ঢাকা : ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, শুক্রবার, ৯:৪৫ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

কাশ্মীরে ফের সেনাছাউনিতে হানা

ভারতনিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে সেনাছাউনিতে আবার হামলা হলো। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর পাঁচটায় উত্তর কাশ্মীরের হান্ডওয়ারা শহরের সেনাছাউনি আক্রমণ করতে গিয়ে তিন সশস্ত্র সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। হামলাকারীরা সবাই পাকিস্তান থেকে আসা বলে ভারতীয় সেনা কর্তৃপক্ষের দাবি। তাদের কাছ থেকে তিনটি একে-৪৭ রাইফেল এবং অসংখ্য গুলি ও গ্রেনেড উদ্ধার করা হয়েছে।
গতকালের ওই হামলার পর রাজধানী নয়াদিল্লিসহ চার রাজ্য জম্মু-কাশ্মীর, পাঞ্জাব, রাজস্থান ও গুজরাটের ২২টি বিমানবন্দরে সতর্কতা জারি করা হয়। গোয়েন্দা সংস্থা আরও সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কা জানানোর পর বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ, নিরাপত্তায় নিয়োজিত বিভিন্ন বাহিনী এবং এয়ারলাইনসগুলোকে সতর্ক করে বার্তা পাঠায় বেসরকারি বিমান চলাচল নিরাপত্তা ব্যুরো।
গতকাল হান্ডওয়ারা শহরের ল্যানগেট এলাকায় রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের ছাউনিতে হামলা হয়। সেনাছাউনির কমান্ডিং অফিসার কর্নেল রাজীব শারঙ্গ সংবাদমাধ্যমকে জানান, ভোরে ছাউনির সদরে পাহারাদার সেনাদের ওপর আচমকাই তিন জঙ্গি গুলি ছুড়তে থাকে। সজাগ সেনানীদের পাল্টা গুলিতে তিন জঙ্গিই নিহত হয়। কর্নেল বলেন, সন্ত্রাসীরা সেনা পোশাক পরে ছাউনিতে ঢোকার চেষ্টায় ছিল। সফল হলে উরির মতো ঘটনা ঘটতে পারত।
গত বুধবারই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার নিরাপত্তাবিষয়ক কমিটির বৈঠকে নতুন সন্ত্রাসী হানা নিয়ে গোয়েন্দাদের সংগৃহীত যাবতীয় তথ্য জানানো হয়। জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল বৈঠকে জানিয়েছিলেন, নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর বিভিন্ন ‘লঞ্চিং প্যাডে’ শতাধিক সশস্ত্র জঙ্গি ভারতীয় কাশ্মীরে ঢোকার অপেক্ষায় রয়েছে।
সেনা কর্মকর্তারা বলেছেন, নিহত তিন জঙ্গি যে পাকিস্তানি অথবা তারা যে পাকিস্তান থেকে এসেছিল, তার প্রমাণ তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হওয়া জিনিসপত্রে রয়েছে। স্বয়ংক্রিয় রাইফেল, গ্রেনেড ও গ্রেনেড লঞ্চার এবং অসংখ্য গুলি ছাড়াও তাদের কাছ থেকে পাওয়া যায় ম্যাপ, জিপিএস সেট, রেডিও, ওষুধ, চকলেট ও প্রচুর ভারতীয় টাকা। ওষুধের ফয়েলে ‘মেড ইন পাকিস্তান’ ছাপ ছিল।
উরি হামলা এবং তার প্রত্যুত্তরে ভারতের ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’-এর পর পাকিস্তানও যোগ্য জবাব দেওয়ার কথা জানিয়েছে। তা মোকাবিলায় কাশ্মীরের সর্বত্র ‘রেড অ্যালার্ট’ জারি করা হয়েছে। পাকিস্তান সীমান্তেও দুই দেশের পক্ষ থেকে ‘যুদ্ধ প্রস্তুতি’ চূড়ান্ত। মহারাষ্ট্র, গুজরাট ও রাজস্থানের সীমান্তবর্তী এলাকায় অতিসতর্কতা। গোয়েন্দাদের একটি সূত্র গুজরাট রাজ্য সরকারকে সতর্ক করে জানিয়েছে, দ্বারকায় মন্দিরের ওপর সন্ত্রাসী আক্রমণ ঘটতে পারে। ১০-১২ জনের একটা দল আইএসআইয়ের মদদে উপকূলবর্তী গুজরাটে হয় ঢুকেছে কিংবা ঢোকার অপেক্ষায় রয়েছে। উপকূলরক্ষী বাহিনীকেও সজাগ করা হয়েছে।
এই পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কূটনৈতিক লড়াইয়ে ভারত নতুন করে মাসুদ আজহারকে হাতিয়ার করতে চলেছে। চীনের বাধায় জাতিসংঘে মাসুদ আজহারকে নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব অনুমোদন করা যাচ্ছে না। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ গতকাল বলেন, এই বিষয়ে ভারত নতুন করে চীনের সঙ্গে কথা বলবে। তিনি অবশ্য জানিয়েছেন, পাকিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার সঙ্গে অজিত দোভালের কী কথা হয়েছে, তা প্রকাশ্যে আনা হবে না। একইভাবে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিকরও গতকাল জানিয়ে দিয়েছেন, দাবি উঠলেও ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’-এর কোনো তথ্য-প্রমাণ সরকার প্রকাশ করবে না।
ভারতের রাজনীতি ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’ নিয়ে গতকালও ছিল সরগরম। এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঠিক করেছেন, বিজয়া দশমী বা দশহরার দিন তিনি উত্তর প্রদেশের রাজধানী লক্ষ্ণৌতে কাটাবেন। আগামী বছর ‘মিনি ইন্ডিয়া’ বলে পরিচিত এই রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

সু চিকে সংকটপূর্ণ রাখাইন রাজ্য পরিদর্শনের আহ্বান জাতিসংঘের

মিয়ানমারের সেনারা সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর রাখাইন রাজ্যে যে নির্যাতন চালাচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে দেশটির …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *