ঢাকা : ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, বৃহস্পতিবার, ৬:১৪ পূর্বাহ্ণ
সর্বশেষ
ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি কার্যক্রম বন্ধে আইনি নোটিশ ‘রোহিঙ্গাদের অবারিত আসার সুযোগ দিতে পারি না’প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে ২১ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম দেশে এইচআইভি আক্রান্ত ৪ হাজার ৭২১ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানাজায় লাখো মানুষের ঢল,শেষ শ্রদ্ধায় শাকিলের দাফন সম্পন্ন ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা দ্বীপে ভূমিকম্পে নিহতের সংখ্যা ৯৭ সংসদে রোহিঙ্গা ইস্যুতে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী বগুড়ায় জাতীয় বিদ্যুৎ ও জ্বালানী সপ্তাহ ২০১৬ উদ্বোধন ও র‌্যালী অনুষ্ঠিত অভিনয়েই নয় এবার শিক্ষার দিক দিয়েও সেরা মিথিলা শিশুদের ওজনের ১০ শতাংশের বেশি ভারী স্কুলব্যাগ নয়
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

অভিনন্দন ও ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হলেন প্রধানমন্ত্রী

6532a87c8161bde7c5dada634f4d128dx300x200x16জনতার অভিনন্দন ও ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হলেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। তাকে অভ্যর্থনা জানাতে দীর্ঘ ১৪ কিলোমিটার পথজুড়ে নামে জনতার ঢল।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনে যোগদান শেষে এমিরেটস এয়ার লাইন্সের ফ্লাইট ইকে-৫৮৬ শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা ৫০ মিনিটে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তিনি গণভবনে পৌঁছান। খবর বাসসের
প্রধানমন্ত্রীকে বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত পথে রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে পতাকা উড়িয়ে, ফুল ছিটিয়ে, হাত নেড়ে ও মুহুর্মুহু স্লোগানে অভ্যর্থনা জানান হাজার হাজার নেতাকর্মী। এ সময়ে প্রধানমন্ত্রী গাড়িতে বসে হাত নেড়ে জনতার অভিনন্দনের জবাব দেন। গণভবনে পৌঁছতে শেখ হাসিনার সময় লাগে প্রায় ৩০ মিনিট।
প্রধানমন্ত্রী ‘প্লানেট ৫০:৫০ চ্যাম্পিয়ন’ এবং ‘এজেন্ট অব চেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড’ পাওয়া ও যুক্তরাষ্ট্র-কানাডায় সফল সফরের জন্য তার আগমনে গণঅভ্যর্থনার আয়োজন করে আওয়ামী লীগ।
বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে জনতার ঢল নামে। ব্যান্ড পার্টি, ভুভুজেলা বাজিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানানো হয়। হাতে থাকা জাতীয় ও দলীয় পতাকা উড়িয়ে তাকে স্বাগত জানানো হয়। কখনো ছিটিয়ে দেন ফুলের পাপড়ি।
এর আগে বিমান থেকে নেমে আসার পর আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী ফুলের তোড়া দিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান।
এ সময়ে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, এলজিআরডি ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মাহবুব-উল আলম হানিফ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হক, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, রেলপথ মন্ত্রী মুজিবুল হক, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা, ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র, মন্ত্রী, উপমন্ত্রী, সংসদ সদস্য এবং পদস্থ সরকারি কর্মকর্তারাও প্রধানন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন।
শেখ হাসিনা এমিরেটসের ফ্লাইটে বৃহস্পতিবার রাতে ওয়াশিংটনের ডুলেস ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট ত্যাগ এবং ঢাকার পথে দুবাইয়ে চার ঘণ্টা যাত্রাবিরতি করেন।
প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমান ৬টা ৫০ মিনিটে বিমানবন্দরে অবতরণ করলেও দুপুরের পর পরই বিজয় সরণি থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত রাস্তার দু’পাশে আওয়ামী লীগ এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীসহ জনতার ঢল নামে।
এ সময়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন গাড়িতে চড়ে বিভিন্ন স্থান ঘুরে দলীয় নেতাকর্মীদের অবস্থান পরিদর্শন করেন।
বিমানবন্দর, খিলক্ষেত, কুড়িল বিশ্বরোড, শ্যাওড়া, কাকলী, বনানী, সৈনিক ক্লাব, চেয়ারম্যানবাড়ি, আমতলী, মহাখালী, জাহাঙ্গীর গেট, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়, বিজয় সরণি থেকে গণভবন পর্যন্ত পুরো সড়কই ছিল আওয়ামী নেতাকর্মীদের দখলে।
এছাড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী, সাভার, মুন্সীগঞ্জ, গাজীপুরসহ ঢাকা ও ঢাকার আশপাশ থেকে শতশত বাস-ট্রাকে করে, বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে সংসদ সদস্য, দলীয় নেতাকর্মী এবং সমর্থকরা প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা-অভিনন্দন জানাতে আসেন। গাজীপুরের সংসদ সদস্য জাহিদ আহসান রাসেলের নেতৃত্বে হাজার হাজার নেতাকর্মী দক্ষিণখান এলাকায় দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান।
ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টারসহ ঢাক-ঢোল বাজিয়ে পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদ, প্রকৌশলী, চিকিৎসক, কৃষিবিদ, ডিপ্লোমা প্রকৌশলী, আইনজীবী, সাংবাদিক, শিক্ষক নেতা, ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব, সংস্কৃতি কর্মী, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, নারী সংগঠন ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নেতারাসহ সর্বস্তরের মানুষ বিভিন্ন স্পটে সমবেত হয়।
এদিকে, প্রধানমন্ত্রীর অভ্যর্থনা অনুষ্ঠানকে সুশৃঙ্খল করতে বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত ৮টি রুটে ভাগ করা হয়। স্থানীয় সংসদ সদস্যদের নেতৃত্বে সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা এসব রুটে দাঁড়িয়ে কর্মসূচিতে অংশ নেন।
এদিকে, জাতীয় সংসদ ভবনের উত্তর পাশের ক্রিসেন্ট লেক সংলগ্ন সড়কে সারিবদ্ধভােেব দাঁড়িয়ে জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, হুইপ আতিউর রহমান আতিক, হুইপ মো. শহীদুজ্জামান সরকার, হুইপ ইকবালুর রহিম, হুইপ মো. শাহাব উদ্দিন, সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদসহ সংসদ সদস্যরা প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানান।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

গণধর্ষণের লজ্জায় স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যার চেষ্টা

মাদারীপুরের কালকিনির গোপালপুর এলাকায় গণধর্ষণের শিকার হয়ে এক স্কুলছাত্রী আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। তাকে উদ্ধার করে …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *