Mountain View

কখন টাইগারদের ম্যাচ রিজার্ভ ডেতে গড়াবে?

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৬ at ১:১৪ পূর্বাহ্ণ

ক্রীড়া প্রতিবেদকঃ আফগানিস্তান  সিরিজের প্রস্তাবিত সূচি ছিল ২৫, ২৭ ও ৩০ সেপ্টেম্বর।পরে সেটি বদলে করা হয় ২৫ ও ২৮ সেপ্টেম্বর এবং ১ অক্টোবর।

প্রতিটি ম্যাচের মাঝে এক দিন করে রিজার্ভ ডে রাখতেই এই পরিবর্তন। আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় ছাড়া অন্য কিছুই চায় না বাংলাদেশ। বৃষ্টিতে খেলার সঙ্গে যেন জয়ের সম্ভাবনাও ভেসে না যায়, সে জন্যই রিজার্ভ ডে রাখা।

1aa14354762cec4f584e51327b03cb0a-rain

রিজার্ভ ডেতে ম্যাচ যাওয়া মানেই বাড়তি আয়োজন, বাড়তি ঝক্কি। একদিনেই ম্যাচ শেষ করার সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকে আয়োজকদের।

প্রতিটি ম্যাচেই হাতে অতিরিক্ত ৬০ মিনিট রাখা হয়। যদি বৃষ্টির কারণে খেলা শুরু হতে বা শেষ হতে কিছু সময় বিঘ্ন ঘটে, হাতে থাকা ওই সময়টা ব্যবহার করেন ম্যাচ রেফারি। ধরুন, সূচি অনুযায়ী খেলা শুরু হওয়ার কথা ২টা ৩০ মিনিটে। তখনই শুরু বৃষ্টি। এরপর যদি বেলা সাড়ে তিনটার মধ্যে খেলা শুরু করা যায় এবং বৃষ্টি যদি আর না আসে, তাহলে পুরো ৫০ ওভারই খেলা হবে। খেলা শেষ হওয়ার কথা ১০টা ১৫ মিনিটে থাকলে, সেটি হবে ১১টা ১৫ মিনিটে।

হাতে থাকা অতিরিক্ত ৬০ মিনিটও যদি শেষ হয়ে যায় এবং এই সময়ের পরে খেলা শুরু হলে ওভার কাটা হবে। বৃষ্টির কারণে কত সময় নষ্ট হয়েছে, তার ওপর নির্ভর করে ওভার কাটার বিষয়টি। নিশ্চয়ই মনে পড়বে, ২০১৪ সালের জুনে ভারতের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেটি নেমে এসেছিল ৪১ ওভারে। কাটা হয়েছিল ৯ ওভার।

বৃষ্টি-বিঘ্নিত ম্যাচে শেষ সমাধান ডাকওয়ার্থ-লুইস (ডি-এল) পদ্ধতি। তবে  ডি-এলে ম্যাচ গড়াতে হলে অবশ্যই ২০ ওভার খেলা হতে হবে।

এরপরও নির্দিষ্ট দিনে শেষ না হলে ম্যাচ চলে যাবে রিজার্ভ ডেতে। কিন্তু রিজার্ভ ডেতে খেলা হবে কীভাবে? আগের দিন যেখানে শেষ হয়েছিল, ঠিক ওখান থেকেই শুরু হবে ম্যাচ। অবশ্য নির্ধারিত দিনে একটি বলও মাঠে না গড়ালে পরের দিন শুরু হবে প্রথম থেকে। রিজার্ভ ডেতেও শেষ করা না গেলে পরিত্যক্ত হবে ম্যাচ।

এ সম্পর্কিত আরও