Mountain View

বেনাপোলের গুদামে ভয়াবহ আগুন, পুড়লো থানাও

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ২, ২০১৬ at ৮:৪৬ পূর্বাহ্ণ

agun

বেনাপোল বন্দরের পণ্য গুদামে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুন ছড়িয়ে পড়েছে পোর্ট থানা ভবনসহ বন্দরের অন্যান্য পণ্য গুদামেও। এমনকি গুদাম ও থানা ছাড়িয়ে আগুন ছড়িয়েছে রাস্তায়ও।

আজ (রোববার) ২ অক্টোবর ভোর ৬টা ৫ মিনিটের দিকে বন্দরের ২৩ নম্বর পণ্য গুদাম থেকে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। তবে প্রতিবেদনটি লেখা পর্যন্ত সকাল সোয়া ৮টায় ফায়ার সার্ভিসের ৮টি ইউনিটের প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসতে শুরু করেছে। এখন পর্যন্ত পরিস্থিতি ৮০ শতাংশ নিয়ন্ত্রণে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভোরে ২৩ নম্বর গুদামে ধোঁয়া উঠতে দেখেন স্থানীয়রা। কিছুক্ষণের মধ্যেই দাউদাউ করে জ্বলে ওঠে আগুন। এক পর্যায়ে তা বন্দরের পাশের পণ্য গুদাম ও পণ্যাগারের পাশে পোর্ট থানাভবনেও ছড়িয়ে পড়ে। আগুন ছড়িয়ে পড়ে রাস্তায়ও, এর ফলে রাস্তায় মালামাল লোডিংয়ের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে থাকা একটি বাংলাদেশি ট্রাক ও একটি ভারতীয় ট্রাকে আগুন ধরে যায়।

সোয়া ৮টার দিকে বেনাপোল স্থলবন্দরের পরিচালক নিতাই চন্দ্র সেন জানান, আগুন লাগার পরপরই বন্দর ফায়ার সার্ভিসের দু’টি ইউনিট কাজ শুরু করে। এরপর খবর পেয়ে পৌনে ৮টার দিকে যশোর থেকে ছুটে এসে আগুন নেভাতে লেগে পড়ে আরও ৬টি ইউনিট। এই মুহূর্তে আগুন প্রায় ৮০ ভাগ নিয়ন্ত্রণে।

এখন আর ছড়ানোর কোনো আশঙ্কা নেই।তবে স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, বন্দর ফায়ার সার্ভিসের লোকবল ও সরঞ্জাম সংকটের কারণে আগুন তৎক্ষণাৎ নেভানো যায়নি, যে কারণে পণ্য গুদাম ছাড়িয়ে আগুন ধরেছে পোর্ট থানা ভবন এবং রাস্তায়ও। পরে যদিও প্রায় পৌনে ২ ঘণ্টার মাথায় যশোর থেকে ৬টি ইউনিট আগুন নেভাতে ছুটে এসেছে। কিন্তু ততক্ষণে প্রায় সবকিছু পড়ে গেছে।

স্থানীয়রা বলেন, দেশের প্রধান এ স্থলবন্দরে এর আগেও ৫-৬ বার আগুন লেগেছিল। বন্দর ফায়ার সার্ভিসে আগুন নেভানোর ব্যবস্থা পর্যাপ্ত নেই বলে সবসময়ই তা ছড়িয়ে পড়ে। এবার তা আরও ভয়াবহ আকারে ছড়ালো।

এ সম্পর্কিত আরও

আপনিও লিখুন .. ফিচার কিংবা মতামত বিভাগে লেখা পাঠান [email protected] এই ইমেইল ঠিকানায়
সারাদেশ বিভাগে সংবাদকর্মী নেয়া হচ্ছে। আজই যোগাযোগ করুন আমাদের অফিশিয়াল ফেসবুকের ইনবক্সে।