ঢাকা : ২১ অক্টোবর, ২০১৭, শনিবার, ১২:৩৬ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
প্রচ্ছদ / সাহিত্য / পড়ুন অসাধারণ আমেনা খানমের তিনটি কবিতা

পড়ুন অসাধারণ আমেনা খানমের তিনটি কবিতা

প্রকাশিত :

বেশ কিছু কাল ধরে লেখালেখির সাথে সম্পর্কিত আমেনা খানম ব্যক্তি জীবনে সংসার, চাকুরী এবং সামাজিক বিভিন্ন কার্যক্রমের সাথে সফলভাবে সম্পৃক্ত রয়েছেন। কবিতা তার কাছে শুধুমাত্র শব্দের মালা গাঁথাই নয় বরঞ্চ নান্দনিকতার এক অমিয় রূপ।

তোমার নীলে

রঙিন যত আলোর ছটায়

জ্বলছি আমি রংধনুটায়,

আলোর আশায় ছায়ার নেশায়

সুরের পাখি মনটা মাতায়।

প্রভাত তুমি স্নিগ্ধ হাওয়ায়

মুগ্ধ আমি অবাক চোখে,

ঝলমলে ঐ রবি তুমি

জ্বলছি আমি আলোক দেখে।

অবিরাম এক বর্ষা তুমি

তোমার জলে সিক্ত আমি,

ঐ গগনের নীল যে তুমি

তোমার নীলে নীলাভ আমি।

আকাশ তুমি মুগ্ধ চোখে

আঁকছো আমায় মনটি ভরে,

গোধুলীর যত রঙিন ছটায়

উড়বো তোমার হাতটি ধরে।

আঁধার তুমি গভীর মায়ায়

খুঁজছো আমায় জোনাক পোকায়,

জোছনা তুমি

আলোর বানে ভাসছি আমি

তোমার ছাঁয়ায়।

বৃক্ষ তুমি রও দাড়িয়ে

বসবো ডালে বিহগ হয়ে,

তুমি আমার আমি তোমার

দিন যে সুখে যায় গড়িয়ে।

শূন্যতা শূন্যতা —-

শুধুই শূন্যতা

আজ চারিপাশে

সব কোলাহলও যেন বড্ড মৃয়মাণ

এত সরোবরেও এ বুকে মরুভূমির

ছায়া ঘুমে জাগরনে কেবলই হাহাকার

চাতকের পিপাসা যেন এ হৃদয়ে!

এত দীর্ঘক্ষণ- সময়- কালের ব্যবধানে

দিনমান অবিরাম বর্ষনে গাছে গাছে ফুটন্ত কদম ফুলে

সুমিষ্ট সেই রবীন্দ্রসংগীতে সুর ও শব্দের প্রবল আকর্ষনে

কথা হতে কথার সুমধুর বচনে

হয়তো সেই আগমনে –

শীঘ্রই ঘুচবে তা তপ্ত ধরণী সিক্ত হবে

খোঁপায় গেঁথে ধন্য হবে কদম

প্রতীক্ষিত অবসন্নতা উবে যাবে

মুছে যাবে সকল শূন্যতা

যেথায় পূর্ণ সব – পরিপূর্ণতা এ সত্ত্বায়।

বাবা

তোমায় নিয়ে কেমন করে লিখি

কোন শব্দে মেলাই তোমায়…

কোন ভাষাতে দিতে পারি শোধ

‘বাবা’ তোমার শিশুরা বড় হলেও

আজো তেমনি অবোধ।

‘বাবা’ তোমায় যত আবেগ ভরে ডাকি

যত ভালবাসায় তোমায় সিক্ত করিনাকো…

যত বিশেষনে দশ জীবনও যদি পেয়ে থাকি

তোমায় ভালবাসার তেষ্টা রয়ে যাবে মনে।

‘বাবা’ কেমন করে বুঝতে তুমি !

তোমার আপন প্রাণ যুঝতে কেমন করে….

বাইরে এবং ঘরে…

সকল প্রলয়, ঝড় তোমার শিশুরা বড় হল

পেয়ে তোমার ভালবাসা, স্নেহ আর আদর।

‘বাবা’ চাওয়া পাওয়ার হিসেব তুমি করনিকো

কোনো নিজের যত সুখ…

যত আকাঙ্খা…

যত অভিমান

সব ভুলে সন্তানদের সুখের তরে পার করলে জীবন ।

‘বাবা’ তোমায় ভালবাসি

তোমার জন্য দিতে পারি বুকের রক্ত…

পাজর… বোধ তারপরও কি হবে

‘বাবা’ তোমার প্রতি কঠিন ঋণের শোধ!

তোমায় নিয়ে কেমন করে লিখি

কোন শব্দে মেলাই তোমায়…

কোন ভাষাতে দিতে পারি শোধ

‘বাবা’ তোমার শিশুরা বড় হলেও আজো তেমনি অবোধ।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

বেঁচে থাকতে চাই সম্মান-মরনের পর ফুল দিও না কবরে

জুবায়ের আহমেদ আমার কর্মে আমি তোমাদের মধ্যে বিশেষ একজন হিসেবে বিবেচিত হয়েছি, তোমাদের মুখে মুখে …

Leave a Reply