Mountain View

দীর্ঘশ্বাস হয়ে থাকলেন সাকিব আল হাসানও

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ৭, ২০১৬ at ১১:৪২ অপরাহ্ণ

Bangladesh's Shakib Al Hasan walks back to the pavilion after his dismissal by Afghanistan's Dawlat Zadran during their first one-day international cricket match in Dhaka, Bangladesh, Sunday, Sept. 25, 2016. (AP Photo/A.M. Ahad)

স্পোর্টস ডেস্ক: ওপরের ব্যাটসম্যানরা এত ভালো খেলে নিচে খুব একটা সুযোগ হয় না লম্বা ইনিংস খেলার। সর্বোচ্চ ৩০-৪০ রানের মতো করা যায়’—আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ম্যাচসেরা হয়ে এমন ‘আক্ষেপে’র কথা বলছিলেন সাকিব আল হাসান! আজ অবশ্য একটু আগেভাগেই নামার সুযোগ পেয়েছেন তিনি।

সুযোগটা কাজেও লাগিয়েছেন। সেটিও কী দুর্দান্তভাবে! চোখজুড়ানো সব শটে ৫৫ বলে করেছেন ৭৯ রান। কিন্তু আজ রাতে হোটেলে ফেরার পরও হয়তো আক্ষেপই সঙ্গী হবে সাকিবের। এমন দুর্দান্ত ইনিংসটাও যে শেষ পর্যন্ত হয়ে রইল দীর্ঘশ্বাস হয়ে। সাকিব আরও কষ্ট পেতে পারেন এই ভেবে, আমাকে দিয়েই তো শুরু!

কিন্তু সাকিবের কী দায়? ম্যাচের সমীকরণ যেখানে রেখে এসেছিলেন, সেটা যোগ-বিয়োগের অঙ্ক মেলানোর মতোই ছিল সহজ। ৫ উইকেট তখনো হাতে। ৫১ বলে ৩৯ রান দরকার। সাকিব ফেরার সময় যেভাবে হতাশা নিয়ে ফিরলেন, মনে হলো, তখনই যেন একটা ভয় পেয়ে বসেছে তাঁকে।

সতীর্থরা এই সহজ অঙ্কও হয়তো মিলিয়ে দিতে পারবে না। এবং পারলও না! ৯ রানের মধ্যে পড়ে গেল ৫ উইকেট! শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে তাসকিন যখন নামলেন, ইংল্যান্ডের জয় যেন স্রেফ আনুষ্ঠানিকতা।

সাকিবের কি এখন আক্ষেপ হচ্ছে? কেন যে ওইভাবে পুল করতে গেলাম। ওই পুল করতে গিয়েই তো আউট হলেন মিড উইকেটে! এবং এরপরই ধারাবাহিক পতন। যার ফলাফল ২১ রানের পরাজয়।

ব্যাট হাতে নেমেছিলেন ২৬ ওভার পরে। ১৫৩ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে দল তখন ভীষণ চাপে। চাপকে জয় করতে সিদ্ধহস্ত সাকিব দাঁড়িয়ে গেলেন উইকেটে। বাঁহাতি অলরাউন্ডার ইমরুল কায়েসকে দিলেন যোগ্য সংগত। ইমরুল-সাকিবের পঞ্চম উইকেট জুটিতে যোগ হলো ৯২ বলে ১১৮ রান।

বোলিংয়ে দুর্দান্ত সাকিবকে নিয়মিত দেখা গেলেও তাঁর ব্যাটিং-ঝলক দেখা গেল বহুদিন পর। গত বছর জুনে ভারতের বিপক্ষে পর পর দুটি ফিফটি পেয়েছিলেন। প্রায় দেড় বছর পর পেলেন হাফ সেঞ্চুরি। তাও কী বিনোদন দিয়ে। সেই পুরোনো স্কয়ার কাট, ফ্লিক, কাভার ড্রাইভ…অনেক দিন পর ব্যাটিংয়েও ‘চেনা’ সাকিব। ৫০ রানই এসেছে বাউন্ডারি থেকে।

বোলিংয়েও ৫৯ রানে পেয়েছিলেন ২ উইকেট। এরপর ব্যাটিংয়ে যতক্ষণ ছিলেন, বাংলাদেশের জয়টাকেই মনে হচ্ছিল ম্যাচের একমাত্র ফল। সেখান থেকে যেন পর্বতের চূড়া থেকে ভূপাতিত হওয়ার অনুভূতি হলো বাংলাদেশের। সাকিব আউট, তারপরই ৯ রানের মধ্যেই বাংলাদেশ হারাল আরও চার উইকেট।

যার শেষটা হলো এমন এক পরাজয়ে। বাংলাদেশের জন্য কী দুর্দান্ত ম্যাচের কী করুণ পরিণতি! সাকিব হয়তো হোটেলে ফিরে এই আক্ষেপেই পুড়বেন আজ।

 

এ সম্পর্কিত আরও