Mountain View

এবার ঈদে চামড়া বেচাকেনা নিয়ে অনিশ্চয়তায় ভুগছেন বগুড়ার ব্যবসায়ীরা

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৬ at ১১:২৭ পূর্বাহ্ণ

 
গোলাম রব্বানী শিপন (বগুড়া) প্রতিনিধি: ট্যানারি মালিকদের কাছে বছরের পর বছর পাওনা টাকা আটকে থাকায় এবার কোরবানি ঈদে, চামড়া বেচাকেনা নিয়ে চরম অনিশ্চয়তায় ভুগছেন বগুড়ার চামরা ব্যবসায়ীরা। তাদের অভিযোগ, ঈদের পর সব চামড়া ট্যানারি মালিকদের কাছে বিক্রি করা হলেও সেই টাকা আদায় করতে কেটে যায় বছরের পর বছর। এতে উচ্চ ঋণ করে চামড়া কিনে আর্থিক সংকটের কবলে পড়তে হয় এসব ব্যবসায়ীদের। এদিকে গত বছরে যে লবণের দাম ছিলো বস্তা প্রতি ৬শ’ থেকে ৭শ’ টাকা এবার তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় দ্বীগুণ টাকা। কাঁচা লবণ ছাড়া পশুর চমড়া সংরক্ষণের বিকল্প নেই। সেদিক ভেবেও বিপাকে পড়েছেন বগুড়ার শতশত চামড়া ব্যবসায়ীরা। তাদের আশংকা এবার লবণের অভাবে অনেক চামড়া নষ্ট হয়ে যেতে পারে। ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ীরা চামড়া সংগ্রহ করে তা সংরক্ষণের পর বিক্রি করেন ঢাকার ট্যানারি মালিকদের কাছে। মাঠ পর্যায়ে থেকে নগদ টাকায় চামড়া কিনলেও ট্যানারিতে তা বিক্রি করতে হয় পুরোটায় বাকিতে। এরপর সে টাকা আদায়ে লেগে যায় বছরের পর বছর। এতে লোকসানের মুখে পড়তে হয় এসব ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীদের। ব্যবসায়ী নেতাদের অভিযোগ, ঈদের আগে ট্যানারি অ্যাসোসিয়েশন চামড়া কেনার দাম নির্ধারণ করে দিলেও সেই দামে মাঠ পর্যায়ে তারা চামড়া কিনতেই পারেন না। জেলা চামড়া মালিক সমিতির হিসেবে, বগুড়ায় ছোট-বড় আড়াইশো চামড়া ব্যবসায়ী রয়েছেন। আর বগুড়ার ৪০ জন ব্যবসায়ীর ঢাকার ট্যানারি মালিকদের কাছে পাওনা রয়েছে ৩০ কোটি টাকা। এই অাগাম সংকট অাভাস পেয়ে তারা দুঃচিন্তায় ভুগছেন।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View