ইতিহাস গড়া নারী ফুটবলাররা লোকাল বাসে লাঞ্ছিত!

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৬ at ৮:১৭ অপরাহ্ণ

ঢাকা থেকে ধোবাউরাগামী বাস। থেমে থেমে উঠানো হচ্ছে যাত্রী। আর এই লোকাল বাসেই বাড়ি ফিরছেন ইতিহাস গড়া বাংলাদেশের অনুর্ধ্ব-১৬ দলের কলসিন্দুরের নারী ফুটবলাররা। এএফসি দলের বাছাইপর্বের প্রতিটি ম্যাচেই গ্যালারি ভর্তি দর্শকদের অকুণ্ঠ সমর্থন পেয়েছেন তারা। অথচ দুই দিনের ব্যবধানেই চরম লাঞ্ছনার শিকার হন দেশেরজন্য সুনাম বয়ে আনা সোনার মেয়েরা।এতো বড় অর্জনের পর মেয়েরা কলসিন্দুরে ফিরছে লোকাল বাসে করে। সঙ্গে নেই কোন অভিভাবক বা বাফুফের কেউ। আর বাসে তাদের শুনতে হয়েছে বিভিন্ন লোকের অশ্লীল কটূক্তি। শুনতে হয়েছে গালিগালাজ। এছাড়াও ঢাকা থেকে বাড়ি ফেরার পথে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয়েছেতাদের। দেশের জন্য এতো কিছুর করার পর এই ছিল তাদের প্রাপ্তি!এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ ও মর্মাহত কলসিন্দুরের মেয়েরা। চলন্ত অবস্থায় তারা দেশের বেসরকারি চ্যানেল যমুনা টিভিকে এক নারী ফুটবলার কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, এত সুন্দর একটা রেজাল্ট করলাম আমরা।বাংলাদেশের জন্য খেললাম…কিন্তু এই (ঘটনার পর) যাত্রাটা বইতেছি তা খুব কষ্ট লাগতাছে। এ ঘটনায় অভিভাবকরা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। লাঞ্ছনার শিকার হওয়া এক মেয়ের অভিভাবক বলেন, আমরা যখন মেয়েদের বাড়ি থেকে বিদায় দেই, তখন থেকে বাংলাদেশ সরকার বা ফেডারেশনের ওপরই থাকে। কিন্তু মেয়েদের সঙ্গে ফেডারেশনের কোনও প্রতিনিধি না থাকার জন্যই এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।এ ঘটনায় ভার্চুয়াল জগতে শুরু হয়েছে নানা সমালোচনার ঝড়।খুকু নাঈম নামের একজন লিখেছেন,দেশকে এত বড় গৌরব এনে দিলে কী হবে? তাদের অপরাধ তারা গরিব, তারা অসহায়। তাই তো অর্জনের পর সবার বাহবা আর খেলা শেষে নেই কোনও সম্মান! শাওনা তালুকদার নামের একজন মন্তব্য করেন, বাফুফের কর্মকর্তারা কি ঘাস চিবাইতেছিলেন? তারা তাদের (মেয়েদের) জন্য একটা বাস রিজার্ভ করতে পারেন নাই? আফরোজা হক রিক্তা নামের একজন মন্তব্য করেন, এমন দায়িত্বহীন কেন বাফুফে? এই হিরোইন নারী ফুটবলারদের জন্য একটা বাসের ব্যবস্থা করতে পারে না। এত টাকা কোথায় যায়?

এ সম্পর্কিত আরও