‘জানতাম খারাপ দিন আসবে, সেটা এতো তাড়াতাড়ি আসবে ভাবিনি’

প্রকাশিতঃ আগস্ট ১৭, ২০১৬ at ১২:৪১ অপরাহ্ণ

২০১৪ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত জাতীয় দলের নিয়মিত সদস্য হলেও বিশ্বকাপের পর একাদশে নিয়মিত খেলার ভাগ্যটা বদলে গেছে নাসিরের। যার কারণে হতাশায় দিন কাঁটাতে হচ্ছে এই অল রাউন্ডারের।

এমনকি জাতীয় দলে নিয়মিত খেলতে না পারার হতাশা প্রকাশ পাচ্ছে তার ফেসবুকেও। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লিখেছিলেন, ‘জানতাম খারাপ দিন আসবে, কিন্তু সেটা এত তাড়াতাড়ি তা কল্পনা করতে পারিনি।’

নাসির মনে করেন তার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ার যেভাবে শুরু হয়েছিল তেমনটা আর নেই। তিনি বলেন, ‘আমার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার যেভাবে শুরু হয়েছিলএখন সে পর্যায়ে নেই। গত কয়েকটা সিরিজে যে ম্যাচগুলো খেলেছি, চেষ্টা করেছি আগের ছন্দে ফিরে যেতে। অর্থাৎ আমি আগে যেভাবে খেলতাম ঠিক সেভাবে চেষ্টা করছি। এর সুফলও পেয়েছি কিছুটা। আশা করি সামনে আরো ভালো কিছু করতে পারব।’

অন্যদিকে চলতি বছর টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে থাকলেও কোনো ম্যাচ খেলা হয়নি নাসিরের। মূলত দলের কম্বিনেশন ঠিক ছিল বলে একাদশে খেলার সুযোগ হয়নি তার। কিন্তু স্কোয়াডে থেকেও খেলতে না পারার কারণে হতাশ হয়েছেন তিনি।4

তিনি বলেন, ‘আমি চেষ্টা তো সব সময় করি। আমি যে জায়গায় খেলি তিন চার ওভারের বেশি ব্যাটিং করার সুযোগ কমই থাকে। উইকেটে গিয়ে ২০টা বল খেলে কন্ডিশনে অভ্যস্থ হওয়ার সুযোগ থাকে না। উইকেটে নামার সাথে সাথে আক্রমণাত্মক খেলতে হয়। হয় হিরো হবো না হয় জিরো। আর আমার ব্যাটিং পজিশনে ধারাবাহিকতা রাখা একটু কঠিন হয়। কারণ তখন ফিফটি ফিফটি খেলতে হয়। তবে ওই জায়গায় খেলার একটা সুবিধা হচ্ছে যে, এক দুইটা ম্যাচে ভালো খেললেই নজরে চলে আসা যায়।’

এছাড়াও চলতি বছর ঢাকা প্রিমিয়ার লীগে ভালো পারফর্ম করেছেন এই অলরাউন্ডার। নাসির আশা করছেন ইংলিশদের বিপক্ষে স্কোয়াডে থাকবেন তিনি।

২৪ বছর বয়সী ডান হাতি এই অলরাউন্ডার আরও জানান,‌ ‘প্রতিটা ম্যাচে যেখানেই রান করেন, সেটা কাজে দেবে। খেলোয়াড়ের জন্য ভালো। আত্মবিশ্বাস দেয়। প্রিমিয়ার লিগে আমি চেয়েছিলাম আরো উপরে ব্যাট করতে, কিন্তু দলের কম্বিনেশনের কারণে সেটা সম্ভব হয়নি। তারপরেও চেষ্টা করেছি জাতীয় দলে যে দায়িত্ব নিয়ে ব্যাটিং করি, সে দায়িত্ব নিয়ে খেলার। আমার মনে হয় খুব একটা খারাপ হয়নি।’

এ সম্পর্কিত আরও