‘পিংক’ সিনেমায় অমিতাভ বচ্চনকে কেন এই ‘অক্সিজেন মাস্ক’ পরতে হয়েছিল?

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৬ at ৫:০০ অপরাহ্ণ

1474525784বিনোদন ডেস্ক: ‘ট্রেনিং মাস্ক’-এই নামেই বিশ্ব চেনে তাকে। কিন্তু, এই ‘মাস্ক’ হঠাৎ ‘পিংক’ ছবিতে কেন ব্যবহার করলেন অমিতাভ বচ্চন?বুধবার কলকাতায় ছবির প্রোমোশনে এসে অমিতাভকে সেই প্রশ্নও শুনতে হয়েছে।সাংবাদিক বৈঠকের মধ্যেই এই ‘মাস্ক’ পরার কারণ খোলসা করলেন অমিতাভ। অমিতাভের শ্বাসকষ্টের সমস্যা এবং শরীরে অক্সিজেনের ঘাটতি বোঝাতেই এই ‘ট্রেনিং মাস্ক’ পরানো হয়েছিল।‘ট্রেনিং মাস্ক’ নামে পরিচিত এই মুখোশের সামনে দু’টো ছোট খাপের মতো জিনিস রয়েছে। এগুলি আসলে ফ্যান।এই ফ্যানগুলি বাইরের বাতাস টেনে ‘মাস্ক’-এর মধ্যে অক্সিজেনের একটা প্রবল বেগ তৈরি করে, এবং নাক দিয়ে তা খুব সহজেই শরীরে প্রবেশ করে। প্রবল শ্বাসকষ্টে আক্রান্তরা সাধারণত খোলা মুখে যতটা অক্সিজেন শরীরে টানতে পারে, তার থেকে বেশি অক্সিজেন শরীরে পাঠাতে সক্ষম এই ‘ট্রেনিং মাস্ক’ ম্যারাথন দৌড়বীরদের অনেকসময় এই ‘মাস্ক’ ব্যবহার করতে দেখা যায়। আবার, উঁচু জায়গায় উঠলে যাঁরা শ্বাসকষ্টে ভোগেন তাঁদেরও এই ‘মাস্ক’ পরতে হয়।‘পিংক’-এ তাঁর মুখে থাকা এই ‘মাস্ক’ যে একটা আলাদা মাত্রা যোগ করেছে তা মানছেন খোদ অমিতাভও। বিশেষ করে ‘মাস্ক’-এর মধ্যে থাকা দু’টি ফ্যানের আওয়াজ তাঁর শারীরিক কষ্টকে খুব সুন্দরকে বুঝিয়েছে বলেও এদিন জানান তিনি। এছাড়াও, দিল্লির দূষণের মাত্রা বোঝানোরও দরকার ছিল। তাই এই ‘মাস্ক’ ছবির প্রয়োজনীয় অঙ্গ হয়ে উঠেছিল বলে অমিতাভ জানিয়েছেন। তাই যখনই তিনি রাস্তায় বের হচ্ছিলেন তখনই এই ‘ট্রেনিং মাস্ক’ পরছিলেন। আবার যখন, গাছ-গাছালি ঢাকা এলাকায় প্রবেশ করছিলেন, তখন ‘মাস্ক’ খুলে নিচ্ছিলেন অমিতাভ।

এ সম্পর্কিত আরও