Mountain View

প্রস্তুত টাইগার স্কোয়াড

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৬ at ৮:৩০ পূর্বাহ্ণ

নিরাপত্তার শঙ্কাতে বাংলাদেশ সফর থেকে ইংল্যান্ডের তারকা ক্রিকেটারদের নাম প্রত্যাহার হতে পারে এমন আশঙ্কা ছিল। দলের অধিনায়ক এউইন মরগান সরে দাঁড়ালে শঙ্কা আরও জোরালো হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স হেলস ছাড়া আর কোন তারকা ক্রিকেটার এই সফরে আসতে আপত্তি জানায়নি। এতে শক্তিধর দল নিয়েই বাংলাদেশ সফরে আসছে ইংল্যান্ড। আর প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন বলেন, শক্তিধর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত টাইগার স্কোয়াড।   ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) ঘোষিত দলে ৩ নতুন মুখ। তবে ইংলিশদের ১৫ সদস্যের ওয়ানডে ও ১৭ জনের  টেস্ট স্কোয়াডকে পূর্ণশক্তির দল না বললে ভুলই হবে। আর বাংলাদেশের মাটিতে ইংল্যান্ডকে মোকাবিলা করতে প্রস্তুত টাইগাররা। গতকাল এমন দৃঢ়তা দেখালেন বাংলাদেশ দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। ইংলিশদের বিপক্ষে সেরা টাইগার স্কোয়াড থাকবে বলে জানালেন তিনি। তিনি মানবজমিনকে বলেন, ‘ইংল্যান্ডের টেস্ট ও ওয়ানডে দল দিয়েছে। আমি মনে করি দুটি দলই ভীষণ শক্তিশালী। ওদের পূর্ণশক্তির দলই বাংলাদেশে পাঠাচ্ছে তারা। চ্যালেঞ্জটা তাই একটু কঠিন। তবে আমরাও প্রস্তুত। এই দলের মোকাবিলা করার শক্তি আমাদের আছে। আমরা ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট ও ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সেরা খেলোয়াড়দেরই সুযোগ দেব। আশা করি দারুণ একটা সিরিজ হবে।’

ইংল্যান্ডের টেস্ট দলে অভিজ্ঞ অ্যালিস্টার কুক, মঈন আলী, জেমস অ্যান্ডারসন, জনি বেয়ারস্টো, গ্যারি ব্যালান্স, গ্যারেথ ব্যাটি, স্টুয়ার্ট ব্রড, জস বাটলার, স্টিভেন ফিন, আদিল রশিদ, জো রুট, বেন স্টোকস, ক্রিস ওকস, মার্ক উড। এতে ৩ নতুন মুখ অলরাউন্ডার জাফর আনসারি, ওপেনিং ব্যাটসম্যান হাসিব হামিদ ও উইকেটরক্ষক বেন ডাকেট। ওয়ানডের নিয়মিত অধিনায়ক এউইন মরগান না থাকায় নেতৃত্ব দিবেন জস বাটলার। ওয়ানডে দলে রয়েছেন অভিজ্ঞ মঈন আলী, জনি বেয়ারস্টো, জ্যাক বল, স্যাম বিলিংস, লিয়াম ডসন, লিয়াম প্লাঙ্কেট, আদিল রশিদ, জেসন রয়, বেন স্টোকস, জেমস ভিন্স, ডেভিড উইলি, ক্রিস ওকস, মার্ক উড। টেস্ট দল থেকে নতুন মুখ বেন বেন ডাকেট থাকলেও বিশ্রাম দেয়া হয়েছে দলের অন্যতম ব্যাটিং ভরসা জো রুটকে। তবে ইংল্যান্ড দলের নতুন বা অভিজ্ঞ কোনো ক্রিকেটারকে নিয়ে আলাদা ভাবে চিন্তা করছেন না টাইগারদের প্রধান নির্বাচক। মিনহাজুল আবেদীন বলেন, ‘আমি তো বলেছি ওদের টেস্ট ও ওয়ানডে এক কথায় পূর্ণশক্তির দল। এখানে কুক, বাটলার বা তরুণ হাসিব হামিদকে নিয়ে আলাদা করে চিন্তা করার কিছুই নেই। ওদের অভিজ্ঞতা ও তারুণ্য মিশেলে যেমন দল দিয়েছে সেই দলের বিবেচনায় আমাদেরও শক্তিশালী দল দিতে হবে। টিম বাংলাদেশ যেমন হয়। এখানে আমরা বিশেষ কাউকে দলে না নিয়ে এমন দল দিতে হবে যেন ওদের শক্তিকে মোকাবিলা করতে পারে।’

৩০শে সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সফরে আসবে ইংল্যান্ড। এর একটি প্রস্তুতি ম্যাচ শেষে ৭ অক্টোবর থেকে মাঠে গড়াবে তিন ম্যাচের দিবারাত্রির ওয়ানডে সিরিজ। অবশ্য ইংল্যান্ড আসার আগেই বাংলাদেশ সফরে আসছে আফগানিস্তান। ২৫শে সেপ্টেম্বর থেকে আফগানদের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে মাশরাফি বাহিনী। এই বছর টাইগারদের আন্তর্জাতিক ওয়ানডে খেলার সুযোগ হয়নি। শুধু টি-টোয়েন্টিই খেলতে হয়েছে। অবশ্য ঘরোয়া ঢাকা  প্রিমিয়ার লীগে খেলেছে সাকিব-তামিমরা। তাই বলতে গেলে আফগানদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটিও টাইগারদের জন্য চ্যালেঞ্জর। সেই সঙ্গে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের আগে প্রস্তুুতি ও দলে সুযোগ পাওয়া ক্রিকেটারদের জন্য পরীক্ষাও।

এই বিষয়ে প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘আমরা আগেই বলেছি আফগানিস্তান হোক আর ইংল্যান্ড কোনো প্রতিপক্ষের বিপক্ষে আমাদের দল নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগ নেই। করতেও চাই না। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে দলে সেরা ক্রিকেটাররাই খেলবেন। তেমনি ইংল্যান্ডের বিপক্ষেও। তবে আমি বলবো না আফগানদের বিপক্ষে যারা খেলবেন তাদের জন্য এটি পরীক্ষা। আমি বলবো সেরা ক্রিকেটারদের প্রমাণের এটি একটি চ্যালেঞ্জ। আমি বিশ্বাস করি যারাই সুযোগ পাবেন তারা নিজেদের সেরা খেলাটি দেশের জন্য খেলবেন। এখানে আমাদের যারা আছে তাদের আমি আলাদা করে নাম বলতে চাই না।’

এ সম্পর্কিত আরও