২ সেপ্টেম্বরে স্মার্ট কার্ড বিতরণ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ আগস্ট ২৯, ২০১৬ at ১০:১৯ অপরাহ্ণ

smart

উন্নতমানের জাতীয় পরিচয়পত্র স্মার্ট কার্ড বিতরণের সম্মতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামী ২ সেপ্টেম্বরে এ কার্যক্রমের উদ্বোধনের সময় দিয়েছেন তিনি। ওইদিন রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে উদ্বোধন অনুষ্ঠান হবে।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব সিরাজুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ইসির পরিকল্পনা অনুযায়ী, ঢাকার ভোটাররাই প্রথম স্মার্ট কার্ড পাবেন। এরপর পর্যায়ক্রমে সারা দেশের ভোটারদের ২০১৭ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে বিতরণের কাজ শেষ হবে।

তিনি বলেন, আমাদের পরিকল্পনা-রাজধানীতে প্রথমে স্মার্টকার্ড দেওয়ার। এরপর অন্য সিটি করপোরেশন এলাকায়, জেলা ও উপজেলায় ধারাবাহিকভাবে বিতরণ করা হবে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ৩৬ টি ওয়ার্ডে ভোটার রয়েছেন ২৩ লাখ ৪৫ হাজার ৩৭৪ জন। আর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে (ডিএসসিসি) ৫৭টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার ১৮ লাখ ৭০ হাজার ৭৫৩ জন রয়েছেন।

তবে সাম্প্রতিক সময়ে কিছু নতুন ভোটারও তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন। সব মিলিয়ে ঢাকার দুই সিটিতে প্রায় ৫০ লাখ ভোটার আছেন। সবার আগে তারাই পাচ্ছেন স্মার্টকার্ড।

সূত্র জানায়, ঢাকার ৯৩টি ওয়ার্ডের প্রত্যেকটিতে ক্যাম্প করে স্মার্টকার্ড বিতরণ চলবে। এক্ষেত্রে একটি ওয়ার্ডে বিতরণের কাজ শেষ হলে অন্যটিতে ও ভোটার সংখ্যার দিক থেকে ছোট ছোট ওয়ার্ডগুলোতে একই সঙ্গে বিতরণ করা হবে।

এনআইডি মহাপরিচালক বলেন, সিটি করপোরেশনের ক্ষেত্রে বড় ওয়ার্ডগুলোতে একাধিক ক্যাম্পও হতে পারে। যেমনটি ভোটার তালিকা হালনাগাদের জন্য করা হয়। জেলা পর্যায়ে পৌরসভায় কার্যক্রম শুরু করে পরবর্তীতে পুরো উপজেলায় স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হবে।

‘পৌরসভার ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে ক্যাম্প করা হবে। আগামী নভেম্বর-ডিসেম্বরের দিকে গ্রামের মানুষও স্মার্টকার্ড পেয়ে যাবেন।’

বর্তমানে দেশে ১০ কোটি ভোটার রয়েছে। এরমধ্যে প্রায় ৯ কোটি ভোটারের কাছে লেমিনেটিং করা জাতীয় পরিচয়পত্র সরবরাহ করা হয়েছে।

‘ঢাকায় প্রথমে স্মার্টকার্ড বিতরণ কার্যক্রম চললেও দেশব্যাপী বিতরণের প্রস্তুতি ধারাবাহিকভাবে চলবে,’ জানান  ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জামান মো. সালেহ উদ্দিন।

এ সম্পর্কিত আরও