Mountain View

স্মার্ট কার্ড থাকলে লাগবেনা পাসপোর্ট!

প্রকাশিতঃ আগস্ট ২৮, ২০১৬ at ১:০৫ অপরাহ্ণ

মো.জিহান মিয়া,নকলা (শেরপুর) প্রতিনিধিঃ-আসন্ন পবিত্র ঈদুল আজহার আগেই স্মার্ট কার্ডের উদ্বোধন করতে চায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এখন শুধু প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অনুমতির অপেক্ষা। অনুমতি পেলেই স্মার্ট কার্ড বিতরণের কাজ সম্পূর্ণ করবে ইসি। জানা গেছে, এ কার্ড দিয়ে ভবিষ্যতে পাসপোর্টের কাজও পরিচালনা করা হবে। তখন আলাদা পাসপোর্টের প্রয়োজন হবে না।

 

নির্বাচন কমিশন সূত্র এসব তথ্য জানিয়েছে,

 

সূত্র জানায়, প্রত্যেক নাগরিকের হাতে স্মার্ট কার্ড বিতরণের পর সরকারের সাথে আলোচনা করে ইসি পাসপোর্টের সিদ্ধান্ত নেবে। বর্তমানে বিশ্বের অনেক দেশে স্মার্ট কার্ড পাসপোর্ট হিসেবে ব্যবহার হয়। বাংলাদেশের স্মার্ট কার্ডও অনেক উন্নত মানের। এ কার্ড পাসপোর্ট হিসেবে ব্যবহার করার উপযোগী।

 

এ ছাড়াও এই জাতীয় পরিচয়পত্রের উল্লেখযোগ্য ব্যবহার হলো: আয়কর দাতা শনাক্তকরণ নম্বর (টিআইএন) প্রাপ্তি, ড্রাইভিং লাইসেন্স নম্বর প্রাপ্তি ও নবায়ন, পাসপোর্ট প্রাপ্তি ও নবায়ন, চাকুরির জন্য আবেদন, স্থাবর সম্পত্তি ক্রয় ও বিক্রয়, ব্যাংক হিসেব খোলা ও ঋণ প্রাপ্তি, সরকারি বিভিন্ন ভাতা উত্তোলন, সরকারি ভর্তুকি, সাহায্য, সহায়তা প্রাপ্তি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি, বিমান বন্দরে ই-গেট এর মাধ্যমেও বহির্গমন সুবিধা, শেয়ার আবেদন ও বিও একাউন্ট খোলা, ট্রেড লাইসেন্স প্রাপ্তি, যানবাহন রেজিস্ট্রেশন, বিবাহ ও তালাক রেজিস্ট্রেশন, গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি সংযোগ গ্রহণ, মোবাইল ও টেলিফোন সংযোগ গ্রহণ, বিভিন্ন ধরনের ই-টিকেটিং, সিকিউরড ওয়েব লগ ইন, ই-ফরম পূরণে নাগরিকের সঠিক ও নির্ভুল তথ্য স্বয়ংক্রিয়ভাবে সংযোজন ইত্যাদি।

 

ইসি সূত্র জানায়, স্মার্টকার্ড গ্রহণের সময় নাগরিকদের ১০ আঙুলের ছাপ ও চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবি দিতে হবে। এজন্য প্রতিটি এলাকায় ক্যাম্প স্থাপন করে কার্ড বিতরণ ও চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবি নেওয়া হবে।

 

ইসির পরিকল্পনা অনুযায়ী, প্রথমে ঢাকা সিটি করপোরেশন, জেলা-উপজেলা, পৌরসভা ও সবশেষে ইউনিয়ন পর্যায়ে স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হবে। সেপ্টেম্বরের শুরুর দিকে ঢাকায় স্মার্টকার্ড বিতরণের পর দেশের অন্যান্য সিটি করপোরেশনগুলোতেও তা বিতরণ করা হবে।

২০১৭ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে দেশের সকল নাগরিতের হাতে (যারা ভোটার হয়েছেন) উন্নতমানের এ কার্ড পৌঁছে দেওয়া হবে। সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ডের ভোটার সংখ্যা ভেদে একাধিক ক্যাম্প থাকবে। পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে থাকবে একটি ক্যাম্প। আর গ্রামের ভোটারদের ক্যাম্প থাকবে ইউনিয়ন পরিষদে।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View