Mountain View

গরু মোটাতাজাকরণে বেকার যুবকদের ভাগ্য ফিরেছে

প্রকাশিতঃ আগস্ট ২৫, ২০১৬ at ১:০৪ অপরাহ্ণ

আর মাত্র ক’দিন পর ঈদুল আজহা। সামর্থ্যবান প্রত্যেক মুসলমান ভাইবোন পশু কোরবানি করবেন এই ঈদে। তাই গরু মোটাতাজাকরণে ব্যস্ত সময় পার করছে ডেইরি ফার্মগুলো। সেই সাথে কর্মসংস্থান হচ্ছে অনেক বেকার যুবকদের।

দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলায় শতাধিক ডেইরি ফার্ম রয়েছে। ডেইরি ফার্মগুলোতে ষাঁড় মোটাতাজাকরণ ও গাভি পালন করা হয়। কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে গরু মোটাতাজাকরণ করা হয়। এলাকার চাহিদা মিটিয়ে রাজধানীসহ বিভিন্ন এলাকায় কোরবানির পশুর চাহিদা মিটাতে এটি আসছেন গো খামারিরা।

অল্প সময়ে কম পরিশ্রমে গরু মোটাতাজাকরণ লাভজনক হওয়ায় অনেক বেকার যুবক ডেইরি ফার্মের পাশাপাশি হোল্ডিং বাড়িতে এই গরু পালন করছে। বাজার থেকে ছোট ষাঁড় কিনে আনার পর লিভারমিজল, ট্রাইক্ল্যাবেন্ডাজল, এলবেন্ডাজল, ফেনবেন্ডাজল, নাইটসিনিল গ্রুপের কৃমিনাশক ওষুধ ব্যবহার করা হচ্ছে। এরপর নিয়মিত গো খাবার ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখার চার থেকে ছয় মাসের মধ্যে গরুর মোটাতাজাকরণ প্রক্রিয়া শেষ হয়। বিভিন্ন ফার্মে গরুর ক্রেতারা তাদের ইচ্ছামতো গরু দেখে গরু কিনতে পারে। উপজেলার পশু সম্পদ কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন এলাকায় পশু চিকিৎসকরা গরুর খামারে গিয়ে চিকিৎসা সেবা দেয়ায় এলাকায় গরু মোটাতাজাকরণ গো খামারের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা জানান, উপজেলা পশুসম্পদ কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় গরু মোটাতাজাকরণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়। এই উপজেলায় প্রায় ২২ হাজার গরু মোটাতাজাকরণ করা হয়েছে। উপজেলায় কোরবানির পশুর চাহিদা পূরণ করেও রাজধানীসহ বিভিন্ন এলাকায় কোরবানির পশু সরবরাহ করা হচ্ছে। আর সুষম খাদ্য সরবরাহ করায় কোরবানিতে এই অঞ্চলের গরুর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। সেই সাথে স্বল্প পুঁজিতে গরু মোটাতাজাকরণ করে নিজেরদের ভাগ্যের পরিবর্তন করছে অনেক বেকার যুবক।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View