Mountain View

ভূঞাপুরে হাসান-রানু’র মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিতঃ আগস্ট ১০, ২০১৬ at ১০:৫৪ অপরাহ্ণ

received_1669327376722132

এফ.এস ফরমান শেখ- টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের অর্জুনা ইউনিয়নের ছাত্রলীগ নেতা ও গ্রাম পাঠাগার আন্দোলনের সদস্য হাসান-রানু’র মুক্তিসহ ৩ দফা দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে উপজেলা ছাত্রলীগ ও অর্জুনা অন্নেষা পাঠাগার। মানবন্ধনে বক্তারা হাসান-রানু’র নিঃশর্ত মুক্তি, মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও সাংবাদিক কাদির তালুকদাকে গ্রেফতারের দাবি জানান।

এসময় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, অর্জুনা হাঁজী ইসমাইল খাঁ কলেজের অধ্যক্ষ আবদুস ছাত্তার খান, প্রভাষক আশিক মাহমুদ, ভূঞাপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাজেরুল ইসলাম সনেট, যুগ্ন আহ্বায়ক রাসেল তালুকদার, অর্জুনা অন্নেষা পাঠাগারের সভাপতি সুজন খান, সাবেক সভাপতি তরিকুল ইসলাম, অর্জুনা ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি ইলিয়াস হোসেন প্রমুখ।

জানা যায়, গত ১০ জুলাই সময় টিভি’র টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি কাদির তালুকদার ভূঞাপুর উপজেলার নদী ভাঙ্গন কবলিত অর্জুনা গ্রামের সংবাদ সংগ্রহের কাজে আসেন।

এসময় নদী ভাঙ্গনের ভিডিও চিত্র ধারণের জন্য যমুনা নদী সংলগ্ন হাসানদের বাড়ির একটি অংশ স্থানীয় শ্রমিকদের সহায়তায় ভেঙ্গে ভিডিও ধারণ করতে চাইলে সেখানে হাসানের মুক্তিযোদ্ধা চাচার কবর থাকায় হাসান বাঁধা দেন। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে কিছু কথা কাটাকাটি হয়।

পরে হাসানদের বাঁধা উপেক্ষা করেই শ্রমিক দিয়ে ওই অংশ ভেঙ্গে ভিডিও ধারণ করেন কাদির তালুকদার। তখন তৃতীয় একজন সেই দৃশ মোবাইল ফোনে ধারণ করে সাংবাদিকতার না অপসাংবাদিকতা শিরোনামে ভিডিওটি ইউটিউবে আপলোড করে।

ভিডিও’র বিষয়টি জানাজানি হলে সাংবাদিক কাদির তালুকদার ও তার সহযোগী চেয়ারম্যান আইয়ুব মোল্লা ঐ দুজনকে তাদের সাক্ষৎকার নেওয়ার নাম করে ফোন করে গোবিন্দাসী ডাকে। পরে হাসান ও রানু’কে তারা র‍্যাবের কাছে সোপর্দ করে।

এ বিষয়ে গতকাল বিকালে চেয়ারম্যান আইয়ুব মোল্লার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, হাসান ও রান’র সাথে যে ঘটনা হয়েছে তা পুরোপুরি মিথ্যা ও সর্ম্পপূণ বানোয়াট।

এ ঘটনায় ভূঞাপুর থানা পুলিশ উপপরিদর্শক ও তদন্ত কর্মকর্তা মো. গোলাম মোস্তাফা বলেন, সময় টিভি’র সাংবাদিক কাদির তালুকদার হাসন ও রানু সহ অজ্ঞাতনামা এক জনের বিরুদ্ধে গত ০৫-০৬-২০১৬ তারিখে ধারা, তথ্য প্রযুক্তির আইন ২০০৬ এর (৫৭)০২ রুজু করেন। যার মামলা নং-২ ।

তিনি আরও বলেন, এ মামলার তদন্তের কাজ চলছে। তদন্তের কাজ শেষ হলেই আমরা যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করবো। অপর দিকে আসামী পক্ষ এখন পর্যন্ত কোন প্রকার সাধারণ জিডি অথবা মামলা দায়ের করেনি বলেও জানান তিনি।

এ সম্পর্কিত আরও