Mountain View

টানা ৩ সেঞ্চুরিতে বাবরের রেকর্ড

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ৬, ২০১৬ at ১০:১৪ পূর্বাহ্ণ

babarazamসিরিজ শুরুর আগে জায়গা হয়ে পড়েছিল খানিকটা নড়বড়ে। সিরিজের শেষ ম্যাচে নাম উঠল রেকর্ড বইয়ে। টানা তিন সেঞ্চুরিতে পাকিস্তানের বাবর আজম উঠলেন নতুন উচ্চতায়।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম দুই ওয়ানডের মতো শেষটিতেও অসাধারণ এক সেঞ্চুরি উপহার দিয়েছেন বাবর। সিরিজ শুরুর আগে তার সেঞ্চুরি ছিল না একটিও। এখন তিনটি। ক্যারিয়ারের প্রথম তিন সেঞ্চুরিই টানা তিন ইনিংসে করা প্রথম ব্যাটসম্যান বাবর।

তিন সেঞ্চুরির মালায় সাজানো সিরিজে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডও গড়েছেন বাবর। প্রথম ওয়ানডেতে করেছিলেন ১২০, পরেরটিতে ১২৩। বুধবার শেষ ম্যাচে করলেন ১১৭। মোট ৩৬০ রান, তিন ম্যাচ সিরিজে এটিই সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ড।

তিন ম্যাচ সিরিজে আগের রেকর্ডটি ছিল কুইন্টন ডি ককের। ২০১৩ সালে ভারতের বিপক্ষে সিরিজে ৩৪২ রান করেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকান ওপেনার।

ডি ককের আরেকটি কীর্তিরও এবার পুনরাবৃত্তি করেছেন বাবর। তিন ম্যাচ সিরিজের প্রতিটিতেই সেঞ্চুরি করতে পেরেছেন কেবল এই দুজনই।

টানা সেঞ্চুরির বিশ্বরেকর্ডও এখন হাতছানি দিচ্ছে বাবরকে। টানা ৪ ইনিংসে সেঞ্চুরির রেকর্ড কুমার সাঙ্গাকারার। পরের সিরিজে সেই রেকর্ড ছুঁতে নামবেন বাবর।

বাবর, ডি কক ও সাঙ্গাকারা ছাড়া টানা তিন ইনিংসে সেঞ্চুরি আছে আর মাত্র পাঁচ জনের। সূচনা হয়েছিল বাবরের এক পূর্বসূরির হাত ধরে। ১৯৮২ সালের শেষ ও ১৯৮৩ সালের শুরু মিলিয়ে টানা তিন ইনিংসে সেঞ্চুরি করেছিলেন জহির আব্বাস। সেই প্রথম ওয়ানডে ক্রিকেট দেখেছিল এমন কীর্তি।

১৯৯৩ সালে আব্বাসকে ছুঁয়েছিলেন আরেক স্টাইলিশ পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান সাঈদ আনোয়ার।

২০০২ সালে আব্বাস ও আনোয়ারকে ছাড়িয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা জাগিয়েছিলেন হার্শেল গিবস। টানা তিন ইনিংসে সেঞ্চুরির পর চতুর্থ ইনিংসেও পাচ্ছিলেন সুবাস। বাংলাদেশের বিপক্ষে গিবসের রান যখন ৯৬, দক্ষিণ আফ্রিকার জিততে চাই তখন ৬ রান। ওই সময় অলক কাপালির একটি ওয়াইড বল হয়ে যায় বাই চার! গিবস শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৯৭ রানে।

এরপর এবি ডি ভিলিয়ার্স ও রস টেলরও করেছেন টানা তিন ইনিংসে সেঞ্চুরি। এবার তাদেরকে ছাড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ বাবরের সামনে।

ক্যারিয়ারের প্রথম ১০ ওয়ানডেতেই বাবর করেছিলেন ৫ অর্ধশতক। তবে অগাস্টে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে ৫ ম্যাচেও ছুঁতে পারেননি পঞ্চাশ। জমেছিল তাই সংশয়ের মেঘ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজে উড়ে গেছে সেই কালো মেঘ। বাবরের আকাশ এখন ঝকঝকে, অবারিত সম্ভাবনার!

এ সম্পর্কিত আরও