Mountain View

একটু বৃষ্টি হলেই মহাস্থান পানির নিচে দেখার কেউ নেই !

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৬ at ৪:২৯ অপরাহ্ণ

বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়ার মহাস্থানে ত্রীমোহনী উপজেলা গেট সংলগ্ন এলাকায় নামে মাত্র একটু বৃষ্টি হলেই শিবগঞ্জ উপজেলার ঐতিহাসিক মহাস্থানগড়ে প্রবেশের প্রধান সড়কে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। এখানে দ্রুত পানি নিষ্কাশনের যথাযথ ব্যবস্থা না থাকায় এ সমস্যার সৃষ্টি হয় বলে একাধিক বার পত্রপত্রিকা ও অনলাইন সংবাদ ডটকমে সংবাদ প্রকাশের পরও কর্তৃপক্ষের কোন টনক নড়েনি। সড়কে এ জলাবদ্ধতা সৃষ্টির কারনে মহাস্থানগড়ে ভ্রমণে অাসা পর্যটক, মাযার জিয়ারতকারী মুসাল্লিরা ও যানবাহন চালকদের দূর্ভোগ যেনো নাভিস্বাসে পরিনত হয়। শতশত ব্যবসায়ীদের রুজির পথ বন্ধ হয়ে যায়। শুধু এই নয়, মহাস্থান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উচ্চ বিদ্যালয়, অালিম মাদ্রাসা, মাহীসওয়ার ডিগ্রি কলেজ, দি মোর্নিং সান কেজি স্কুল, ইকরা মডেল কেজি স্কুল ও মোকবুল হোসেন অাদর্শ কেজি স্কুল, উল্লেখ্য এ ৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীরা সহজ ও নিরাপদ এই রাস্তাটি জলাবদ্ধতার কারনে চলাচল করতে না পেরে তারাও পড়ে ভোগান্তির কবলে। ফলে এসব ছাত্রছাত্রীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মহাসড়ক ব্যবহার করে বিদ্যালয়ে পাড়ি জমাচ্ছে। অনেক শিক্ষার্থীকে সড়কে জমে থাকা নোংরা পানির মধ্যদিয়ে বিদ্যালয় থেকে বাড়ি ফিরতেও দেখা গেছে। স্থানীয় এলাকাবাসী ও ব্যবসায়ী মহল জানায়, বগুড়া-রংপুর মহাসড়কের মহাস্থান হাটের কাছ থেকে যে সড়কটি শিবগঞ্জ উপজেলার দিকে গেছে, সেটিই শিবগঞ্জ-মহাস্থানগড়ে প্রবেশের প্রধান সড়ক। ঐতিহাসিক মহাস্থান গড়কে ঘিরে এখানে গড়ে উঠেছে প্রষিদ্ধ বাজার। এই বাজারের কাছের সড়কটির ৫০০ ফুট এলাকায় সামান্য বৃষ্টিতেই পানি জমে যায়। বগুড়া-রংপুর মহাসড়ক এই সড়কটির চেয়ে অনেক উঁচু। তাই সামান্য বৃষ্টি হলেই মহাসড়ক থেকে ও মাযারের উঁচু স্থান গুলো গরিয়ে শিবগঞ্জ-মহাস্থানগড় সড়কে এসে জমাটবদ্ধ হয়। রাস্তার পাশ দিয়ে তৎকালীন পানি নিস্কাশনের জন্য একটি ড্রেন নির্মাণ হলেও তা বর্তমানে অযত্ন অবহেলায় ময়লা অাবর্জনা দিয়ে ভরাট হয়ে গেছে। ড্রেন দিয়ে পানি নিস্কাশন না হওয়ায় এখানে জলাবদ্ধতা দীর্ঘস্থায়ী হয়। বর্তমান সময়ে পানিতে রাস্তার দু’পাশে ব্যবস্যায়ীদের লালবাতি জলছে ।
তাই দ্রুত পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা করা দরকার

এ সম্পর্কিত আরও