Mountain View

১৩ বছরের মেয়েটির শেষ আত্নচিৎকার

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ৩, ২০১৬ at ৬:৩৯ অপরাহ্ণ

20161003183040
জোবায়ের তুহিন (বিডি২৪টাইমস ডেস্ক): কক্সবাজারের রামু উপজেলা’র ১৩ বছরের মেয়ে ফারহানা ইসলামের(ছদ্মনাম) কথা ছিল অন্যদের মত পড়াশুনা করার কিংবা নিয়মিত স্কুলে যাওয়ার । কিন্তু ফারহানা’র সে সুভাগ্য জম্মের পর কখনোই কোপালে জোটে নি ।জম্মের পূর্বে পিতা মারা যায়,৭বছরের মাথায় মা ও চলে যায় এতিম মেয়েটাকে পেলে ।মামার বাসায় মামির অসহয্য যন্ত্রণা সহয্য করে কোন ভাবে জীবন চলছিল ।চতুর্থ শ্রেনীতে একটি মাদ্রাসায় অধ্যায়ন রত অবস্থায় মাদ্রাসার শিক্ষকের কু-নজরের পড়ে ধর্ষনের শিকার হয়।এতিম মেয়েটি বাসায় ও কিছু বলতে পারে না ।তাছাড়া বাসায় ও চলছিল গৃহ শিক্ষকের সাথে মামির পরকিয়া ।একদিন রাতে গৃহশিক্ষক ও মামির বিবস্ত্র অবস্থা দেখে ফেলায় এতিম মেয়েটির জীবনে কাল হয়ে দাড়ায়।মামি কিছুদিন যাবত তাকে হুমকি-দমকি দিয়ে চুপ করে রাখলে ও গৃহ-শিক্ষকের কু-নজর পড়ে এতিম মেয়েটির দিকে ।একদিন রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় মামি ও গৃহশিক্ষক ঝাপিয়ে পড়ে অসহায় মেয়েটির উপর।রাত-ভর ধর্ষনের শিকার হয়ে মেয়েটি একদিন পর গলায় ফাসঁ দিয়ে আত্নহত্যা করে ।অসহায় মেয়েটি’র সমাজের মুখে থুথু নিক্ষেপ করে চলে যাওয়ার পরে ও বিচার হয়নি মামি ও তার গৃহশিক্ষকের ।বিচার হওয়া তো দূরের বিষয় স্থানীয় চেয়ারম্যান মামির কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা খেয়ে উল্টো বাচ্চা মেয়েটি কে বেশ্যা আখ্যা দিয়ে দেয় ।আর এইভাবেই প্রতিদিন বাংলাদেশের কোথাও না কোথাও ধর্ষনের শিকার হচ্ছে অসহায় এতিম মেয়ে গুলো ।একুশ শতকে এসে ও যখন সমাজে বিচারহীনতার সংস্কৃতি রয়ে যায় তখন প্রশ্ন ওঠে এই সব অকাল মৃত্যু কিংবা ধর্ষনের প্রকাশ্য ফাসিঁ কিংবা ধর্ষকদের নির্মম শাস্তি কি কখনোই বাস্তাবায়ন হবে না ও বিচারের বানী এইভাবে আর কতদিন নিভৃতে কাদঁবে ??।(ঘটনাটি নির্লজ্জ ও মানুষ্যত্বহীন শিক্ষকের নিজ থেকে শুনলাম)

এ সম্পর্কিত আরও