ঢাকা : ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, সোমবার, ৮:৫১ অপরাহ্ণ
সর্বশেষ
পাকিস্তানের দ্বারস্থ হচ্ছে ভারত! ভিডিও বার্তার জবাবে হুমকি পেলেন সাব্বির! বান্দরবানে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বার্ষিক সভা ও নির্বাচন অনুষ্ঠিত ‘গণতন্ত্রের ভিত্তিকে শক্তিশালী করতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে’ ‘শান্তিরক্ষা মিশনে অস্ত্রশস্ত্র ভাড়া বাবদ বাংলাদেশের বার্ষিক আয় ৪৩৭,৫২,৯৫,২৬৪ টাকা’ দেশে আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পরিচয় মিলল দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে নিহত হওয়া তিন যুবকের বিদেশের কারাগারে বন্দী ১০ হাজার বাংলাদেশি ‘২০১৮ সালের মধ্যে নিরক্ষরমুক্ত হবে দেশ’ গণতন্ত্রের মানসপুত্র হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর ৫৩তম মৃত্যুবার্ষিকী
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

কেন টাইগার স্কোয়াডে বাড়তি স্পিনার?

252789

প্রথম দিন খেলা হলো একদম ফ্ল্যাট উইকেটে। তামিমের নিশ্চিত সেঞ্চুরি মিস আর মাহমুদউল্লাহর হাতে বড় ইনিংস খেলার সুযোগ হেলায় হাতছাড়া করার পরও টাইগারদের স্কোর গিয়ে দাঁড়াল ২৬৫-এ।

ওই রান তাড়া করে প্রায় জিতেই গিয়েছিল আফগানরা; কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচেই উইকেটের আচরণে বড় ধরনের পরিবর্তন। ফ্ল্যাট ট্র্যাকের বদলে স্লো উইকেট। ব্যাটিং উইকেটের জায়গায়  স্লো ও স্পিন সহায়ক পিচ।

খুব স্বাভাবিকভাবেই স্কোরলাইন গেল ছোট হয়ে। মাশরাফির দল থামল ২০৮ রানে। ওই রান আটকাতেই নাভিশ্বাস মাশরাফিদের। উইকেটের আচরনে পরিবর্তন আসার ২৪ ঘন্টার মধ্যে আবার স্বগতিক লাইন আপেও রদ বদল। পেসার রুবেল হোসেন বাইরে। তার বদলে বাঁ-হাতি স্পিনার মোশাররফ রুবেল ১৪ জনের দলে।

দ্বিতীয় ম্যাচে স্লো  ও স্পিন সহায়ক উইকেটে আর শেষ ম্যাচের আগে স্কোয়াডে এ রদবদল দেখে অনেকের মনেই প্রশ্ন জাগছে- তবে কি আবার স্লো ও স্পিন সহায়ক উইকেট এবং স্পিন কেন্দ্রিক বোলিংয়ে ফিরে যাওয়া?

১ অক্টোবর আফগানদের সাথে শেষ ম্যাচে তিন থেকে এক পেসার কমিয়ে দুইয়ে নামিয়ে এনে তিন তিনজন স্পিনার নিয়ে মাঠে নামবে মাশরাফির দল? ইতিহাস জানাচ্ছে, গত বছর বাংলাদেশ টানা চার সিরিজ (পাকিস্তান, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা ও জিম্বাবুয়ে) জিতেছে তার অন্যতম রূপকারই ছিলেন পেস বোলাররা।

পেসাররা ভাল বল করায় ওই চার দলের বিরুদ্ধে ১২ খেলার ১১টিতে তিনজন করে পেসার খেলানো হয়েছে। এমনকি যে জিম্বাবুয়েকে অতীতে বহুবার শুধু স্পিনে ঘায়েল করার রেকর্ড আছে, সেই দলের বিরুদ্ধেও গত নভেম্বরে তিন ম্যাচেই তিনজন করে পেসার (মাশরাফি, মোস্তাফিজ ও আল-আমিন) খেলেছেন।

গত চার ওয়ানডে সিরিজে শুধু একটি ম্যাচে দু’জন মাত্র পেসার খেলানোর রেকর্ড আছে। দিনটি ছিল ২০১৫ সালের ১০ জুলাই। ওই দিন শেরে বাংলায় দক্ষিণ আফ্রিকার সাথে দুই স্পেশালিষ্ট স্পিনার সাকিব-জুবায়ের হোসেন লিখনের সাথে পেসার কোটায় খেলেন মাশরাফি ও মোস্তাফিজ। ওই ম্যাচ হারের পর বাকি দুই খেলায় তিন পেসার (মাশরাফি, মোস্তাফিজ, রুবেল) খেলেন। তাতে সাফল্যের দেখাও মেলে।

এখন আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে ১৪ জনে এক ঝাঁক স্পিনারের ছড়াছড়ি। সাকিব আল হাসানের সাথে বাঁ-হাতি স্পিনারই তিনজন; তাইজুল ইসলাম ও মোশাররফ রুবেল। পেসারও সমান- মাশরাফি, তাসকিন আর শফিউল।

এখন শেষ ম্যাচে এই দিন পেসার খেলবেন? না এক পেসার কমিয়ে তিন বাঁ-হাতি স্পিনারকেই খেলানো হবে? তা নিয়েই রাজ্যেও সব জল্পনা-কল্পনা, গুঞ্জন।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

68c6a1d425672e5846dcf5dbe32a3b36x600x400x33

বিপিএলে সেরা ১০ ব্যাটসম্যানের ৭ জনই বাংলাদেশি, তালিকাটি দেখে নিন

স্পোর্টস ডেস্ক: বিপিএলে ব্যাটিংয়ে দাপট দেশের ক্রিকেটারদেরই। বিপিএলে ব্যাটিং পারফরম্যান্সে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের জয়জয়াকার। শেষ চারের …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *