ঢাকা : ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, বুধবার, ৮:২৮ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

দেশের বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২৩ জন আহত শতাধিক

sorok-dhurghotona

মোঃরাজিব রজ্জব,বিডিটুয়েন্টিফোর টাইমসঃ প্রতিবছর বিপুলসংখ্যক মানুষ সড়ক  দুর্ঘটনায় মারা যায়,কিন্তু প্রতিটা ঈদের সময় প্রতিদিন বেশ কিছু সড়ক দুর্ঘটনার খবর পাওয়া যায়।গত দুই-তিন দিনে অনেক মানুষই এ কারণে প্রাণ হারিয়েছে।তার কারণ হচ্ছে এখন ঈদের পর চালকেরা রাস্তা ফাঁকা পেয়ে বেপরোয়া গাড়ি চালাতে গিয়ে দুর্ঘটনা  ঘটাচ্ছে যা অন্যতম  প্রধান কারণ বলে মনা করা হচ্ছে ।

শুধু  আজকের ঈদের চারদিনের মাথায় আজই সারাদেশে ২৩ জনের মারা যাওয়ার খবর জানা গেছে।আর ১০০ জনেরও বেশি মানুষের আহত হওয়ার খবরও এসেছে।অনেকের অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন ডাক্তাররা।sork

তার মধ্যে আজকের সবচেয়ে বড় ও মর্মান্তিক সড়ক  দুর্ঘটনাটি ঘটেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে।সেখানে বরযাত্রীবাহি মাইক্রোবাসের সাথে বাসের ধাক্কায় বরসহ তিন ভাইয়ের সহ আরো ৫ জনের মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটেছে।

এছাড়া টাঙ্গাইলের কালিহাতি উপজেলার পুংলি এলাকায় যাত্রীবাহী ব‍াস উল্টে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। আহত অন্তত ২০ জন।আজ (শুক্রবার) ১৬ সেপ্টেম্বর ভোর সাড়ে ৫টার দিকে বঙ্গবন্ধুসেতু সংলগ্ন মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বরযাত্রী নিয়ে যাচ্ছিল মাইক্রোবাসটি। ভেতরে বরের সঙ্গে ছিলেন তাঁর দুই ভাই। বিপরীত দিক থেকে আসা একটি যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে মাইক্রোবাসের আট যাত্রী নিহত হলেন। এর মধ্যে বরসহ তিন ভাইও আছেন। এই তিনটি ভাই-ই ছিলেন তাঁরা। আনন্দের হুলুস্থুলের বদলে বিয়েবাড়িজুড়ে এখন কান্নার রোল। sorok2

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার শশই এলাকায় আজ (শুক্রবার) সকাল ১০টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে যাত্রীবাহী বাস ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সরাইল বিশ্বরোড মোড় হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ূন কবির বলেন, ঘটনাস্থল থেকে সাতজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। আহত অবস্থায় উদ্ধার করে চারজনকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন একজন মারা যান।

হতাহত ব্যক্তিরা সবাই মাইক্রোবাসের যাত্রী। বরসহ বরযাত্রী নিয়ে মাইক্রোবাসটি সিলেট থেকে ঢাকায় যাচ্ছিল। এনা পরিবহনের যাত্রীবাহী বাসটি বিপরীত দিক থেকে আসছিল।

দুর্ঘটনায় বর মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের রুপশপুর গ্রামের আবু সুফিয়ান (২৫), তাঁর মামা হাজি আবদুল হান্নান (৬৫), বরের দুই ভাই কামরান (২০) ও ফয়ছল (২৩), বরযাত্রী মুর্শেদ (২৫), হাবিবুল (২২), আলী হোসেন (২৫) ও মুক্তার মিয়া (৪২) নিহত হন। বরেরা তিন ভাই। তিনজনই এই দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন।

তিন ছেলে ও স্বজনদের দুর্ঘটনার খবরে বিয়েবাড়ির আনন্দ এখন কান্নায় রূপ নিয়েছে। বরের রুপশপুর গ্রামের বাড়িতে এখন মাতম চলছে।

নিহত হাজি আবদুল হান্নানের স্বজন ওয়ার্কার্স পার্টির মৌলভীবাজার জেলার সাধারণ সম্পাদক আবদুল আহামদ মিনার বলেন, শুধু কান্না ছাড়া আর কিছু নেই।

টাঙ্গাইলের কালিহাতি উপজেলার পুংলি এলাকায় যাত্রীবাহী ব‍াস উল্টে চার জন নিহত হয়েছেন। আহত অন্তত ২০ জন।আজ (শুক্রবার) ১৬ সেপ্টেম্বর ভোর সাড়ে ৫টার দিকে বঙ্গবন্ধুসেতু সংলগ্ন মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

কালিহাতি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. ওহাব মিয়া জানান, উত্তরবঙ্গ থেকে ঢাকাগামী বনশ্রী পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস পুংলি এলাকায় মহাসড়কের পাশে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনজন ও হাসপাতালে নেওয়ার পথে একজনের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলেও জানান এসআই।

দিনাজপুরে ২জন ও হবিগঞ্জে ৩ জন নিহত হয়েছেন।

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরাকান মহাসড়কের পটিয়া আমজুর হাট এলাকায় ‘সৌদিয়া’ বাস ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে মাইক্রোচালক মো. আবদুল মোনাফ (২৬) নিহত হয়েছেন। তিনি কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার চা-বাগান এলাকার আমির হামজার ছেলে।

শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বেলা একটার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পটিয়া হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ জিল্লুর রহিম জানান, উজিরপুর এলাকায় চট্টগ্রামগামী মাইক্রোবাস ও কক্সবাজারগামী সৌদিয়া চেয়ার কোচের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। মাইক্রোচালককে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেছে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। দুর্ঘটনাকবলিত গাড়ি দুটি আটক করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে,  দুর্ঘটনায় দুটি গাড়ির ২০জন যাত্রী আহত হয়েছে। এর মধ্যে গুরুতর কয়েকজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আহতরা হলেন সানজিদা (৫), আরিফ (২৬), ফরহাদ (২৬), মিনহাজ (১৮), মো. জোসেফ (৪৮), মুজিবুর রহমান (৫০), নিজাম উদ্দীন (২৫), মো. মামুন (২৬), মোস্তাক উল্লাহ (১৭), মো. হারুনুর রশিদ (৬০), মো. তৌসিফ (৫), মো. জাফর (৪০), মো. হারুন (২৪) প্রমুখ।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে বর যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে আনিছুর রহমান নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এতে আরও ২৫ যাত্রী আহত হয়েছেন।

শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৫টায় ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের মহিমাগঞ্জ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।আনিছুর রহমান গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার নামাচারপাড়া গ্রামের মো. খরকু মিয়ার ছেলে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুব্রত সরকার জানান, বিকেলে গোবিন্দগঞ্জ শহর থেকে বর যাত্রীবাহী বাস বগুড়ার দিকে যাচ্ছিলো। বাসটি মহিমাগঞ্জ এলাকায় পৌঁছালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই আনিছুর নিহত ও ২৫ যাত্রী আহত হন।

আহতদের উদ্ধার করে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া বাসটি উদ্ধারে চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে জানান তিনি।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

আজ সংসদের নকশার বাক্স খোলা হতে পারে

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আনা জাতীয় সংসদ ও আশপাশের এলাকার নকশার বাক্স বুধবার খোলা হতে পারে বলে …

Mountain View

আপনার-মন্তব্য