্টা করা হয়। এর মধ্যে চারটি মেসেজের মাধ্যমে ফিলিপাইনের রিজল কমার্শিয়াল ব্যাংকে (আরসিবিসি) সরিয়ে নেওয়া হয় ৮১ মিলিয়ন ডলার। আর একটি মেসেজের মাধ্যমে শ্রীলঙ্কার একটি ‘ভুয়া’ এনজিওর নামে ২০ মিলিয়ন ডলার সরিয়ে নেওয়া হলেও বানান ভুলের কারণে সন্দেহ হওয়ায় শেষ মুহূর্তে তা আটকে যায়। ওই সময় আরসিবিসি ব্যাংকে যাওয়া টাকার একটি বড় অংশ  ফিলিপাইনের জুয়ার টেবিলে চলে যায়। এর মধ্যে এক ক্যাসিনো মালিক দেড় কোটি ডলার দেশটির সরকারের কাছে ফেরত দেন।

এদিকে ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রড্রিগো দোতার্তে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের চুরি যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার ফেরত দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন বলে দেশটিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জন গোমেজ জানিয়েছেন। ম্যানিলায় বাংলাদেশ মিশনে গত শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে রাষ্ট্রদূত একথা জানান বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

অপরদিকে চুরির ঘটনায় ফিলিপাইনের রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং কর্পোরেশনকে (আরসিবিসি) ১০০ কোটি পেসো (২ কোটি ডলারেরও বেশি) জরিমানা করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এ সম্পর্কিত আরও