ঢাকা : ২২ জুলাই, ২০১৭, শনিবার, ৬:৩৯ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

ভালো খেলাই মাশরাফির চিন্তায়

c64be1c0f8374483b34513a2fe604f35-18দুই দলের মুখোমুখি হওয়া ১৬ ওয়ানডের ১৩টিই জিতেছে ইংল্যান্ড। এই তথ্যটা জানা থাকলে বলার অপেক্ষা রাখে না, বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড সিরিজে কে ফেবারিট? নিশ্চিতভাবেই ইংল্যান্ড।

কিন্তু দুই দলের সর্বশেষ চার ওয়ানডে একটু অন্যভাবে ভাবতে বাধ্য করবে। তিনটিতেই জয়ী দলের নাম যে বাংলাদেশ। এর মধ্যে আছে সর্বশেষ দুটি ম্যাচও এবং দুটিই সর্বশেষ দুই বিশ্বকাপে। মিরপুরে আজ থেকে শুরু তিন ওয়ানডের সিরিজের আগে তাই পিছিয়ে রাখা যাচ্ছে না বাংলাদেশকেও।

তবে কাল সিরিজ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে এ প্রশ্নে নিরপেক্ষ পথে হাঁটলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। ‘ফেবারিটে’র পরিচয় গায়ে লাগাতে চাইলেন না বাংলাদেশ অধিনায়ক। বিশ্বকাপের দুই জয় বাংলাদেশ দলকে অনুপ্রাণিত করলেও মাথা থেকে যে ঝেড়ে ফেলা যাচ্ছে না ইংল্যান্ডের সাম্প্রতিক ফর্মটা! বাংলাদেশে আসার আগে সর্বশেষ দুই সিরিজে শ্রীলঙ্কাকে ৩-০ ও পাকিস্তানকে ৪-১-এ হারিয়েছে ওয়ানডে র্যাঙ্কিংয়ের পাঁচ নম্বর দলটি। মাশরাফির কাছে এবারের ইংল্যান্ড সিরিজ তাই নতুন এক চ্যালেঞ্জই, ‘নতুন একটি সিরিজ শুরু হচ্ছে। আমাদের মনোযোগ ভালো খেলার দিকে। কখনো খারাপ দিন আসতে পারে। তবে আমরা সবকিছু ইতিবাচকভাবেই ভাবছি।’

আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, এই সিরিজ পড়তে পারে বৃষ্টির বাধায়। বৃষ্টি নেমেছে কাল সকালেও, বাংলাদেশ দলের অনুশীলন তাই সীমাবদ্ধ হয়ে পড়ে ইনডোরে। মাশরাফিও বুঝতে পারছেন, ‘এখন যে আবহাওয়া, বৃষ্টির ওপর অনেক কিছু নির্ভর করছে।’ তবে কন্ডিশনের সুবিধা-অসুবিধা দুই দলের জন্যই সমান বলে এ নিয়ে বেশি ভাবতে রাজি নন অধিনায়ক। ভালো খেলার বাইরে মনোযোগটা মাশরাফি আর কোনো দিকেই সরাতে চান না।

তবে প্রতিপক্ষের শক্তির জায়গা নিয়ে না ভেবেও উপায় নেই। মাশরাফি যেমন বিশ্লেষণ করে পেয়েছেন, অভিজ্ঞ এই দলটির বিকল্প খেলোয়াড়েরাও অনেক ভালো। প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ঘরোয়া ক্রিকেট থেকে উঠে আসা খেলোয়াড়দের মধ্যে আছেন ম্যাচ জেতানোর মতো অনেক খেলোয়াড়। বোলিং ভালো, ব্যাটিং গভীরতাও অনেক বেশি। মাশরাফির কণ্ঠে তাই সমীহ, ‘আট-নয়-দশ নম্বর ব্যাটসম্যানও অনেক ভালো ব্যাট করে।’ অধিনায়ক তাই পরিষ্কার বলে দিলেন, ‘আমাদের ফেবারিট বলা কঠিন। ভালো প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে এবং আমরা প্রস্তুত।’

শেষ কথাটুকু বলার আত্মবিশ্বাস মাশরাফি পেয়েছেন গত দেড়-দুই বছরের নৈপুণ্য থেকে। ২০১৫ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে স্বপ্নযাত্রার শুরু। এরপর দেশে একের পর এক সিরিজ জয়। পাকিস্তান, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, জিম্বাবুয়েকে টানা হারিয়ে ওয়ানডে থেকে ১০ মাসের ছুটি। গত মাসে ওয়ানডেতে ফিরেই আফগানিস্তানকে হারিয়েছে বাংলাদেশ, ধরে রেখেছে জয়ের অভ্যাস।

মুখে খুব জোরালোভাবে সেটা না বললেও ইংল্যান্ডের বিপক্ষেও মাশরাফির আশা জয়ের ধারায় থাকা, ‘প্রতিটি সিরিজই গুরুত্বপূর্ণ। সেদিক দিয়ে এই সিরিজটাকে আলাদা করে দেখছি না। এটা একটা নতুন সিরিজ, সবাই খুব রোমাঞ্চিত। ভালো খেললে আমরা সিরিজও জিততে পারি।’

এই মিশনেও দলের জ্যেষ্ঠ খেলোয়াড়দের ভূমিকাই বেশি মনে করেন অধিনায়ক। সঙ্গে চান তরুণদের সমর্থন। অতীত অভিজ্ঞতায় বললেন, ‘আমরা যত ম্যাচ জিতেছি, সব ম্যাচেই সিনিয়ররা ভালো খেলেছে। আবার তরুণদের পারফরম্যান্সও ভালো হয়েছে। তরুণ ক্রিকেটাররা যদিও খুব বেশি দিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছে না, তারপরও এই পর্যায়ে খেলার সামর্থ্য ওরা ভালোভাবে প্রমাণ করেছে।’

প্রথম ওয়ানডেতে তামিম ইকবালের সঙ্গী খুঁজতে গিয়ে অবশ্য অভিজ্ঞতার দিকেই ঝুঁকছে টিম ম্যানেজমেন্ট। প্রস্তুতি ম্যাচে সেঞ্চুরি পাওয়া ইমরুল কায়েসের একাদশে থাকা মোটামুটি নিশ্চিতই। আফগানিস্তান সিরিজের তিন ম্যাচেই রানে ফিরতে ব্যর্থ সৌম্য সরকারকে থাকতে হচ্ছে বাইরে। নাসির ও আল আমিনেরও সম্ভবত জায়গা হচ্ছে না প্রথম ম্যাচের একাদশে।

এ সম্পর্কিত আরও

আপনার-মন্তব্য