মামুনূলের বিরুদ্ধে অকথ্য ভাষা ব্যবহারের অভিযোগ

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৬ at ৭:১৭ অপরাহ্ণ

fb_img_1473340367991
স্পোর্টস ডেস্ক:– বাংলাদেশ ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক মামুনূল ইসলামের বিরুদ্ধে অকথ্য ভাষা ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। জামালপুরের এক ফুটবল ভক্তে সাথে ঘটনাটি ঘটেছে। গত ১ সেপ্টেম্বর মালে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ বনাম মালদ্বীপ ম্যাচের পরেই ঘটনাটি ঘটেছে। যে মালদ্বীপের বিরুদ্ধে আগে বাংলাদেশ হেসে খেলে জিততো অথচ সেদিন বাংলাদেশ ৫-০ গোলে হার নিয়ে দেশে ফিরে। তারপর ভক্ত বাংলাদেশের ফুটবলের সবচেয়ে গ্রুপে মামূনুল কে ইঙ্গিত করে পোস্ট দেয়। সেখানে তিনি হারের জন্য মামূনুলকে দায়ি করেন। যদিও কিন্ত ঐ ম্যাচে মামূনুল চোটের কারনে ছিলেন না।

জামালপুরের ঐ ভক্তের কাছে জানতে চাইলে নাম প্রকাশ না করা শর্তে বলেন,
আমি পোষ্টা দিয়েছিলাম এই জন্য যে, ক্রিকেট টিমের খেলোয়াররা মারশাফিকে দেখুন আর মামুনুলকে দেখেন। মারশাফি ভাই পুরো দলটাকে সুন্দর পরিচালনা করে আর প্রতিটা খেলোয়ারের সাথে ভালো ব্যবহারের মাধ্যমে কত সুন্দর ভাবে প্রতিভা বের করে আনছে।। আর মামুনুলের মাধ্যমে জাতীয় দলেরর খেলোয়াড়রা কেমন নেশায় করছে। দিন দিন ওর মত হয়ে যাচ্ছে।। বড়দের কাছ থেকেই তো ছোটরা শিখবে। আর ওর মত খেলোয়ারের কাছ থেকে কি শিখবে ছোটরা। তাই বলছিলাম।

ম্যাচে মামূনুল না থাকার পরও তাকে ইঙ্গিত কেন ইঙ্গিত করা হলো?? এ বিষয়ে বলেন:–
মামুনুল বাংলাদেশ দলের নিয়মিত অধিনায়। সে চোটের কারনে ঐ ম্যাচে না থাকলে ও আগের ম্যাচ গুলো তো অধিনায়কত্ব করেছেন। অন্যদিকে, ঐ ম্যাচে নিয়মিত একাদশের খেলোয়াররাই খেলেছেন। মামুনুল কেন তরুন খেলোয়ারদের সুযোগ করে দিলেন না। তরুন খেলোয়ারদের সুযোগ করে দিলে। এমন লজ্জাজনক ফল হতো না।

নৌবাহিনীর হয়ে খেলতে গিয়ে চোটে পড়ার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, দেশ বড় না নৌবাহিনী বড়? কেন মামূনুল জাতীয় দলের ক্যাম্প বাদ দিয়ে নৌবাহিনীর হয়ে খেলতে গেলেন। নৌবাহিনীর হয়ে খেলতে গিয়েই দেশের সর্বনাশ করেছেন।

এদিকে বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক মামুনুল ইসলাম দল থেকে বাদ পড়ায় অবসর নিয়েছেন। তাকে পুনরায় জাতীয় দলে ফেরানো হবে কি না এ বিষয় ঐ ভক্ত বলেন, মামুনূলকে জাতীয় দলে কোনো প্রয়োজন নেই। যে সিন্ডিকেট করে তরুন খেলোয়ারদের জাতীয় দল থেকে বঞ্চিত করেন, তাকে দলে কোন প্রয়োজন নেই।

এ বিষয়ে মামূনুলের সাথে যোগাযোগ করে, পাওয়া যায় নি।

এ সম্পর্কিত আরও